করোনা সনদ জটিলতায় বেনাপোলে আটকে পড়ছেন ভারতফেরত শতাধিক যাত্রী

করোনা নেগেটিভ সার্টিফিকেট জটিলতায় বেনাপোল আন্তর্জাতিক চেকপোস্ট ইমিগ্রেশনে আটকা পড়েছেন ক্যান্সারের রোগীসহ শতাধিক বাংলাদেশি পাসপোর্টধারী যাত্রী।
Benapole.jpg
বেনাপোল আন্তর্জাতিক চেকপোস্ট ইমিগ্রেশনে আটকা পড়েছেন ক্যান্সারের রোগীসহ শতাধিক বাংলাদেশি পাসপোর্টধারী যাত্রী। ছবি: স্টার

করোনা নেগেটিভ সার্টিফিকেট জটিলতায় বেনাপোল আন্তর্জাতিক চেকপোস্ট ইমিগ্রেশনে আটকা পড়েছেন ক্যান্সারের রোগীসহ শতাধিক বাংলাদেশি পাসপোর্টধারী যাত্রী।

ভারত থেকে আসা এসব যাত্রীদের করোনা নেগেটিভ সার্টিফিকেটের বিষয়ে জানা না থাকায়, দেশে ঢুকতে গিয়ে বিপাকে পড়েছেন তারা। সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী করোনা নেগেটিভ সার্টিফিকেটে না থাকায়, আটকে থাকা এসব যাত্রীদের বাংলাদেশে প্রবেশ করতে দিচ্ছে না ইমিগ্রেশন পুলিশ ও মেডিকেল টিমের সদস্যরা।

ইমিগ্রেশন পুলিশ জানায়, বাংলাদেশের পররাষ্ট্র দপ্তর থেকে করোনা প্রতিরোধে বিদেশফেরত সব যাত্রীকে ২৩ নভেম্বর থেকে সাত দিনের মধ্যে নেওয়া করোনা নেগেটিভ সার্টিফিকেটসহ বাংলাদেশে প্রবেশে অনুমতির নির্দেশনা দেওয়া হয়।

গতকাল পর্যন্ত বেনাপোল চেকপোস্ট দিয়ে ভারত থেকে আসা যাত্রীরা সার্টিফিকেট ছাড়া দেশে প্রবেশ করতে পারলেও, শুক্রবার থেকে তারা আর প্রবেশ করতে পারছেন না।

ভুক্তভোগী যাত্রীরা জানান, বাংলাদেশ থেকে করোনা নেগেটিভ সার্টিফিকেট নিয়ে তারা ভারতে যান। কিন্তু, ফেরার সময় যে ভারত থেকেও করোনা নেগেটিভ সার্টিফিকেট নিয়ে আসতে হবে, তা তাদের জানা ছিল না। আজ ভারত থেকে বেনাপোল ইমিগ্রেশনে আসার পর বলা হচ্ছে করোনা নেগেটিভ সার্টিফিকেট লাগবে। অথচ তাদের সঙ্গে ক্যান্সারে আক্রান্তসহ বিভিন্ন জটিল রোগীও আটকে পড়েছেন।

বেনাপোল চেকপোস্ট ইমিগ্রেশনে কর্মরত স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. বিচিত্র মল্লিক জানান, সরকারি নির্দেশনার বাইরে তাদের কিছুই করার নেই। বর্তমানে অর্ধ শতাধিক বাংলাদেশি যাত্রী আটকা পড়েছেন চেকপোস্ট এলাকায়। করোনা নেগেটিভ সার্টিফিকেট ছাড়া তারা দেশে প্রবেশ করতে পারবেন না।

বেনাপোল চেকপোস্টে পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ইমিগ্রেশন) মহসিন আলী বলেন, ‘সাত দিনের সময় দিয়ে নির্দেশনা দেওয়া হয় সরকারিভাবে। এখন যারা ভারতে ছিলেন, তারা যদি এ খবর না জানেন, তাতে আমাদের কিছুই করার নেই।’

তবে, আজ যেসব বাংলাদেশি প্রবেশ করেছেন, তাদের ব্যাপারে উপর মহল থেকে বিশেষ নির্দেশনা আসতে পারে বলে জানান তিনি।

এ বিষয়ে সরকারের উপর মহলের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন আটকে পড়া বাংলাদেশি পাসপোর্টধারী যাত্রীরা।

Comments

The Daily Star  | English

Why was Abu Sayed shot dead in cold blood?

Why was Abu Sayed of Rangpur's Begum Rokeya University shot down by police? He was standing alone, totally unarmed with arms stretched out, holding no weapons but a stick

1h ago