সাতক্ষীরা থেকে গ্রেপ্তারের পর সাহেদকে ঢাকায় আনা হয়েছে

করোনা চিকিৎসার নামে প্রতারণার দায়ে অভিযুক্ত রিজেন্ট গ্রুপের চেয়ারম্যান সাহেদ অবৈধভাবে সীমান্ত পেরিয়ে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করার সময় গ্রেপ্তার হয়েছেন। পরিচয় আড়াল করতে বোরখা পরিহিত অবস্থায় নৌকাযোগে সীমান্ত পাড়ি দেওয়ার সময় তাকে গ্রেপ্তার করে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)।

করোনা চিকিৎসার নামে প্রতারণার দায়ে অভিযুক্ত রিজেন্ট গ্রুপের চেয়ারম্যান সাহেদ অবৈধভাবে সীমান্ত পেরিয়ে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করার সময় গ্রেপ্তার হয়েছেন। পরিচয় আড়াল করতে বোরকা পরিহিত অবস্থায় নৌকাযোগে সীমান্ত পাড়ি দেওয়ার সময় তাকে গ্রেপ্তার করে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)।

র‌্যাবের বিশেষ অভিযানে সাতক্ষীরার দেবহাটা উপজেলার কোমরপুর গ্রামের লবঙ্গবতী নদীর তীর সীমান্ত এলাকা থেকে গ্রেপ্তারের পর রিজেন্ট গ্রুপের চেয়ারম্যান সাহেদের সঙ্গে র‌্যাব সদস্যরা । ছবি: র‌্যাবের সৌজন্যে


আজ বুধবার ভোরে র‌্যাবের বিশেষ অভিযানে সাতক্ষীরার দেবহাটা উপজেলার কোমরপুর গ্রামের লবঙ্গবতী নদীর তীর সীমান্ত এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

সাতক্ষীরা থেকে গ্রেপ্তারের পর সাহেদকে নিয়ে সকাল ৯টায় র‌্যাবের অভিযানিক দল হেলিকপ্টার যোগে ঢাকায় পৌঁছে।

গ্রেপ্তারের সময় তার কাছ থেকে একটি বিদেশি পিস্তল ও গুলিভর্তি একটি ম্যাগজিন উদ্ধার করা হয়। ছবি: র‌্যাবের সৌজন্যে/ ফাইল ফটো


র‌্যাবের লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইংয়ের পরিচালক লেফটেন্যান্ট কর্নেল আশিক বিল্লাহ বলেন, ‘সাহেদকে গ্রেপ্তারের জন্য আমরা আগে থেকেই সীমান্ত এলাকাগুলোতে নজরদারি বাড়িয়েছিলাম। তারই ধারাবাহিকতায় আজ ভোরে তার অবস্থান নিশ্চিত হওয়ার পর তাকে গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হই।’

এই নৌকা যোগেই সীমান্ত পেরিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করছিলেন সাহেদ। ছবি: র‌্যাবের সৌজন্যে


‘র‌্যাবের গোয়েন্দা শাখার পরিচালক লেফটেন্যান্ট কর্নেল সারওয়ার বিন কাশেমের নেতৃত্বে পরিচালিত অভিযানে প্রতারক সাহেদকে নৌকা যোগে সীমান্ত পেরিয়ে যাওয়ার সময় গ্রেপ্তার করা হয়। নিজেকে আড়াল করতে সাহেদ বোরকা পরিহিত অবস্থায় ছিলেন। তিনি সম্পূর্ণ অবৈধভাবে অনুপ্রবেশের চেষ্টা করছিলেন।’

এ সময় তার কাছ থেকে একটি বিদেশি পিস্তল ও গুলি ভর্তি একটি ম্যাগাজিন উদ্ধার করা হয় বলেও জানান তিনি।

সাতক্ষীরা থেকে গ্রেপ্তারের পর সাহেদকে নিয়ে আজ সকাল ৯টায় র‌্যাবের অভিযানিক দল হেলিকপ্টার যোগে ঢাকায় পৌঁছেন। ছবি: মুনতাকিম সাদ


সাহেদ উঁচুমানের প্রতারক উল্লেখ করে আশিক বিল্লাহ বলেন, ‘সাহেদ বিভিন্ন পন্থা অবলম্বন করে ছদ্মবেশ ধারণ করে আত্মগোপনের চেষ্টা করছিলেন। তার বাড়ি সাতক্ষীরা হলেও তিনি বাড়ি না গিয়ে বিভিন্ন গাড়ি পরিবর্তন করে আশে-পাশে ঘুরছিলেন। তাকে ধরতে র‌্যাব সারাদেশব্যপী সম্ভাব্য সকল জায়গায় নজরদারি করছিল।

ঢাকায় আনার পর সাহেদকে র‌্যাবের সদরদপ্তরে নেওয়া হয়। ছবি: মুনতাকিম সাদ

Comments

The Daily Star  | English

For now, battery-run rickshaws to keep plying on Dhaka roads: Quader

Road, Transport and Bridges Minister Obaidul Quader today said the battery-run rickshaws and easy bikes will ply on the Dhaka city roads

1h ago