শীর্ষ খবর

মহাসড়কের পাশে পড়ে থাকা মরদেহটি রাবি শিক্ষার্থীর

সাভারের ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের পাশে শিমুলতলা এলাকা থেকে উদ্ধার হওয়া মরেহেদটির পরিচয় সনাক্ত হয়েছে। তিনি রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের দর্শন বিভাগের সাবেক শিক্ষার্থী মোস্তাফিজ।
রাবির দর্শন বিভাগের সাবেক শিক্ষার্থী মোস্তাফিজ। ছবি: সংগৃহীত

সাভারের ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের পাশে শিমুলতলা এলাকা থেকে উদ্ধার হওয়া মরেহেদটির পরিচয় সনাক্ত হয়েছে। তিনি রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের দর্শন বিভাগের সাবেক শিক্ষার্থী মোস্তাফিজ।

তিনি সাভারের গ্লোরিয়াস স্কুলে হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা হিসেবে চাকরি করতেন। ছিনতাইকারীদের ছুরিকাঘাতে তার মৃত্যু হয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে মনে করছে পুলিশ।

আজ শুক্রবার দুপুরে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের দর্শন বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. একরাম হোসেন দ্য ডেইলি স্টারের রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধিকে মোস্তাফিজের পরিচয় নিশ্চিত করেন।

তিনি জানান, মোস্তাফিজ রাজশাহীর দূর্গাপুর উপজেলার নওয়াপাড়া এলাকার খবির উদ্দিনের ছেলে। তিনি ২০১২-১৩ সেশনের শিক্ষার্থী ছিলেন। ২০১৭ সালে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে মাস্টার্স শেষ করেন তিনি।

সাভার মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) সাইফুল ইসলাম দ্য ডেইলি স্টারকে বলেন, ‘মহাসড়কের পাশে এক যুবকের রক্তাক্ত মরদেহ পড়ে আছে এমন খবরের ভিত্তিতে সকাল আটটার দিকে পুলিশ ঘটনাস্থাল থেকে মরদেহটি উদ্ধার করে। এ সময় ঘটনাস্থলের একটু দূর থেকে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি ছাত্র আইডি কার্ড ও একটি ব্যাংকের এটিএম কার্ড উদ্ধার করা হয়। এর সূত্র ধরে ওই যুবকের পরিচয় সনাক্ত হওয়া গেছে। তিনি রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের দর্শণ বিভাগের সাবেক ছাত্র। সাভারের গ্লোরিয়াস স্কুলে হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা হিসেবে চাকরি করতেন।’

মৃত্যুর কারণ জানতে চাইলে সাইফুল ইসলাম বলেন, ‘মরদেহের বুকে আঘাতের চিহ্ন দেখে ধারণা করা হচ্ছে তাকে ছুরিকাঘাতে হত্যা করা হয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘মোস্তাফিজ গ্রামের বাড়ি রাজশাহী থেকে দূরপাল্লার বাসযোগে ভোরে সাভারে নামেন। ধারণা করা হচ্ছে এ সময় তিনি ছিনতাইকারীদের কবলে পড়েন। আমরা বিষয়টি খতিয়ে দেখছি। আশেপাশের সিসিটিভি ক্যামেরা পর্যালোচনা করা হচ্ছে।’

বিকেল বেলা তিনটার দিকে মোস্তাফিজ হত্যার প্রতিবাদ জানিয়ে দোষীদের দ্রুত সনাক্ত ও গ্রেপ্তারের দাবিতে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে মানববন্ধন করেছেন শিক্ষার্থীরা।

আরও পড়ুন:

সাভারে মহাসড়কের পাশে অজ্ঞাতপরিচয় ‍যুবকের মরদেহ

Comments