বার্সার মাঠে গিয়ে খেলতে রাজি নয় নাপোলি

ক্লাবটির প্রেসিডেন্ট আউরেলিয়ো দি লাউরেন্তিস বলেছেন, এই সময়ে ন্যু ক্যাম্পে গিয়ে খেলা তাদের ঠিক হবে না।
 Camp Nou stadium in Barcelona
ক্যাম্প ন্যু। ফাইল ছবি: এএফপি

স্পেনে নতুন করে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বাড়ায় উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েছে ইতালির ক্লাব নাপোলি। চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ফিরতে লেগ খেলতে বার্সেলোনার মাঠে যাওয়ার কথা তাদের। তবে ক্লাবটির প্রেসিডেন্ট আউরেলিয়ো দি লাউরেন্তিস বলেছেন, এই সময়ে ন্যু ক্যাম্পে গিয়ে খেলা তাদের ঠিক হবে না।

চ্যাম্পিয়ন্স লিগের শেষ ষোলোর লড়াইয়ে আগামী ৮ অগাস্ট মুখোমুখি হওয়ার কথা নাপোলি-বার্সার। প্রথম লেগে নাপোলির মাঠে ১-১ গোলে ড্র করেছিল বার্সেলোনা। পরের রাউন্ডে যাওয়ার ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ এই ম্যাচ পর্তুগাল বা জার্মানিতে সরিয়ে নেওয়ার প্রস্তাব দিয়েছে ইতালিয়ান দলটি।

সংবাদ সংস্থা অ্যাসোসিয়েট প্রেস (এপি) জানিয়েছে, নাপোলির স্বত্বাধিকারী ও প্রেসিডেন্ট লাউরেন্তিস এই সময়ে স্পেনে খেলা আয়োজন নিয়ে রীতিমতো ক্ষুব্ধ, ‘স্পেন থেকে ভীতি জাগানিয়া সব খবর পাচ্ছি আর তারা এমন ভাব করছে যেন কিছুই হয়নি! আমাদের এখন একটাই কথা মনে হচ্ছে, বার্সেলোনা যাওয়া ঠিক হবে না। তার চেয়ে পর্তুগাল, জার্মানি বা জেনেভা নিরাপদ।’

স্পেনের স্বাস্থ্য মন্ত্রী সালভাদর ইলা বৃহস্পতিবার জানান, স্পেনে সাম্প্রতিক সংক্রমণের ৬০ শতাংশই উত্তরপূর্ব অঞ্চলের কাতালুনিয়া রাজ্যে। ওই রাজ্যের সবচেয়ে বড় শহর বার্সেলোনা। স্পেনের কাতালুনিয়া রাজ্যের সরকার অবশ্য জীবাণুমুক্ত পরিবেশে দর্শকশূন্য মাঠে খেলা নিরাপদ দেখছে। তারা জানিয়েছে, যে ধরনের সুরক্ষা ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে, তাতে খেলোয়াড়দের আক্রান্ত হওয়ার কোনো সম্ভাবনা নেই।

কিন্তু এসব কথায় ভরসা পাচ্ছেন না লাউরেন্তিস। তার একটাই কথা, খেলা সরিয়ে নেওয়া হোক ‘নিরাপদ’ ভেন্যুতে, ‘উয়েফা তো আগেই বলেছিল যে, চ্যাম্পিয়ন্স লিগের চূড়ান্ত পর্ব পর্তুগালে হবে। আর ইউরোপা লিগ জার্মানিতে। এই দুই দেশের যেকোনো এক জায়গায় আমরা খেলতে রাজি আছি।’

তবে ইউরোপিয়ান ফুটবলের সর্বোচ্চ সংস্থা উয়েফা ম্যাচটি বার্সেলোনাতেই করার ব্যাপারে অনড়। এতে রাগে ফুঁসছেন নাপোলি প্রেসিডেন্ট, ‘এত বড় সমস্যায় থাকা একটি শহরে আমাদের কেন খেলতে বাধ্য করা হচ্ছে, আমার তো মাথায় আসছে না।’

চ্যাম্পিয়ন্স লিগে বার্সা-নাপোলির এই ম্যাচটি হওয়ার কথা ছিল মূলত গেল ১৮ মার্চ। কিন্তু করোনাভাইরাস মহামারির থাবায় সবকিছু থমকে যাওয়ায় সূচিতে আসে বদল।

Comments

The Daily Star  | English

Coastal villagers shifted to LPG from Sundarbans firewood

'The gas cylinder has made my life easy. The smoke and the tension of collecting firewood have gone away'

1h ago