চীনে জরুরি ব্যবহারের অনুমোদন পেল সিনোভ্যাকের করোনা ভ্যাকসিন

জরুরি প্রয়োজনে ব্যবহারের জন্য চীনের সিনোভ্যাক বায়োটেকের তৈরি অনুমোদনের অপেক্ষায় থাকা করোনা ভ্যাকসিনের অনুমোদন দিয়েছে দেশটি।
চীনের সিনোভ্যাকের তৈরি সম্ভাব্য করোনা ভ্যাকসিন। ছবি: রয়টার্স

চীনে তৃতীয় ধাপের ট্রায়ালে উত্তীর্ণের অপেক্ষায় থাকা সিনোভ্যাক বায়োটেকের তৈরি করোনা ভ্যাকসিন জরুরি প্রয়োজনে ব্যবহার করা যাবে বলে জানানো হয়েছে।  

সূত্রের বরাত দিয়ে বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানায়, হাসপাতাল কর্মীদের মতো করোনা সংক্রমণের উচ্চ ঝুঁকিতে থাকাদের ভ্যাকসিন সরবরাহের একটি কর্মসূচির অধীনে এটিকে অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।

চীনা ন্যাশনাল ফার্মাসিউটিক্যাল গ্রুপ (সিনোফার্ম) গত রোববার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম উইচ্যাটে এই অনুমোদন পাওয়ার খবর জানায়।  

সিনোফার্মের অধীনে চীন ন্যাশনাল বায়োটেক গ্রুপ (সিএনবিজি) এর দুটি ভ্যাকসিন বর্তমানে তৃতীয় পর্যায়ের ট্রায়ালে আছে। তবে দুটি ভ্যাকসিনের মধ্যে কোনটি জরুরিভিত্তিতে প্রয়োগের জন্য অনুমোদন পেয়েছে তা এখনো জানা যায়নি। 

চীনে গত জুলাই মাস থেকেই উচ্চ-ঝুঁকিতে থাকা মানুষের উপর পরীক্ষামূলক করোনা ভ্যাকসিন দেওয়া হচ্ছে। 

গত সপ্তাহে সিনোফার্মার এক স্বাস্থ্য কর্মকর্তা চীনা রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যমকে জানান, শরৎ ও শীতকালে সম্ভাব্য করোনা প্রকোপ ঠেকাতে জরুরিভিত্তিতে ভ্যাকসিন প্রয়োগ কর্মসূচি সম্প্রসারণের বিষয়ে কর্তৃপক্ষ বিবেচনা করছে। 

শুক্রবার ভ্যাকসিনের নাম উল্লেখ না করে রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম শিনহুয়া  জানায়, জুলাইয়ে জরুরি ব্যবহারের কর্মসূচির জন্য গত জুনে দুটি সম্ভাব্য ভ্যাকসিন অনুমোদন দেওয়া হয়েছিল।

অন্যদিকে চীনের সামরিক বাহিনী ক্যানসিনো বায়োলজিক্সের সম্ভাব্য ভ্যাকসিন ব্যবহারের অনুমোদন দিয়েছে।

এখন পর্যন্ত বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাসের সাতটি ভ্যাকসিন চূড়ান্ত পর্যায়ের ট্রায়ালে রয়েছে। এর মধ্যে চারটিই চীনের তৈরি। 

 

Comments