তদন্তের স্বার্থে লঞ্চ দুর্ঘটনার কারণ প্রকাশ করা যাচ্ছে না: নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী

বুড়িগঙ্গায় ময়ূর-২ লঞ্চের ধাক্কায় এমএল মর্নিং সান ডুবে যাওয়ার ঘটনায় গঠিত তদন্ত কমিটি প্রতিবেদন দিলেও তদন্তের স্বার্থে দুর্ঘটনার কারণের কথা প্রকাশ করা হচ্ছে না বলে জানিয়েছেন নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী।
নৌ পরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী। ফাইল ছবি

বুড়িগঙ্গায় ময়ূর-২ লঞ্চের ধাক্কায় এমএল মর্নিং সান ডুবে যাওয়ার ঘটনায় গঠিত তদন্ত কমিটি প্রতিবেদন দিলেও তদন্তের স্বার্থে দুর্ঘটনার কারণের কথা প্রকাশ করা হচ্ছে না বলে জানিয়েছেন নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী।

গত ২৯ জুন ঢাকার সদর ঘাটে যাত্রীবাহী ছোট লঞ্চ মর্নিং সান ডুবে ৩৪ জনের প্রাণহানি হয়। লঞ্চডুবির পর পরই নৌ পরিবহন প্রতিমন্ত্রী সাংবাদিকদের বলেছিলেন, ঘটনার ধরন দেখে এটা তার কাছে ‘পরিকল্পিত এবং হত্যাকাণ্ড’ মনে হয়েছে।

এই ঘটনা তদন্তের জন্য নৌ পরিবহন মন্ত্রণালয়ের গঠিত কমিটি তার প্রতিবেদনে প্রাণহানির পেছনে নয়টি কারণ চিহ্নিত করার কথা বলেছে। ভবিষ্যতে এ ধরনের ঘটনা এড়াতে কমিটি ২০ দফা সুপারিশও করেছে।

গতকাল প্রতিবেদন পাওয়ার পর আজ মঙ্গলবার সচিবালয়ে সংবাদ সম্মেলনে প্রতিমন্ত্রী বলেন, বুড়িগঙ্গায় লঞ্চডুবির ঘটনায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনী মামলা করেছে। মামলার প্রতিবেদন ১৭ আগস্ট প্রকাশ হবে। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর তদন্তের স্বার্থে প্রতিবেদনে উল্লিখিত দুর্ঘটনার কারণগুলো প্রকাশ করা যাচ্ছে না। লঞ্চডুবির ঘটনায় নিহতদের স্বজনরা যাতে স্বস্তি পায়, বিচার পায় সে বিষয়ে সরকার সচেষ্ট। তদন্ত কমিটির ২০-দফা সুপারিশ পর্যায়ক্রমে বাস্তবায়ন করা হবে।

মন্ত্রণালয় থেকে দেওয়া এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, নৌপরিবহন সচিব মোহাম্মদ মেজবাহ্ উদ্দিন চৌধুরী তদন্ত কমিটির ২০-দফা সুপারিশ তুলে ধরেন। এ সময় অন্যান্যের মধ্যে বিআইডব্লিউটিএ’র চেয়ারম্যান কমোডর গোলাম মোহাম্মদ সাদেক উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, বুড়িগঙ্গা নদীতে ২৯ জুন সকালে লঞ্চডুবির ঘটনায় নৌপরিবহন মন্ত্রণালয় সেদিনই সাত সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করে সাত দিনের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়। নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব (উন্নয়ন) মো. রফিকুল ইসলাম খানকে আহ্বায়ক এবং বিআইডব্লিউটিএ’র পরিচালক (নৌনিরাপত্তা) মো. রফিকুল ইসলামকে কমিটির সদস্য সচিব করা হয়।

Comments