আইপিএল ভারতে হচ্ছে না ভেবেই হতাশ স্মিথ

ভারতের বিভিন্ন শহর ঘুরে ঘুরে খেলা, বৈচিত্র্যময় সংস্কৃতির সঙ্গে পরিচিত হওয়া আর উন্মাতাল দর্শকের উত্তাপ পাওয়া। করোনাভাইরাসের কারণে পিছিয়ে যাওয়া এবারের আইপিএলে চেনা আবহ পাবেন না স্টিভেন স্মিথ
steven smith
ফাইল ছবি: এএফপি

ভারতের বিভিন্ন শহর ঘুরে ঘুরে খেলা,  বৈচিত্র্যময় সংস্কৃতির সঙ্গে পরিচিত হওয়া আর উন্মাতাল দর্শকের উত্তাপ পাওয়া। করোনাভাইরাসের কারণে পিছিয়ে যাওয়া এবারের আইপিএলে চেনা আবহ পাবেন না স্টিভেন স্মিথ। ভারতের বদলে সংযুক্ত আরব আমিরাতে বসতে যাচ্ছে  ফ্র্যাঞ্চাইজি ক্রিকেটের সবচেয়ে বড় আসর। আবহের কথা ভেবেই এতে হতাশ রাজস্থান রয়্যালসের অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটার স্টিভেন স্মিথ।

রাজস্থান রয়্যালসের তথ্যচিত্রের প্রিমিয়ার উপলক্ষে শুক্রবার এক ভিডিওবার্তায় এবারের ভিন্নতা নিয়ে প্রতিক্রিয়া জানান স্মিথ,  ‘পেশাদার ক্রিকেটারদের সব পরিবেশের সঙ্গেই মানাতে হয়। দুবাইয়ের কন্ডিশনের সঙ্গে ভারতের মিলও থাকতে পারে, অমিলও থাকতে পারে। আমাদের কাজ মানিয়ে নেওয়া।’

জাতিয় নির্বাচনের কারণে ২০১৪ সালেও মরুদেশে বসেছিল এই আসর। তবে সেবার আইপিএল খেলেননি স্মিথ। অস্ট্রেলিয়ার হয়ে দুবাই, আবুধাবিতে খেললেও স্মিথ সেদেশে আইপিএল খেলবেন প্রথমবার, ‘২০১৪ সালের আইপিএলে অনেকের সে অভিজ্ঞতা হয়েছে। বেশিরভাগের যদিও তা নেই।’

আইপিএলে নিশ্চিতভাবেই এবার নতুন অভিজ্ঞতা দেবে স্মিথদের। তবে তিনি চেনা ভারতের আবহ না থাকাতেই বেশি হতাশ,  ‘আইপিএল এবার ভারতে হচ্ছে না, এটা ভেবেই হতাশ আমি। ভারতে খেলতে আমরা সকলেই পছন্দ করি।’

মহামারির কারণে সেই মার্চ থেকে খেলাধুলায় স্থবিরতা। সম্প্রতি স্থবিরতা কাটিয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে তিন টেস্ট খেলেছে ইংল্যান্ড। কদিন পর পাকিস্তানের বিপক্ষেও নামবে তারা। এরমধ্যে আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজ দিয়ে ওয়ানডেও ফিরিয়েছে ইংলিশরা।  বাকি আর কোন দেশই খেলায় নেই, এমনকি পুরোপুরি অনুশীলনেও নেই বেশিরভাগ। এইজন্য সবারই বাড়তি চ্যালেঞ্জ দেখছেন বিশ্বের অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যান, ‘কমবেশি সবারই একই অবস্থা। কয়েকজন ছাড়া কেউই তো খেলার মধ্যে নেই। এই কারণে এবারের আসরের চ্যালেঞ্জ আলাদা। আমি নিশ্চিত আইপিএলের জন্য সবাই মুখিয়ে আছে।’

স্মিথরা খেলায় না থাকলেও রাজস্থানের তিন গুরুত্বপূর্ণ ক্রিকেটার পুরোদমে আছেন খেলায়। ইংল্যান্ডের হয়ে এরমধ্যেই ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে সিরিজ খেলে ফেলেছেন বেন স্টোকস, জস বাটলার আর জোফরা আর্চার। তারা খেলার মধ্যে থাকায় বাড়তি একটা সুবিধা দেখছেন স্মিথ, ‘স্টোকসের মতো ক্রিকেটার যেকোনো দলের জন্যই সম্পদ। যেকোনো পরিস্থিতি থেকে দলকে জেতাতে পারেও। বাটলার, আর্চারাও দলের জন্য সম্পদ। ওরা খেলার মধ্যে থাকায় আমাদের সুবিধা হলো।’

 

Comments

The Daily Star  | English

Why planting as many trees as possible may not be the solution to the climate crisis

The heatwave currently searing Bangladesh has led to renewed focus on reforestation efforts. On social media, calls to take up tree-planting drives, and even take on the challenge of creating a world record for planting trees are being peddled

1h ago