করোনাভাইরাস

বিশ্বে মৃত্যু ৫ লাখ ২০ হাজার, যুক্তরাষ্ট্রে ১ লাখ ২৮ হাজারের বেশি

বিশ্বব্যাপী প্রতিনিয়ত মহামারি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা বাড়ছে। ইতোমধ্যে পাঁচ লাখ ২০ হাজারেরও বেশি মানুষ মারা গেছেন। আক্রান্ত হয়েছেন এক কোটি আট লাখের বেশি। এ ছাড়া, সুস্থও হয়েছেন ৫৭ লাখের বেশি মানুষ।
ব্রাজিলে করোনার উপসর্গ দেখা দেওয়ায় ৮৪ বছর বয়সী এক নারীকে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে নিয়ে যাচ্ছেন জরুরি স্বাস্থ্যসেবার কর্মীরা। ২ জুলাই ২০২০। ছবি: রয়টার্স

বিশ্বব্যাপী প্রতিনিয়ত মহামারি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা বাড়ছে। ইতোমধ্যে পাঁচ লাখ ২০ হাজারেরও বেশি মানুষ মারা গেছেন। আক্রান্ত হয়েছেন এক কোটি আট লাখের বেশি। এ ছাড়া, সুস্থও হয়েছেন ৫৭ লাখের বেশি মানুষ।

আজ শুক্রবার জনস হপকিনস ইউনিভার্সিটির করোনাভাইরাস রিসোর্স সেন্টার এ তথ্য জানিয়েছে।

জনস হপকিনস ইউনিভার্সিটির সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন এক কোটি আট লাখ ৪২ হাজার ৬১৫ জন এবং মারা গেছেন পাঁচ লাখ ২০ হাজার ৭৮৫ জন। এ ছাড়া, সুস্থ হয়েছেন ৫৭ লাখ ২৪ হাজার ৮৫১ জন।

করোনাভাইরাসে সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত ও মৃত্যু যুক্তরাষ্ট্রে। দেশটিতে আক্রান্ত হয়েছেন ২৭ লাখ ৩৯ হাজার ২৩০ জন এবং মারা গেছেন এক লাখ ২৮ হাজার ৭৪২ জন। এ ছাড়া, সুস্থ হয়েছেন সাত লাখ ৮১ হাজার ৯৭০ জন।

যুক্তরাষ্ট্রের পর সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত ও মৃত্যু দক্ষিণ আমেরিকার দেশ ব্রাজিলে। দেশটিতে আক্রান্ত হয়েছেন ১৪ লাখ ৯৬ হাজার ৮৫৮ জন, মারা গেছেন ৬১ হাজার ৮৮৪ জন এবং সুস্থ হয়েছেন নয় লাখ ৫৭ হাজার ৬৯২ জন।

মৃত্যুর সংখ্যার দিক থেকে তৃতীয়তে রয়েছে যুক্তরাজ্য। দেশটিতে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে এখন পর্যন্ত ৪৪ হাজার ৮০ জন মারা গেছেন। আক্রান্ত হয়েছেন দুই লাখ ৮৫ হাজার ২৬৮ জন। এ ছাড়া, সুস্থ হয়েছেন ১ হাজার ৩৭৩ জন।

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বাড়ছে রাশিয়া, পেরু ও চিলিতেও। রাশিয়ায় এখন পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন ছয় লাখ ৬০ হাজার ২৩১ জন এবং মারা গেছেন নয় হাজার ৬৬৮ জন। এ ছাড়া, সুস্থ হয়েছেন চার লাখ ২৮ হাজার ২৭৬ জন। পেরুতে আক্রান্ত হয়েছেন দুই লাখ ৯২ হাজার চার জন এবং মারা গেছেন ১০ হাজার ৪৫ জন। এ ছাড়া, সুস্থ হয়েছেন এক লাখ ৮২ হাজার ৯৭ জন। চিলিতে আক্রান্ত হয়েছেন দুই লাখ ৮৪ হাজার ৫৪১ জন এবং মারা গেছেন পাঁচ হাজার ৯২০ জন। এ ছাড়া, সুস্থ হয়েছেন দুই লাখ ৪৯ হাজার ২৪৭ জন।

প্রতিবেশী দেশ ভারতে আক্রান্ত হয়েছেন ছয় লাখ চার হাজার ৬৪১ জন, মারা গেছেন ১৭ হাজার ৮৩৪ জন এবং সুস্থ হয়েছেন তিন লাখ ৫৯ হাজার ৮৬০ জন।

ইউরোপের দেশ স্পেনে এখন পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন দুই লাখ ৫০ হাজার ১০৩ জন, মারা গেছেন ২৮ হাজার ৩৬৮ জন এবং সুস্থ হয়েছেন এক লাখ ৫০ হাজার ৩৭৬ জন। ইতালিতে আক্রান্ত হয়েছেন দুই লাখ ৪০ হাজার ৯৬১ জন, মারা গেছেন ৩৪ হাজার ৮১৮ জন এবং সুস্থ হয়েছেন এক লাখ ৯১ হাজার ৮৩ জন। ফ্রান্সে আক্রান্ত হয়েছেন দুই লাখ তিন হাজার ৬৪০ জন, মারা গেছেন ২৯ হাজার ৮৭৮ জন এবং সুস্থ হয়েছেন ৭৬ হাজার ৯২৭ জন। জার্মানিতে আক্রান্ত হয়েছেন এক লাখ ৯৬ হাজার ৩৭০ জন, মারা গেছেন নয় হাজার ছয় জন এবং সুস্থ হয়েছেন এক লাখ ৭৯ হাজার ৮০০ জন।

মধ্যপ্রাচ্যের দেশ ইরানে আক্রান্ত হয়েছেন দুই লাখ ৩২ হাজার ৮৬৩ জন, মারা গেছেন ১১ হাজার ১০৬ জন এবং সুস্থ হয়েছেন এক লাখ ৯৪ হাজার ৯৮ জন। তুরস্কে আক্রান্ত হয়েছেন দুই লাখ দুই হাজার ২৮৪ জন, মারা গেছেন পাঁচ হাজার ১৬৭ জন এবং সুস্থ হয়েছেন এক লাখ ৭৬ হাজার ৯৬৫ জন।

ভাইরাসটির সংক্রমণস্থল চীনে আক্রান্ত হয়েছেন ৮৪ হাজার ৮৩০ জন, মারা গেছেন ৪ হাজার ৬৪১ জন এবং সুস্থ হয়েছেন ৭৯ হাজার ৬৬৫ জন।

উল্লেখ্য, গত ৮ মার্চ বাংলাদেশে প্রথম করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত করে সরকারের রোগতত্ত্ব, রোগনিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান (আইইডিসিআর)। প্রতিষ্ঠানটির সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, দেশে এখন পর্যন্ত করোনাভাইরাসে আক্রান্ত এক লাখ ৫৩ হাজার ২৭৭ জনকে শনাক্ত করা হয়েছে। মারা গেছেন এক হাজার ৯২৬ জন। এ ছাড়া, সুস্থ হয়েছেন ৬৬ হাজার ৪৪২ জন।

Comments

The Daily Star  | English
Will the Buet protesters’ campaign see success?

Ban on student politics: Will Buet protesters’ campaign see success?

One cannot help but note the irony of a united campaign protesting against student politics when it is obvious that student politics is very much alive on the Buet campus

8h ago