শীর্ষ খবর

স্বাস্থ্য বিভাগের জমি দখল করে ওয়ার্ড যুবলীগ নেতার দোকান

ফরিদপুরের বোয়ালমারী উপজেলায় স্বাস্থ্য বিভাগের জমি দখল করে দোকান নির্মাণের অভিযোগ উঠেছে এক যুবলীগ নেতার বিরুদ্ধে। অবৈধ স্থাপনা সরিয়ে নিতে চিঠি দেওয়া হলেও তাতে কোনো কাজ হয়নি।
Faridpur_Land_Grabing_5Nov2.jpg
ছবি: সংগৃহীত

ফরিদপুরের বোয়ালমারী উপজেলায় স্বাস্থ্য বিভাগের জমি দখল করে দোকান নির্মাণের অভিযোগ উঠেছে এক যুবলীগ নেতার বিরুদ্ধে। অবৈধ স্থাপনা সরিয়ে নিতে চিঠি দেওয়া হলেও তাতে কোনো কাজ হয়নি।

সূত্র জানায়, উপজেলার ময়না ইউনিয়নের খরসূতি গ্রামে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রের জমি অবৈধভাবে দখল করে ইউনিয়নের তিন নম্বর ওয়ার্ড যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক এবং ওই ওয়ার্ডের সাবেক ইউপি সদস্য মো. রুহুল মোল্লা দোকান নির্মাণ করেছেন।

গত ২৪ অক্টোবর স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা তরিকুল ইসলাম অবৈধ স্থাপনা সরিয়ে নিতে রুহুল মোল্লাসহ আট জনকে চিঠি দেন।

তাতে বলা হয়, কর্তৃপক্ষের বিনা অনুমতিতে স্বাস্থ্য কেন্দ্রের জমিতে দোকান নির্মাণ করে ব্যবসা পরিচালনা এবং কেউ কেউ নতুন অবৈধ স্থাপনা তৈরির কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন। কর্তৃপক্ষের অনুমতি না নিয়ে সরকারি জায়গায় স্থাপনা তৈরি সম্পূর্ণ বেআইনি। চিঠি পাওয়ার ১০ দিনের মধ্যে সমস্ত অবৈধ স্থাপনা সরিয়ে ফেলার নির্দেশ দেওয়া হলো।

এ বিষয়ে মো. রুহুল মোল্লা বলেন, ‘আরও অনেকেই সরকারি জমিতে দোকান নির্মাণ করে ব্যবসা চালিয়ে আসছেন। কখনো ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি। যে কারণে আমিও দোকান নির্মাণ করছি। ২০০৯ সালেও অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদে নোটিশ দেওয়া হয়েছিল কিন্তু কার্যকর হয়নি। অন্যান্য দখলদাররা স্থাপনা সরিয়ে নিলে আমিও সরিয়ে নেবো।’

স্বাস্থ্য কেন্দ্রের সহকারী কমিউনিটি মেডিকেল অফিসার মাহবুবুর রহমান অভিযোগ করেছেন, চিঠি পাওয়ার পরও রুহুল মোল্লা নতুন করে নির্মাণ কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন। অন্যরাও স্থাপনাগুলো সরিয়ে নেওয়ার উদ্যোগ নেননি।

উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা খালেদুর রহমান দ্য ডেইলি স্টারকে বলেন, ‘অবৈধ স্থাপনা সরিয়ে নিতে বেঁধে দেওয়া সময় গত মঙ্গলবার শেষ হয়েছে। প্রশাসনের সহযোগিতায় শিগগির উচ্ছেদ অভিযান চালানো হবে।’

Comments

The Daily Star  | English

Old, unfit vehicles taking lives

The bus involved in yesterday’s crash that left 14 dead in Faridpur would not have been on the road had the government not given into transport associations’ demand for keeping buses over 20 years old on the road.

24m ago