বাসে আগুন দিয়ে বিএনপি উদোর পিন্ডি বুধোর ঘাড়ে চাপাতে চাইছে: প্রধানমন্ত্রী

রাজধানীতে বাসে আগুন দেওয়ার ঘটনায় বিএনপিকে দায়ী করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সংসদে বলেছেন, বিএনপি করোনার এই দুঃসময়কে কাজে লাগিয়ে নিজেদের ফায়দা লুটতে চাইছে। তারা নিজেরা বাসে আগুন দিয়ে উদোর পিণ্ডি বুধোর ঘাড়ে চাপাতে চাইছে। বিএনপি যেন এসব সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড বন্ধ করে।
PM-1.jpg
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ছবি: সংগৃহীত

রাজধানীতে বাসে আগুন দেওয়ার ঘটনায় বিএনপিকে দায়ী করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সংসদে বলেছেন, বিএনপি করোনার এই দুঃসময়কে কাজে লাগিয়ে নিজেদের ফায়দা লুটতে চাইছে। তারা নিজেরা বাসে আগুন দিয়ে উদোর পিণ্ডি বুধোর ঘাড়ে চাপাতে চাইছে। বিএনপি যেন এসব সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড বন্ধ করে।

আজ সোমবার জাতীয় সংসদে অনির্ধারিত আলোচনায় অংশ নিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ কথা বলেন।

নিজের বক্তব্যের সমর্থনে সংসদে তিনি একটি ফোনালাপও শোনান। সেখানে বাস পোড়ানোর ঘটনা নিয়ে এক ব্যক্তি ও এক নারীকে আলাপ করতে শোনা যায়। নারী কণ্ঠে, যুবদলের ছেলেরা বাসে আগুন দিয়েছে বলে শোনা যায়।

এর আগে পয়েন্ট অব অর্ডারে দাঁড়িয়ে সংসদে বাস পোড়ানোর ঘটনা নিয়ে বক্তব্য দেন বিএনপির সংসদ সদস্য হারুনুর রশীদ।

তিনি বলেন, গত বৃহস্পতিবার ভোট হয়েছে উত্তরায়। আর গাড়ি পোড়ানো হয়েছে বিভিন্ন জায়গায়। আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এ জন্য বিএনপিকে দায়ী করেছেন। বিএনপির মহাসচিব বলেছেন যে সরকারের এজেন্টরা এই কাজ করেছে।

বিএনপির নেতা–কর্মীদের নামে ১৫টি মামলা হয়েছে। অনেক ক্ষেত্রে বাদী নিজেই জানে না মামলা করা হয়েছে।

সাংসদ হারুন এ ঘটনায় জড়িতদের খুঁজে বের করতে একটি সংসদীয় কমিটি গঠন করার দাবি জানান।

সংসদ সদস্য হারুনুর রশীদের বক্তব্য শেষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিজেই ফ্লোর নেন। তিনি দাঁড়িয়ে বলেন, প্রযুক্তি এখন অনেক এগিয়ে গেছে। তার কাছে একটি ফোনালাপ আছে। তিনি সেটা শোনাতে চান। পরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিজের মুঠোফোন থেকে সম্প্রতি ফাঁস হওয়া একটি ফোনালাপ চালু করেন। মুঠোফোন মাইকে ধরে তা সংসদে শোনানো হয়।

পরে সংসদ নেতা শেখ হাসিনা বলেন, বিএনপির সংসদ সদস্য হলেও হারুনকে প্রথম সারিতে বসানো হয়েছে। তিনি অনেক কথা বলেন। সরকারি দল তার অনেক কথার জবাবও দেয় না। কিন্তু নিজের দল সম্পর্কে তথ্য জেনে তারপর হারুনের কথা বলা উচিত ছিল।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, কারা গাড়িতে আগুন দিয়েছে সে ছবিও তার কাছে আছে। একটি মিছিল শেষে দেয়াশলাই দিয়ে বাসে আগুন দেওয়া হয়েছে। আরও ফোন রেকর্ড আছে। সিসিটিভি ক্যামেরায় ধরা পড়ছে, কারা আগুন দিচ্ছে।

তিনি বলেন, বিএনপি নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করতে চায়। কারণ, তাদের জনগণের ওপর আস্থা নেই। জনগণেরও তাদের ওপর আস্থা নেই।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, বিএনপি গাড়ি পোড়ানোর জন্য সরকারের এজেন্টদের দায় দিচ্ছে। আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় থেকে কেন গাড়িতে আগুন দিয়ে বদনামের ভাগীদার হবে? জনগণের নিরাপত্তা দেওয়াই সরকারের দায়িত্ব।

শেখ হাসিনা বলেন, সংসদ পবিত্র জায়গা। এখানে এভাবে অসত্য তথ্য দিয়ে মানুষকে বিভ্রান্ত না করাই ভালো। তবে, মানুষ এসব বিশ্বাস করবে না। তিনি বিএনপিকে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড বন্ধ করার এবং নির্বাচন করলে ভালোভাবে নির্বাচন করার আহ্বান জানান।

তিনি বলেন, বিএনপি ক্ষমতা দখল করেছে খুনের মধ্য দিয়ে। এখন একজন ফেরারি আসামিকে দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান করা হয়েছে। তিনি প্রশ্ন রাখেন, বিএনপিতে কি একজনও যোগ্য মানুষ নেই যে একজন পলাতক আসামিকে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান করতে হল? আর বিএনপির চেয়ারপারসন এতিমের অর্থ আত্মসাৎ করে সাজা খাটছে। তারপরও তাকে বাসায় থাকতে দেওয়া হয়েছে।

Comments

The Daily Star  | English

Broadband internet restored in selected areas

Broadband internet connections were restored on a limited scale yesterday after 5 days of complete countrywide blackout amid the violence over quota protest

7h ago