নেইমারের গোলে ফরাসি কাপ জিতল পিএসজি

করোনাভাইরাস মহামারির আগে সর্বশেষ কোন প্রতিযোগিতামূলক ম্যাচ খেলেছিলেন নেইমার। দীর্ঘদিন পর আবার প্রতিযোগিতামূলক ম্যাচে নেমে জানান দিলেন নিজের ছন্দ। তার গোলে সাঁত এতিয়েনকে হারিয়ে ফরাসি কাপে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে প্যারিস সেন্ট জার্মেই (পিএসজি)।
Neymar
ছবি: এএফপি

করোনাভাইরাস মহামারির আগে সর্বশেষ কোন প্রতিযোগিতামূলক ম্যাচ খেলেছিলেন নেইমার। দীর্ঘদিন পর আবার প্রতিযোগিতামূলক ম্যাচে নেমে জানান দিলেন নিজের ছন্দ। তার গোলে সাঁত এতিয়েনকে হারিয়ে ফরাসি কাপে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে প্যারিস সেন্ট জার্মেই  (পিএসজি)।

শুক্রবারে প্যারিসে ওই এক গোলেই এতিয়েনকে হারিয়ে এই টুর্নামেন্টের ১৩তম শিরোপা ঘরে তুলে নেইমাররা।

খেলার একদম প্রথম মিনিটেই ফাঁকে বারে বল পেয়ে গিয়েছিলেন নেইমার। কিন্তু তার দুর্বল প্রচেষ্টা চলে যায় বাইরে। পঞ্চম মিনিটে উলটো গোল খেয়েই ফেলেছিল পিএসজি। বাঁদিক থেকে তৈরি আক্রমণে এতিয়েনের ডেনিস বনগার শট বারে লেগে ফিরে আসে।

১৪ মিনিটে গোলের দেখা যায় পিএসজি। ডানদিক থেকে করা আক্রমণে বল নিয়ে বক্সে ঢুকে গিয়েছিলেন কিলিয়ান এমবাপে। তার শট গোলরক্ষক ফিরিয়ে দিলে পেয়ে যান সামনেই থাকা নেইমার। সহজ শটে দলকে এগিয়ে নেন ব্রাজিলিয়ান তারকা।

২৫ মিনিটে খেলায় তৈরি হয় গোলমাল। এতিয়েনের লোয়েচ পেরিন এমবাপেকে মারাত্মক ফাউল করা নিয়ে মারামারিতে জড়িয়ে পড়ে দুদল। হলুদ কার্ড পান পিএসজির তিনজন আর এতিয়েনের একজন। পরে ভিআরে এতিয়েনের পেরিনকে লালকার্ড দেখানো হয়। চোটে মাঠ ছাড়েন এমবাপেও।

বাকিটা সময় ১০ জন নিয়েই খেলেছে এতিয়েন। স্বাভাবিকভাবে দুর্বল হয়ে রক্ষণে জোর বাড়িয়েছে তারা।

এরপর ব্যবধান বাড়ানোর আরও কিছু সুযোগ পেয়েছিল পিএসজি। কিন্তু কাঙ্খিত ঠিকানায় বল আর পাঠাতে পারেননি তারা।

করোনাভাইরাসের কারণে ফরাসী লিগ ওয়ান মাঝপথে বন্ধের পর আর শুরু হয়নি। কিন্তু পয়েন্ট টেবিলে অনেক এগিয়ে থাকা পিএসজিকে চ্যাম্পিয়ন ঘোষণা করা হয়।

৩১ জুলাই ফরাসি লিগ কাপের ফাইনালে লিঁওর সঙ্গে ম্যাচ আছে টমাস টুখেলের শিষ্যদের। ১২ অগাস্ট চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ম্যাচে আতলান্তার বিপক্ষে খেলবে নেইমাররা।

Comments