ভিএআর একটি দলকেই সাহায্য করছে: বার্সা প্রেসিডেন্ট

সাম্প্রতিক সময়ে লা লিগায় সবচেয়ে বেশি আলোচনা হচ্ছে ভিডিও অ্যাসিস্ট্যান্ট রেফারি (ভিএআর) নিয়ে। নিয়মিত উত্তেজনা ছড়াচ্ছে তাদের নানা সিদ্ধান্ত নিয়ে। তবে কাকতালীয়ভাবে ভিএআর থেকে সবসময়ই সুবিধা পেয়ে আসছে স্পেনের অন্যতম শক্তিশালী ক্লাব রিয়াল মাদ্রিদ। তাতে গুঞ্জন আরও বেড়েছে। বার্সেলোনা প্রেসিডেন্ট জোসেপ মারিয়া বার্তেমেউ তো এবার সরাসরি অভিযোগ করলেন।
josep maria bartomeu
ছবি: এএফপি

সাম্প্রতিক সময়ে লা লিগায় সবচেয়ে বেশি আলোচনা হচ্ছে ভিডিও অ্যাসিস্ট্যান্ট রেফারি (ভিএআর) নিয়ে। নিয়মিত উত্তেজনা ছড়াচ্ছে তাদের নানা সিদ্ধান্ত নিয়ে। তবে কাকতালীয়ভাবে ভিএআর থেকে সবসময়ই সুবিধা পেয়ে আসছে স্পেনের অন্যতম শক্তিশালী ক্লাব রিয়াল মাদ্রিদ। তাতে গুঞ্জন আরও বেড়েছে। বার্সেলোনা প্রেসিডেন্ট জোসেপ মারিয়া বার্তেমেউ তো এবার সরাসরি অভিযোগ করলেন।

করোনাভাইরাসের কারণে অনাকাঙ্ক্ষিত বিরতি শেষে ফের লালিগা শুরু হওয়ার পর ভিএআর নিয়ে বিতর্ক বেড়েছে। নতুন শুরুতে টানা সাতটি ম্যাচে জয় পেয়েছে রিয়াল মাদ্রিদ। প্রতি ম্যাচেই বিতর্ক সঙ্গ নিয়েছে। অন্যদিকে তিনটি ড্র করে লিগ থেকে অনেকটি ছিটকে যাওয়ার পথে বার্সেলোনা। সেখানেও রয়েছে বিতর্ক। অনেক সিদ্ধান্তই তাদের বিপক্ষে যাওয়ার অভিযোগ রয়েছে। আর এ সব কারণেই ভিএআর নিয়ে অসন্তুষ্ট বার্সেলোনা প্রেসিডেন্ট।

'আমি সানমামের ম্যাচটি দ্বিতীয়ার্ধের একেবারে শেষ পর্যন্ত দেখেছি। আমি খুবই খারাপ অনুভব করেছি কারণ বিশ্বের মধ্যে আমাদের সেরা একটি লিগ আছে কিং করোনাভাইরাসের পরে ভিএআর নিরপেক্ষ নেই। এটা অনেক ফলাফলই বদলে দিয়েছে এবং সবসময়ই একটি দলকে সহায়তা করেছে।' -সরাসরি না বললেও রিয়াল মাদ্রিদকে ইঙ্গিত করে এমনটাই বলেছেন বার্তেমেউ।

প্রেসিডেন্টের মন্তব্য নিয়ে কথা না বললেও ভিএআর প্রযুক্তি কিছুই বুঝতে পারছেন না বলে জানিয়েছেন বার্সা কোচ কিকে সেতিয়েনও, '(বার্তেমেউ) কি বলেছে তা আমি শুনিনি, তাই কিছু বলতে পারছি না। তবে যদি প্রেসিডেন্ট কিছু বলে থাকে তাতে আমার কি বলার আছে? আমি ভিএআর দিন দিন কম বুঝতে শুরু করছি। আমি ভেবেছিলাম ফুটবলকে সুন্দর করার জন্য আমার অনেক কিছু রয়েছে কিন্তু এখন সেটা মনে হচ্ছে না।'

রোববার অ্যাতলেতিকের মাঠে বেশ চাপেই ছিল রিয়াল। বিরতির পর কিছুটা ঘুরে দাঁড়ায় তারা। ৭৩তম মিনিটে পেনাল্টি কাঙ্ক্ষিত গোল পায় দলটি। মার্সেলো ফাউলের শিকার হওয়ায় ভিএআর প্রযুক্তির সহায়তা নিয়ে পেনাল্টির বাঁশি বাজিয়েছিলেন রেফারি। অথচ নিজেদের ডি-বক্সে প্রায় একই ধরণের একটি ফাউল করেছিলেন রামোস। কিন্তু তখন নীরব ছিলেন রেফারি। নীরব ছিল ভিএআর কক্ষও। তবে বিতর্ক শুধু এ ম্যাচ নিয়ে নয়, প্রায় সব ম্যাচেই বেশ কিছু সিদ্ধান্ত রিয়ালের পক্ষেই গিয়েছে বলে অভিযোগ রয়েছে।

Comments

The Daily Star  | English

An IGP’s eye-watering corruption takes the lid off patronage politics

Many of Benazir Ahmed's public statements since assuming high office aligned more with the ruling party's political stance than with the neutral stance expected of a civil servant.

4h ago