ভালোবাসা, দোয়া ও সমর্থনের প্রতিদান দিতে চাই: দেশে ফিরে সাকিব

বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার বলেছেন, নিজের সেরা পারফরম্যান্সকেও ছাড়িয়ে যেতে চান তিনি।
shakib
ছবি: ফিরোজ আহমেদ

গত এক বছরে বাংলাদেশ ও যুক্তরাষ্ট্রে বেশ কবার যাওয়া-আসা হয়েছে সাকিব আল হাসানের। কিন্তু এবারের ফেরাটা সম্পূর্ণ আলাদা। নিষেধাজ্ঞা থেকে মুক্তি মেলার পর প্রথমবারের মতো তিনি পা রেখেছেন দেশের মাটিতে। ফিরেই বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার বলেছেন, নিজের সেরা পারফরম্যান্সকে ছাড়িয়ে যেতে চান তিনি, প্রতিদান দিতে চান তার উপর রাখা আস্থার।

বৃহস্পতিবার গভীর রাতে কাতার এয়ারওয়েজের একটি ফ্লাইটে ঢাকার শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে নামেন সাকিব। সেখানে ছিল গণমাধ্যমকর্মীদের সরব উপস্থিতি, দেখা মেলে একদল ভক্তেরও।

গত ২৯ অক্টোবর শেষ হয় সাকিবের নিষেধাজ্ঞা। তখন থেকেই তার ফেরার অপেক্ষায় ছিলেন বাংলাদেশের ক্রিকেট অনুরাগীরা। দেশে পা রেখে লম্বা সময় পর গণমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে তিনি বলেছেন, ‘এখন আমার দায়িত্ব হলো, সবাই যে ভালোবাসা, দোয়া ও সমর্থন দিয়েছে, এসবের প্রতিদান দেওয়া।’

মুক্তি পাওয়ার স্বস্তি কণ্ঠে ঝরিয়ে সাকিব আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন আরও উন্নতি করার, ‘অবশ্যই, এবার যখন দেশে এসেছি, একটা স্বস্তি নিয়ে এসেছি। এর আগে যখন এসেছি, তখন ওরকম স্বস্তিতে ছিলাম না, কিন্তু এখন সে জায়গা থেকে অনেক স্বস্তিতে আছি। চেষ্টা থাকবে, প্রতিদিন যেন আরও বেশি উন্নতি করতে পারি। নিজের জায়গা থেকে এবং নিজের সেরা পারফরম্যান্সটাকে যেন আরও ছাড়িয়ে যেতে পারি।’

shakib
ছবি: ফিরোজ আহমেদ

পাঁচ দলকে নিয়ে চলতি মাসেই একটি টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্ট আয়োজনের পরিকল্পনা রয়েছে বিসিবির। তবে এই টুর্নামেন্টের আগে ক্রিকেটারদের যেতে হবে একটি ফিটনেস পরীক্ষায়। তালিকাতে অনুমিতভাবেই আছেন ৩৩ বছর বয়সী সাকিব। আগামী সোমবার মিরপুর শের-ই-বাংলা স্টেডিয়ামে তার ফিটনেস পরীক্ষা হবে।

ফিটনেস প্রসঙ্গে তিনি জানিয়েছেন, ‘যে অবস্থায় ছিলাম, অবশ্যই সে অবস্থায় নেই। তারপরও মাঝখানে (গত সেপ্টেম্বরে, বিকেএসপিতে) যখন অনুশীলন করছিলাম, ভালো একটা অবস্থানে চলে এসেছিলাম। এক মাসের এই বিরতি না গেলে হয়তো ভালো অবস্থায় থাকতাম। বিরতির কারণে স্বাভাবিকভাবেই বেশ খানিকটা পিছিয়ে গেছি। সময় তাই লাগবে। এই টুর্নামেন্ট শেষ হতে হতে আশা করি আমার পুরো ফিটনেস ফিরে পাব।’

আগামী বছরের জানুয়ারিতে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বাংলাদেশ সফরে আসার সূচি রয়েছে। তিনটি টেস্ট, তিনটি ওয়ানডে ও দুটি টি-টোয়েন্টি খেলার কথা রয়েছে দুদলের। সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে এই সিরিজ দিয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফিরবে দল, ফিরবেন সাকিবও।

ক্যারিবিয়ানদের মোকাবিলার জন্য প্রস্তুত হতে আসন্ন টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্টকে গুরুত্বপূর্ণ মনে করছেন সাকিব, ‘সব খেলাই প্রতিটি খেলোয়াড়ের জন্য গুরুত্বপূর্ণ। আমার প্রস্তুতির জন্য অনেক ভালো হবে, যদি পুরো টুর্নামেন্ট খেলতে পারি ভালোভাবে। যেহেতু সামনে ওয়েস্ট ইন্ডিজের আসার কথা, সেদিক থেকে চিন্তা করলে প্রস্তুতি হিসেবে এই টুর্নামেন্টই একমাত্র জায়গা। এখানে সব খেলোয়াড়ই প্রস্তুতি নিতে পারবে।’

Comments