ম্যাক্সওয়েল কেন এত দামি খেলোয়াড়, বুঝতে পারছেন না শেবাগ

কেবল এই আসরই না। গেল কয়েকটি আসরেও বলার মতো পারফরম্যান্স নেই ম্যাক্সওয়েলের। আইপিএলে ৬ ফিফটির সর্বশেষটি করেছিলেন ২০১৬ সালে। বিস্ফোরক তকমা লাগানো এই ব্যাটসম্যানের পেছনে তাই কাড়ি কাড়ি টাকা খরচ করা উচিত নয় বলে মত পাঞ্জাবের সাবেক ব্যাটসম্যান শেবাগের,

আগ্রাসী ব্যাটিংয়ের সুনামের জন্য আইপিএলে বরাবরই কদর গ্লেন ম্যাক্সওয়েলের। এই অস্ট্রেলিয়ান ব্যাটসম্যানকে দলে নিতে প্রতিবছর নিলামে থাকে বাড়তি কদর। তবে টানা ব্যর্থতায় থাকা ম্যাক্সওয়েলের এত দাম হওয়া উচিত কিনা, সেই প্রশ্ন তুলেছেন ভারতের সাবেক বিস্ফোরক ব্যাটসম্যান বীরেন্দ্রর শেবাগ।

কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবের হয়ে ১০ কোটি রুপির চুক্তিতে খেলছেন ম্যাক্সওয়েল। তবে চলতি আইপিএলে তার ব্যাট যেন হতাশার আরেক নাম।

ছয় ম্যাচে করতে পেরেছেন মাত্র ৪৮ রান।  পাঁচ, চার ও তিন নম্বরে ব্যাট করেছেন তিনি। সানরাইজার্স হায়দরাবাদের বিপক্ষে সর্বশেষ ম্যাচে রান তাড়ায় আরও একবার হতাশ করেন এই ডানহাতি।

এবার ২০২ রান তাড়ায় ৫৮ রানে ৩ উইকেট হারালে সপ্তম ওভারে ক্রিজে আসেন তিনি। কিন্তু তার ইনিংস শেষ হয় ১২ বলে ৭ রান করে। আরেক প্রান্তে নিকোলাস পুরান ৩৭ বলে ৭৭ রানের ইনিংস খেললেও কাজ হয়নি তা। ৬ ম্যাচের পাঁচটাতেই হেরে টেবিলের তলানিতে চলে যায় তারা।

ক্রিকেট ওয়েবসাইট ক্রিকবাজের সঙ্গে আলাপে শেবাগ তাই প্রশ্ন তুলেছেন, কোন প্লাটফর্ম পেলে তবে রান করবেন ম্যাক্সওয়েল,  ‘আমি জানি না আর কেমন প্লাটফর্ম পেলে ম্যাক্সওয়েল জ্বলে উঠবে। পাঞ্জাব দ্রুত দুই উইকেট হারানোর পর আসে আগেভাগে নামল ( সানরাইজার্সের বিপক্ষে)। তখন অনেক ওভার বাকি ছিল, কিন্তু সে পারল না। এর আগে সে ডেথ ওভারের চাপ নিতে পারল না।’

কেবল এই আসরই না। গেল কয়েকটি আসরেও বলার মতো পারফরম্যান্স নেই ম্যাক্সওয়েলের। আইপিএলে ৬ ফিফটির সর্বশেষটি করেছিলেন ২০১৬ সালে। বিস্ফোরক তকমা লাগানো এই ব্যাটসম্যানের পেছনে তাই কাড়ি কাড়ি টাকা খরচ করা উচিত নয়  বলে মত পাঞ্জাবের সাবেক ব্যাটসম্যান শেবাগের, ‘আমি তার মানসিকতা বুঝতে পারছি না কারণ প্রতি বছর একই গল্প। সে নিলামে চড়া দামে বিক্রি হচ্ছে কিন্তু ফল আসছে একইরকম। কেন লোকেরা (ফ্রেঞ্চাইজিরা) তার পেছনে ছুটে, আমি সত্যি বুঝতে পারি না।’

‘পরের নিলামে , আমার মনে হয় তার দাম ১০ কোটি রুপি থেকে কমে ১-২ কোটিতে নেমে আসবে। এটাই হওয়া উচিত। মনে রাখতে হবে সে সর্বশেষ ফিফটি করেছিল ২০১৬ সালের আসরে। এই ম্যাচে তার পুরানকে সঙ্গ দিলেই চলত। সে আরও কিছুক্ষণ থাকলে পুরান হয়ত খেলা জিতিয়ে দিত। কিন্তু দিনশেষে পুরান একাই লড়ল আর পারল না।’

Comments

The Daily Star  | English

Govt primary schools asked to suspend daily assemblies

The government has directed to suspend daily assemblies at all its primary schools across the country until further notice

27m ago