শীর্ষ খবর

রেল পানি পানের উপযুক্ত, আন্তঃনগর ট্রেনে খাবার সরবরাহের সিদ্ধান্ত

স্বাস্থ্যবিধি মেনে আন্তঃনগর ট্রেনে খাবার সরবরাহ এবং রেল পানি আবারও বিক্রির সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন রেলমন্ত্রী মো. নূরুল ইসলাম সুজন। আজ বৃহস্পতিবার সকালে রেল ভবনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।
রেলমন্ত্রী নূরুল ইসলাম সুজন | ছবি: সংগৃহীত

স্বাস্থ্যবিধি মেনে আন্তঃনগর ট্রেনে খাবার সরবরাহ এবং রেল পানি আবারও বিক্রির সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন রেলমন্ত্রী মো. নূরুল ইসলাম সুজন। আজ বৃহস্পতিবার সকালে রেল ভবনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।

রেলমন্ত্রী বলেন, সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রশ্ন ওঠায় বাংলাদেশ স্ট্যান্ডার্ডস অ্যান্ড টেস্টিং ইনস্টিটিউট (বিএসটিআই), আন্তর্জাতিক উদরাময় গবেষণা কেন্দ্র, বাংলাদেশ (আইসিডিডিআর,বি) ও বুয়েট থেকে রেল পানি পরীক্ষা করানো হয়েছে। তারা সনদ দিয়েছে এ পানি পানের উপযুক্ত। আগামী ১৫ নভেম্বর থেকে রেল অঙ্গনে আবারও রেল পানি বিক্রির ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বাংলাদেশ রেলওয়ে ২০১৮ সালের এপ্রিল মাসে নিজস্ব ব্রান্ডের পানি সরবরাহের প্রশাসনিক অনুমোদন দেয়। এরপর থেকে সর্বোচ্চ দরদাতা প্রতিষ্ঠান টিইসি চুক্তি অনুযায়ী রেলপানি সরবরাহ করে আসছিল।

মান নিয়ে প্রশ্ন ওঠায় গত মাসে রেল কর্তৃপক্ষ সাময়িক সময়ের জন্য এই পানি বিক্রি বন্ধ রাখে। সে সময় রেলের পক্ষ থেকে বলা হয়, রেল অঙ্গনে নিজস্ব ব্রান্ডের বোতলজাত পানি ‘রেল পানি’ প্রবর্তনের নিমিত্তে বাংলাদেশ রেলওয়ে সম্প্রতি উন্মুক্ত দরপত্রের মাধ্যমে শ্যামলী ফুড অ্যান্ড বেভারেজের সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হয়। বিষয়টি নিয়ে কিছু কিছু গণমাধ্যম সঠিক তথ্য যাচাই-বাছাই না করে মনগড়া ও উদ্দেশ্য প্রণোদিত প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে।

এ বিষয়ে রেলপথ মন্ত্রণালয়ের বক্তব্য হলো- বাজারে বহুল প্রচলিত শ্যামলী ড্রিংকিং ওয়াটার, শ্যামলী ফুড অ্যান্ড বেভারেজ কর্তৃক প্রস্তুতকৃত পানি বিএসটিআই এবং বুয়েট কর্তৃক সনদপ্রাপ্ত বোতলজাত পানি। একই ফ্যাক্টরিতে প্রস্তুতকৃত একই পানি রি-ব্র্যান্ডিং করা হয়েছে মাত্র। অর্থাৎ রেলওয়ের জন্য ব্যবহৃত বোতলে শ্যামলী নামের পরিবর্তে কেবল লেবেল পরিবর্তন করে রেল পানি নামকরণ করা হয়েছে।

নূরুল ইসলাম সুজন আরও বলেন, করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব দেখা দেওয়ার পর থেকে সব আন্তঃনগর ট্রেনে খাবার সরবরাহ বন্ধ রাখা হয়েছিল। আগামী ১৫ নভেম্বর থেকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে খাবার সরবরাহের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। ইতোমধ্যে ক্যাটারিং নীতিমালা ২০২০ অনুমোদন দিয়েছেন রাষ্ট্রপতি, সে অনুযায়ী ক্যাটারিং সার্ভিস পরিচালিত হবে। পর্যটন করপোরেশনের সঙ্গে চুক্তির মেয়াদ শেষ হয়ে যাওয়ায় সোনার বাংলা ট্রেনে বিআরসিটিসি’র মাধ্যমে খাবার সরবরাহ করা হবে।

আরও পড়ুন:

‘রেল পানি’ বিক্রি বন্ধ, বিএসটিআই ও বুয়েট পরীক্ষার পর বাজারজাত হবে

Comments

The Daily Star  | English

Free rein for gold smugglers in Jhenaidah

Since he was recruited as a carrier about six months ago, Sohel (real name withheld) transported smuggled golds on his motorbike from Jashore to Jhenaidah’s Maheshpur border at least 27 times.

9h ago