মেসি নয়, রোনালদোকে বেছে নিলেন লিভারপুল কিংবদন্তি রাশ

কালজয়ী এই স্ট্রাইকার দ্য ডেইলি স্টারের সঙ্গে মেতেছিলেন একান্ত আলাপে।
rush messi ronaldo
ছবি: এএফপি (সম্পাদিত)

লিভারপুল কিংবদন্তি ইয়ান রাশ তার বর্ণাঢ্য ক্যারিয়ারে অলরেডদের হয়ে ৩৪৬ গোল করেছিলেন। কালজয়ী এই স্ট্রাইকার দ্য ডেইলি স্টারের সঙ্গে মেতেছিলেন একান্ত আলাপে; ক্লাবটির ব্যবসায়িক অংশীদার স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংকের একটি আয়োজনে। সাবেক এই ওয়েলস তারকা ফুটবল সম্পর্কিত বিভিন্ন বিষয় নিয়ে নিজের ভাবনার দুয়ার দেন খুলে, করেন স্মৃতিচারণও। সেগুলোর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো তিন দশকের খরা ঘুচিয়ে ইয়ুর্গেন ক্লপের দলের ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের শিরোপা জয়, ফুটবলের বর্তমান বাস্তবতা ও দিয়েগো ম্যারাডোনার সঙ্গে তার হৃদ্যতা।

লিওনেল মেসি নাকি ক্রিস্তিয়ানো রোনালদো? কে সেরা? গেল এক দশকেরও বেশি সময় ধরে চলা এই বিতর্কে শেষ কথা বলে যেন কিছু নেই! গতকাল রবিবারের আড্ডায় রাশ জানান, দুই তারকাই তাকে অভিভূত করেন। তাদের মধ্য থেকে কাকে নিজের পছন্দের সেরা হিসেবে বেছে নেবেন, এই প্রশ্ন করা হলে তিনি কিছু সময়ের জন্য দ্বিধায় পড়ে যান। তবে রাশ খুব বেশিক্ষণের জন্য চিন্তার জগতে হারিয়ে যাননি। যেহেতু তিনি জুভেন্টাসের হয়ে ইতালিতেও খেলেছিলেন, তাই বর্তমানে একই ক্লাবের হয়ে মাঠ মাতানো রোনালদোর প্রতি তার অনুরাগ প্রকাশ পেল।

তিনি উত্তর দেন, ‘আমার পক্ষে (জবাব দেওয়া) খুবই কঠিন! রোনালদো ইতালিতে জুভেন্টাসের সঙ্গে খেলছে। মেসি যদি অন্য কোনো দেশকে বেছে নিত... কারণ সে কেবল বার্সেলোনার হয়েই খেলেছে। রোনালদো তিনটি আলাদা দেশে (ইংল্যান্ড, স্পেন, ইতালি) খেলেছে এবং খেলোয়াড়দের মধ্যে শীর্ষে থেকেছে। তাই আমি রোনালদোকে বেছে নেব।’

নিজের প্রিয় গোলটি সম্পর্কে জানতে চাইলে রাশ বলেন, ‘সেগুলোর প্রত্যেকটি আমার কাছে বিশেষ কিছু; কারণ গোল করাই ছিল আমার কাজ। ১৯৮৬ সালে এভারটনের বিপক্ষে এফএ কাপ ফাইনালেরটি হয়তো (সবচেয়ে প্রিয়)। আমার মতে, তখন এভারটন এবং লিভারপুল ছিল ইউরোপের সেরা দল। এফএ কাপের ফাইনালে এভারটনকে হারানো… ওটাই আমার প্রথম এফএ কাপ ফাইনাল ছিল এবং সেই ম্যাচে দুটি গোল করা ছিল স্বপ্নের মতো। শৈশব থেকেই স্বপ্ন দেখেছি যে, এফএ কাপের ফাইনালে আমি গোল করব। ১৯৮৬ সালে তা সত্য হয়েছিল এবং সেটা আমার জন্য বিশেষ এক অর্জন ছিল।’

ত্রিশ বছর পর অবশেষে চলতি মৌসুমে ইংল্যান্ডের শীর্ষ লিগের শিরোপা ঘরে তুলেছে লিভারপুল। প্রিয় ক্লাবের চ্যাম্পিয়ন হওয়ার স্মরণীয় মুহূর্তটিও উঠে এলো রাশের কথার মাঝে।

৫৮ বছর বয়সী সাবেক এই ফুটবলার আত্মতৃপ্তি নিয়ে জানান, ‘প্রথমেই বলতে হয়, লিগ জেতার অনুভূতিটা অবিশ্বাস্য! লোকেরা বলাবলি করছিল যে, যখন আমরা লিগ জিতলাম, তখন লিভারপুল মাঠে খেলছিল না। কারণ চেলসি ম্যানচেস্টার সিটিকে হারিয়েছিল। তবে আমার মতে, আমরা ৩০ বছর অপেক্ষা করেছি। তাই কোথায় লিগ জিতেছি সেটা কোনো ব্যাপার না। আমি সেসময় বাড়িতে ছিলাম। টিভিতে যখন দেখলাম ম্যানচেস্টার সিটিকে চেলসি হারিয়ে দিয়েছে, তখন আমরা বাড়িতে উদযাপন করেছি। সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয়টি হলো যে, আমরা ত্রিশ বছর ধরে অপেক্ষা করেছি এবং পরবর্তীতে আমরা অ্যানফিল্ডে (নিজেদের মাঠে) খেলার সুযোগ পেয়েছি। (করোনাভাইরাসের ধাক্কা সামলে) খেলা আবার শুরু হওয়ায় আমি সত্যিই খুশি। লিগ শেষ করে প্রিমিয়ার লিগ কর্তৃপক্ষ দারুণ কাজ করেছে। এক পর্যায়ে আমরা ভেবেছিলাম যে, মৌসুমটি শেষ না-ও হতে পারে এবং লিভারপুলের হয়তো শিরোপা অধরাই থেকে যাবে। মৌসুমটি শেষ হওয়ায় তাই খুব ভালো বোধ করেছি।’

(আগামীকাল মঙ্গলবার দ্য ডেইলি স্টারের প্রিন্ট সংস্করণে প্রকাশিত হবে ইয়ান রাশের সম্পূর্ণ সাক্ষাৎকার)

Comments

The Daily Star  | English

C&F staff halt work at 4 container depots

Staffers of clearing and forwarding (C&F) agents stopped working at four leading inland container depots (ICDs) in the port city since the early hours today following a dispute with customs officials, which eventually led to a clash between C&F staff and staff of an ICD

15m ago