দ. এশিয়ায় পাহাড়ি ঢলের আগাম সতর্ক ব্যবস্থা চালু করল ভারত

দক্ষিণ এশিয়ার দেশ বাংলাদেশ, ভুটান, নেপাল ও শ্রীলঙ্কার জন্য ফ্ল্যাশ ফ্লাড বা পাহাড়ি ঢলের আগাম সতর্ক ব্যবস্থা চালু করেছে ভারত। এখন থেকে এ ধরণের বন্যা বা ঢলের প্রায় ছয় ঘণ্টা আগেই সতর্কতামূলক নির্দেশনা পাওয়া যাবে।
sylhet_flash_flood.jpg
সিলেটের গোয়াইনঘাট উপজেলায় পাহাড়ি ঢলে ডুবে যাওয়া রাস্তা। ছবি: সংগৃহীত

দক্ষিণ এশিয়ার দেশ বাংলাদেশ, ভুটান, নেপাল ও শ্রীলঙ্কার জন্য ফ্ল্যাশ ফ্লাড বা পাহাড়ি ঢলের আগাম সতর্ক ব্যবস্থা চালু করেছে ভারত। এখন থেকে এ ধরণের বন্যা বা ঢলের প্রায় ছয় ঘণ্টা আগেই সতর্কতামূলক নির্দেশনা পাওয়া যাবে।

গতকাল শুক্রবার ভারতের আবহাওয়া অধিদপ্তরের (আইএমডি) মহাপরিচালক ও বিশ্ব আবহাওয়া সংস্থার (ডব্লিউএমও) ভারতের স্থায়ী প্রতিনিধি এম মহাপাত্রের বরাত দিয়ে দ্য ডেইলি স্টারের নয়াদিল্লি সংবাদদাতা এ তথ্য জানিয়েছেন।

এম মহাপাত্র বলেন, ‘দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর মানুষের জীবন ও সম্পদের ক্ষয়ক্ষতি হ্রাস করতে এ ব্যবস্থায় এ ধরণের বন্যা বা ঢলের ছয় ঘণ্টা আগে ও সম্ভাবনার ২৪ ঘণ্টা আগে নির্দেশনা দেওয়া হবে।’

পাহাড়ি ঢল এ অঞ্চলের কিছু নির্দিষ্ট এলাকায় হয় এবং বৃষ্টিপাত ও ঢলের মধ্যে সাধারণত ছয় ঘণ্টারও কম সময় পাওয়া যায়। বিশ্বের বিভিন্ন দেশেরই এ ধরণের বন্যার সতর্কতা ব্যবস্থা নেই।

জীবন ও সম্পদের ওপর ফ্ল্যাশ ফ্লাডের বিপর্যয়মূলক প্রভাবের স্বীকৃতি দিয়ে ১৫তম ডব্লিউএমও কংগ্রেস পাহাড়ি ঢলের নির্দেশনা ব্যবস্থা প্রণয়নে প্রকল্প বাস্তবায়নের অনুমোদন দেয়।

আইএমডি সম্প্রতি বর্ষা মৌসুমে এই সতর্কতা ব্যবস্থার প্রাক-পরিচালনা করে এর কার্যকারিতা পরীক্ষা করেছে। দক্ষিণ এশীয় অঞ্চলে বিভিন্ন দেশের হাইড্রোলজিক্যাল ও আবহাওয়া দপ্তরগুলোর জন্য পাহাড়ি ঢলের বুলেটিন জারি করা হয়।

গাণিতিক দক্ষতা, আবহাওয়ার সংখ্যাতাত্ত্বিক পূর্বাভাস, ভূমি, বাতাস ও শূন্যে বিস্তৃত পর্যবেক্ষণ নেটওয়ার্ক ও আন্তর্জাতিক মানসম্পন্ন আবহাওয়ার পূর্বাভাস ব্যবস্থা বিবেচনায় আইএমডি’র সক্ষমতা অনেক উন্নততর।

রিজিওনাল সেন্টার অব সাউথ এশিয়া ফ্ল্যাশ ফ্লাড গাইডেন্স সিস্টেমের সমন্বয়, উন্নয়ন ও বাস্তবায়নের জন্য ভারতকে দায়িত্ব দিয়েছে ডব্লিউএমও।

গতকাল নয়াদিল্লিতে এই আগাম সতর্ক ব্যবস্থার উদ্বোধন হয়। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে ডব্লিউএমও’র বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধির হাইড্রোলজিক্যাল অ্যাডভাইজার বিদ্যুৎ কুমার সাহা উপস্থিত ছিলেন।

Comments

The Daily Star  | English

Lifts at public hospitals: Horror abounds

Shipon Mia (not his real name) fears for his life throughout the hours he works as a liftman at a building of Sir Salimullah Medical College, commonly known as Mitford hospital, in the capital

2h ago