খুলনায় যুবক হত্যা, গণপিটুনিতে অভিযুক্ত হত্যাকারী নিহত

খুলনার দাকোপ উপজেলার বাজুয়া সুরেন্দ্রনাথ কলেজের মাঠে গরু চরানোকে কেন্দ্র করে নীল উৎপল রায় (২৮) নামের এক যুবককে ছুরি মেরে হত্যা করা হয়েছে।
Khulna Map
স্টার অনলাইন গ্রাফিক্স

খুলনার দাকোপ উপজেলার বাজুয়া সুরেন্দ্রনাথ কলেজের মাঠে গরু চরানোকে কেন্দ্র করে নীল উৎপল রায় (২৮) নামের এক যুবককে ছুরি মেরে হত্যা করা হয়েছে।

এ ঘটনায় অভিযুক্ত হত্যাকারী ইমন হোসেনকে গণপিটুনি দিয়ে পুলিশের হাতে তুলে দেয় এলাকাবাসী। পরে হাসপাতালে তার মৃত্যু হয়।

আজ মঙ্গলবার সকাল ৮ টার দিকে বাজুয়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত নীল উৎপল ওই গ্রামের সুকুমার রপ্তানের ছেলে। তিনি বিএল কলেজ থেকে পদার্থবিজ্ঞানে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি নিয়ে চাকরির প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন।

অভিযুক্ত হত্যাকারী ইমন হোসেন তার প্রতিবেশি। তার বাবার নাম বাদল হোসেন।

বাজুয়া সুরেন্দ্রনাথ কলেজের অধ্যক্ষ শ্যামল রায় দ্য ডেইলি স্টারকে বলেন, ‘অভিযুক্ত হামলাকারী ইমন আমার কলেজের এইচএসসি পরীক্ষার্থী। সে গতকাল কলেজের মাঠে গরু চরাচ্ছিল। তখন কলেজের সহকারী লাইব্রেরিয়ান সুকুমার রপ্তান তাকে নিষেধ করে। এরই জের ধরে ইমন আজ সকালে সুকুমারের বড়িতে গিয়ে তার একমাত্র ছেলে উৎপল রপ্তানকে ছুরিকাঘাত করে হত্যা করেছে বলে অভিযোগ উঠেছে।’

পরে এলাকাবাসী ইমনকে গণপিটুনি দেয় বলে স্থানীয় সূত্রে জানা যায়।

দাকোপ থানার ওসি শফিকুল ইসলাম চৌধুরী ডেইলি স্টারকে বলেন, ‘নিহত নীল উৎপলের বাবা বাজুয়া সুরেন্দ্রনাথ কলেজের লাইব্রেরিয়ান। গতকাল বিকালে ইমন ওই কলেজের মাঠে গরু চরাছিল। সে সময়ে উৎপলের বাবা তাকে বকাবকি করেছিলেন। বলেছিলেন, মাঠে গরু চরালে মল ত্যাগ করে, মাঠ নষ্ট হয় ইত্যাদি।’

তিনি আরও বলেন, ‘আজ সকালে এ নিয়ে বিচারে বসার কথা ছিল। তা হয়নি। কিছুক্ষণ পর ইমন একটি চাকু নিয়ে এসে উৎপলের পেটে আঘাত করে। হাসপাতালে নেওয়ার পথে সে মারা যায়।’

‘এ ঘটনায় অভিযুক্ত হত্যাকারী ইমনকে এলাকাবাসী গণপিটুনি দেয়। চিকিৎসার জন্য উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হলে সেখানে সে মারা যায়,’ যোগ করেন পুলিশ কর্মকর্তা।

এ ঘটনায় এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে বলে স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে।

Comments

The Daily Star  | English

Shanir Akhra turns into warzone

Panic as locals join protesters in clash with cops; Hanif Flyover toll plaza, police box set on fire; dozens feared hurt

1h ago