শীর্ষ খবর

সম্ভাব্য দ্বিতীয় দফা করোনা সংক্রমণের বিরুদ্ধে লড়তে সর্বাত্মক প্রস্তুতির নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আসন্ন শীতকালে কোভিড-১৯-এর সম্ভাব্য পুনরাবৃত্তি রোধে সতর্কতামূলক ব্যবস্থা গ্রহণের অংশ হিসেবে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে মাঠ পর্যায়ে সর্বাত্মক প্রস্তুতি নিতে নির্দেশ দিয়েছেন।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে সচিবালয়ে অনুষ্ঠিত মন্ত্রিপরিষদ সভায় সভাপতিত্ব করেন। ছবি: পিআইডি

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আসন্ন শীতকালে কোভিড-১৯-এর সম্ভাব্য পুনরাবৃত্তি রোধে সতর্কতামূলক ব্যবস্থা গ্রহণের অংশ হিসেবে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে মাঠ পর্যায়ে সর্বাত্মক প্রস্তুতি নিতে নির্দেশ দিয়েছেন।

বিশ্বের অনেক দেশে করোনাভাইরাসের পুনরাবৃত্তির কথা উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী জনগণকে ব্যাপকভাবে মাস্ক পরার আহ্বান জানিয়েছেন এবং দেশে মারাত্মক কোভিড-১৯ এর বিস্তার বন্ধে সকল নির্ধারিত স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলার আহ্বান জানিয়েছেন।

আজ সোমবার মন্ত্রিসভার সাপ্তাহিক বৈঠকের পর প্রধানমন্ত্রীকে উদ্ধৃত করে মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম এক সংবাদ ব্রিফিংয়ে বলেন, ‘কোভিড-১৯ এর সম্ভাব্য দ্বিতীয় দফায় সংক্রমণের বিরুদ্ধে লড়তে মাঠ পর্যায়ে এই মুহূর্তে প্রস্তুতি নিতে হবে’।

প্রধানমন্ত্রীকে উদ্ধৃত করে মন্ত্রিপরিষদ সচিব আরও বলেন, ‘সেকেন্ড ওয়েভ যদি আসে, আমাদের অভিজ্ঞতা কাজে লাগিয়ে যদি সচেতন হই, তাহলে আমাদের জন্য এটা সুবিধাজনক হবে।’ বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী আরো বলেন, ‘দেশে যেহেতু অক্টোবরের শেষ এবং নভেম্বরের প্রথম নাগাদ ঠান্ডার প্রকোপ বাড়তে পারে এবং সে সময় নিউমোনিয়া, জ্বর বা অ্যাজমার একটা প্রবণতা আসে, তাছাড়া কোভিড-১৯ এর যদি একটা সেকেন্ড ওয়েভ আসে তাহলে মাঠ পর্যায়ে এটাকে কীভাবে প্রটেকশন দিতে হবে তার একটা প্রস্তুতি থাকতে হবে।’

মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী সবাইকে ব্যাপকভাবে মাস্ক ব্যবহার করতে এবং শীত আসার সঙ্গে সঙ্গে তাৎক্ষণিক চিকিৎসা গ্রহণের পাশাপাশি ঠান্ডার বিরুদ্ধে সতর্কতামূলক ব্যবস্থা নিতেও নির্দেশ দিয়েছেন।

এর আগে সকালে প্রধানমন্ত্রী গণভবন থেকে এবং মন্ত্রিপরিষদ সদস্যবৃন্দ সচিবালয় থেকে ভার্চুয়াল এই বৈঠকে অংশগ্রহণ করেন।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রীসহ মন্ত্রিপরিষদ সদস্যদের সবাই দেশবাসীর মাস্ক ব্যবহার নিয়ে উদ্বিগ্ন। এটা আরও ব্যাপকভাবে বাড়াতে হবে। কারণ, আমাদের বিশেষজ্ঞরা বলছেন যে, দুই তরফ থেকেই যদি মাস্ক পরা থাকে তাহলে ৯৫ থেকে ৯৮ শতাংশ পর্যন্ত নিরাপদ। আর এক তরফে থাকলে ৬২ থেকে ৬৫ শতাংশ নিরাপত্তা থাকে। সুতরাং মাস্ক পরায় সকলকে উদ্বুদ্ধ করতে হবে।’

তিনি বলেন, ইসলামিক ফাউন্ডেশনকে আমরা বলে দিয়েছি গ্রামেগঞ্জের যত মসজিদ আছে তার মাইক দিয়ে প্রতিদিন অন্তত দুই বার করে যেন ঘোষণা করা হয়-‘মাস্ক পরাটা রাষ্ট্রীয় একটা নির্দেশ এবং কল্যাণকর একটা নির্দেশ এবং এটি মেনে চলাটাও আমাদের একটা কর্তব্য। না হলে সরকার বিধি মোতাবেক ব্যবস্থা গ্রহণে বাধ্য হবে।’

মন্ত্রিপরিষদ সচিব জানান, কোভিড-১৯ এর দ্বিতীয় ওয়েভ নিয়ে আগামীকাল মঙ্গলবার আন্তঃমন্ত্রণালয় সভা আহ্বান করা হয়েছে। সেখানে বিস্তারিত কর্মসূচি গ্রহণ করা হবে।

দ্বিতীয় ওয়েভ আসার আগে সরকার মাস্ক পরা নিশ্চিত করতে অধিক গুরুত্ব দিচ্ছে বলেও মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম জানান ।

তিনি বলেন, ‘আমি সম্প্রতি একটি কাজে একটি মার্কেটে গিয়েছিলাম, আমি সেখানে বেশি লোককে মাস্ক পরতে দেখিনি। পরে আমরা নির্দেশনা দিয়েছি আমরা ক্রসচেক করবো যে কোনো দিন, সে মার্কেটে যদি সবাইকে মাস্ক পরা না দেখি তাহলে উই উইল টেক অ্যাকশন। ’

বিশেষজ্ঞদের উদ্ধৃতি দিয়ে তিনি বলেন, কেউ মাস্ক কিনতে না পারলে বাড়িতে কাপড় দিয়ে সহজেই তা তৈরি করে নেওয়া যায়। মাস্ক যেন সবাই পরে।

স্বাস্থ্যবিধি মানার ক্ষেত্রে অভিযান অব্যাহত আছে জানিয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, এ বিষয়ে মোবাইল কোর্ট চলছে।

Comments

The Daily Star  | English

Response to Iran’s attack: Israel war cabinet weighing options

Israel yesterday faced pressure from allies to show restraint and avoid an escalation of conflict in the Middle East as it considered how to respond to Iran’s weekend missile and drone attack.

5h ago