করোনা আপডেট: ফরিদপুর, নোয়াখালী, বরগুনা, চাঁদপুর, কক্সবাজার

ফরিদপুরে গত ২৪ ঘণ্টায় চার র‌্যাব সদস্যসহ আরও ৪৪ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। নোয়াখালী জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার, আনসার সদস্যসহ আরও ৩২ জন এবং বরগুনায় এক দিনে সর্বোচ্চ ১৩ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এ দিকে, চাঁদপুরে করোনা উপসর্গ নিয়ে এক ইউপি চেয়ারম্যান ও কক্সবাজারে করোনা উপসর্গ নিয়ে আরও এক ব্যক্তি মারা গেছেন। দ্য ডেইলি স্টার স্থানীয় সংবাদদাতারা এ সব তথ্য জানিয়েছেন।

ফরিদপুরে গত ২৪ ঘণ্টায় চার র‌্যাব সদস্যসহ আরও ৪৪ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে।  নোয়াখালী জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার, আনসার সদস্যসহ আরও ৩২ জন এবং বরগুনায় এক দিনে সর্বোচ্চ ১৩ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এ দিকে,  চাঁদপুরে করোনা উপসর্গ নিয়ে এক ইউপি চেয়ারম্যান ও কক্সবাজারে করোনা উপসর্গ নিয়ে আরও এক ব্যক্তি মারা গেছেন। দ্য ডেইলি স্টার স্থানীয় সংবাদদাতারা এ সব তথ্য জানিয়েছেন।

ফরিদপুরে ৪ র‌্যাব সদস্যসহ আরও ৪৪ জনের করোনা শনাক্ত

ফরিদপুরে গত ২৪ ঘণ্টায় চার র‌্যাব সদস্য, পল্লী বিদ্যুতের এক কর্মচারীসহ আরও ৪৪ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে জেলায় এ পর্যন্ত ৫৯৯ জনের করোনা শনাক্ত হলো। ফরিদপুরের সিভিল সার্জন মো. ছিদ্দীকুর রহমান আজ বুধবার এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, নতুন শনাক্ত ৪৪ জনের মধ্যে ফরিদপুর সদর উপজেলায় ১৫ জন, সালথায় সাত জন, সদরপুর ও বোয়ালমারী উপজেলায় ছয় জন করে, ভাঙ্গা, আলফাডাঙ্গা ও মধুখালী উপজেলায় তিন জন করে এবং নগরকান্দা উপজেলায় একজন রয়েছেন। আক্রান্তদের মধ্যে আট জন নারী ও ৩৬ জন পুরুষ।

তিনি আরও জানান, ফরিদপুর র‌্যাব-৮ এর চার সদস্য ও এক র‌্যাব সদস্যের স্ত্রীর করোনা শনাক্ত হয়েছে। এ ছাড়া, সালথা উপজেলায় কর্মরত পল্লী বিদ্যুৎ বিভাগের এক কর্মীরও করোনা ভাইরাস শনাক্ত হয়েছে।

এ পর্যন্ত জেলায় মোট শনাক্ত ৫৯৯ জনের মধ্যে ফরিদপুর সদরে রয়েছে ১৪৯ জন, ভাঙ্গায় ১৪২ জন, বোয়ালমারীতে ৯০ জন, চরভদ্রাসনে ৪৮ জন, নগরকান্দায় ৪৫ জন, আলফাডাঙ্গায় ৩৮ জন, সদরপুরে ৪৪ জন, সালথায় ২৪ জন এবং মধুখালীতে ১৯ জন।

সিভিল সার্জন বলেন, আক্রান্তদের আপাতত বাড়িতে রেখে চিকিৎসা দেওয়া হবে। তবে শারীরিক পরিস্থিতির অবনতি হলে তাদের ফরিদপুরের করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতালে স্থানান্তর করা হবে।

ফরিদপুরের পুলিশ সুপার মো. আলিমুজ্জামান বলেন, জেলায় নতুন করে যে ৪৪ জনের করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে তাদের প্রত্যেকের বাড়ি বিচ্ছিন্ন করা হয়েছে।

নোয়াখালীতে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার, আনসারসহ আরও ৩২ জনের করোনা শনাক্ত

নোয়াখালী জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার, আনসারসহ আরও ৩২ জনের করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। নোয়াখালীর আব্দুল মালেক উকিল মেডিকেল কলেজ ও নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ল্যাব থেকে আসা নমুনা পরীক্ষায় এ ফল জানা যায়। এ নিয়ে জেলায় করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়ালো এক হাজার ১০১ জন।

আজ দুপুরে নোয়াখালী সিভিল সার্জন ডা. মো. মোমিনুর রহমান এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

সিভিল সার্জন জানান, জেলায় নতুন করে ৩২ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে জেলায় করোনা

আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বেড়ে এক হাজার ১০১ জন। এদের মধ্যে সদর উপজেলায় ২৯৬ জন, সুবর্ণচরে ৩৪ জন, হাতিয়ায় ৯ জন, বেগমগঞ্জ উপজেলায় ৪৮০ জন, সোনাইমুড়ী উপজেলা ৫৫ জন, চাটখিলে ৭১ জন, সেনবাগে ৬৭ জন, কোম্পানীগঞ্জে নয় জন ও কবিরহাটে ৮০ জন।

তিনি জানান, নতুন শনাক্তদের মধ্যে সদর উপজেলায় রয়েছেন ২৩ জন, সুবর্নচরে ছয় জন ও কবিরহাটে তিন জন।

জেলা পুলিশ সুপার মো. আলমগীর হোসেন জানান, সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার কাজী মো. আব্দুর রহিম গত কয়েকদিন ধরে জ্বরসহ করোনা উপসর্গে ভুগছিলেন। গত পরশু তার নমুনা পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়। মঙ্গলবার রাতে আসা পরীক্ষার ফলাফলে তার করোনা পজিটিভ জানা যায়।

তিনি আরও জানান, কাজী মো. আব্দুর রহিম হোম আইসোলেশনে রয়েছেন এবং ভালো আছেন।

এ পর্যন্ত জেলায় অর্ধশতাধিক পুলিশ কর্মকর্তা ও সদস্য করোনা আক্রান্ত হয়েছেন বলেও জানান তিনি।

বরগুনায় একদিনে সর্বোচ্চ ১৩ জন করোনা শনাক্ত

বরগুনায় এক দিনে সর্বোচ্চ ১৩ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। তাদের মধ্যে এক জন ছাড়া সবাই বরগুনা সদর উপজেলার বাসিন্দা। এ নিয়ে জেলায় এ পর্যন্ত ৯৪ জনের করোনা শনাক্ত হলো।

জেলা করোনা প্রতিরোধ কমিটির প্রধান জেলা প্রশাসক মোস্তাইন বিল্লাহ বলেন, ‘কোভিড–১৯ শনাক্ত ব্যক্তিদের যথাযথ চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। তাদের বাড়ি লকডাউন করা হয়েছে।’

বরগুনা সিভিল সার্জন কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, নতুন শনাক্তদের মধ্যে বরগুনা সদর উপজেলার ১২ জন ও বেতাগী উপজেলার একজন আছেন। মোট শনাক্তের মধ্যে বরগুনা সদর উপজেলায় ৪৫ জন, আমতলীতে ১৬ জন, বেতাগী উপজেলায় আট জন, বামনায় ১৪ জন, তালতলীতে চার জন ও পাথরঘাটায় সাত জন রয়েছেন। জেলায় এ পর্যন্ত সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৫৮ জন।

চাঁদপুরে করোনা উপসর্গ নিয়ে ইউপি চেয়ারম্যানের মৃত্যু

চাঁদপুরের শাহরাস্তি উপজেলার মেহের দক্ষিণ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা সফি আহম্মেদ (৬০) করোনা উপসর্গ নিয়ে মারা গেছেন। আজ বুধবার ভোর রাত ৩টায় নিজ বাড়িতে শ্বাসকষ্ট নিয়ে তিনি মারা যান।

চাঁদপুর সিভিল সার্জন ডা. মো. সাখাওয়াত উল্লাহ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন।

করোনা পরীক্ষার জন্য গতকাল মঙ্গলবার সফি আহম্মেদের নমুনা সংগ্রহ করা হয় বলে তিনি জানান।

এ পর্যন্ত জেলায় করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ২৮৩ জন এবং তার মধ্যে ২৩ জন মারা গেছেন বলেও তিনি জানান।

আজ সকাল ১১টায় বোলদীঘিরপাড় মাদ্রাসা প্রাঙ্গণে সরকারি স্বাস্থ্য বিধি মেনে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় মুক্তিযোদ্ধা সফি আহম্মেদকে জানাজা শেষে দাফন করা হয় বলে জানিয়েছেন শাহরাস্তি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শাহ আলম।

কক্সবাজারে করোনা উপসর্গ নিয়ে ১ জনের মৃত্যু

কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় করোনা উপসর্গ নিয়ে মহেশখালী উপজেলার এক ব্যক্তি মারা গেছেন। মৃত মনজুর আহমদের (৬০) বাড়ি উপজেলার কুতুবজোম ইউনিয়নের দৈলারপাড়া গ্রামে।

কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা (আরএমও) ডা. শাহীন মোহামমদ আবদুর রহমান চৌধুরী দ্য ডেইলি স্টারকে বলেন, ‘মনজুর আহমদের করোনা উপসর্গ ছিল। করোনা পরীক্ষার জন্য আজ তার নমুনা কক্সবাজার মেডিকেল কলেজ ল্যাবে পাঠানো হয়েছে। করোনা উপসর্গ ছিল বলে সরকারি স্বাস্থ্যবিধি অনুযায়ী ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মাধ্যমে তার দাফনের ব্যবস্থা করা হয়েছে।’

মনজুর আলমের ভাই বেলাল হোসেন রানা জানান, তার ভাই দীর্ঘদিন ধরে শ্বাসকষ্টে ভুগছিলেন। গত সোমবার তার শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে তাকে প্রথমে মহেশখালী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ও পরে কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। আজ বুধবার ভোর চারটায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান।

Comments

The Daily Star  | English

PM's comment ignites protests across campuses

Hundreds of students from several public universities, including Dhaka University, took to the streets around midnight to protest what they said was a "disparaging comment" by Prime Minister Sheikh Hasina earlier in the evening

1h ago