শীর্ষ খবর

চাটখিলে বাল্যবিয়ে ঠেকালেন ইউএনও

নোয়াখালীর চাটখিলে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার হস্তক্ষেপে ৭ম শ্রেণির এক শিক্ষার্থী বাল্যবিয়ে থেকে রক্ষা পেয়েছে। বাল্যবিয়ে দেওয়ার অপরাধে কনের বাবাকে ৫ হাজার টাকা অর্থদণ্ড করা হয়েছে। এদিকে বিয়ে বাড়িতে ম্যাজিস্ট্রেট ও পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে বরযাত্রী আর আসেনি।
স্টার অনলাইন গ্রাফিক্স

নোয়াখালীর চাটখিলে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার হস্তক্ষেপে ৭ম শ্রেণির এক শিক্ষার্থী বাল্যবিয়ে থেকে রক্ষা পেয়েছে। বাল্যবিয়ে দেওয়ার অপরাধে কনের বাবাকে ৫ হাজার টাকা অর্থদণ্ড করা হয়েছে। এদিকে বিয়ে বাড়িতে ম্যাজিস্ট্রেট ও পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে বরযাত্রী আর আসেনি।

আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে উপজেলার মোহাম্মদপুর ইউনিয়নের লক্ষণপুর গ্রামের তফাদার বাড়ীতে এ ঘটনা ঘটে।

ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও চাটখিল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এ এস এম মোসা জানান,  ৭ম শ্রেণির ওই শিক্ষার্থীর সঙ্গে একই উপজেলার বদলকোর্ট ইউনিয়নের রাজ্জাকপুর গ্রামের আবুল বাশারের ছেলে মো. রায়হান (২৬) এর বিয়ের দিন ছিল আজ। উপজেলা প্রশাসন বর যাত্রী আসার আগেই বেলা ১টার দিকে কনের বাড়ীতে পুলিশ নিয়ে উপস্থিত হয়। কনের বাবাকে ৫ হাজার টাকা অর্থদণ্ড এবং তার কাছে থেকে ১৮ বছর পূর্ণ হওয়ার আগে মেয়েকে বিয়ে না দেওয়ার অঙ্গীকারনামা নেওয়া হয়।

ইউএনও বলেন, বাল্যবিয়ে দণ্ডনীয় অপরাধ। কোন অবস্থাতেই বাল্যবিয়ে দেওয়া যাবে না। চাটখিল উপজেলা বাল্যবিয়েমুক্ত করতে উপজেলা প্রশাসন আছে।

Comments