পেনসিলভেনিয়ার আপিল আদালতেও ট্রাম্পের পরাজয়

যুক্তরাষ্ট্রের পেনসিলভেনিয়া অঙ্গরাজ্যে ভোটের ফল বাতিল চেয়ে ডোনাল্ড ট্রাম্পের দায়ের করা মামলা খারিজ করে দিয়েছেন ফেডারেল আপিল আদালত।
Donald Trump.jpg
ডোনাল্ড ট্রাম্প। ফাইল ফটো রয়টার্স

যুক্তরাষ্ট্রের পেনসিলভেনিয়া অঙ্গরাজ্যে ভোটের ফল বাতিল চেয়ে ডোনাল্ড ট্রাম্পের দায়ের করা মামলা খারিজ করে দিয়েছেন ফেডারেল আপিল আদালত।

গতকাল রায়ের ঘোষণায় বলা হয়েছে, ‘ভোটাররা প্রেসিডেন্ট নির্বাচন করবে, আদালত নয়। নির্বাচনী সিদ্ধান্ত হয় ব্যালটে, আদালতের রায়ে নয়।’

রয়টার্স জানায়, অভিযোগের প্রমাণ উপস্থাপনে ব্যর্থতার কথা জানিয়ে ওই মামলা খারিজ করা হয়েছে।

তিন বিচারকের প্যানেলের পক্ষে বিচারক স্টিফেনোস বিবাস বলেন, ‘অবাধ, নিরপেক্ষ নির্বাচন আমাদের গণতন্ত্রের প্রাণ। এক্ষেত্রে অন্যায়ের অভিযোগ বেশ গুরুতর। তবে কোনো নির্বাচনে অন্যায় হয়েছে দাবি করলেই হবে না। এজন্য সুনির্দিষ্ট অভিযোগ ও প্রমাণ প্রয়োজন, যা এই মামলায় নেই।’

এদিকে, পরিকল্পনা অনুযায়ী পেনসিলভেনিয়ার ভোট বাতিল চেয়ে সুপ্রিম কোর্টে আপিল করার কথা জানিয়েছেন ট্রাম্পের আইনজীবী জেনা এলিস।

এক টুইটে তিনি বলেন, ‘পেনসিলভেনিয়া অঙ্গরাজ্যের বিচার বিভাগ রাজনৈতিক কারণে রাজ্যের ব্যাপক ভোট জালিয়াতি আড়াল করছে।’

পেনসিলভেনিয়া ছাড়াও মিশিগান, নেভাদা, অ্যারিজোনা ও জর্জিয়া অঙ্গরাজ্যেও ডেমোক্রেট প্রার্থী জো বাইডেনকে জয়ী হিসেবে ঘোষণার পর, নির্বাচনে অনিয়ম নিয়ে মামলা করেছে ট্রাম্পের প্রচারণা শিবির। এ সবগুলো মামলাই আদালতে খারিজ হয়েছে।

এই সপ্তাহে পেনসিলভেনিয়ায় প্রায় ৮০ হাজার বেশি ভোটে বাইডেনকে জয়ী হিসেবে ফল ঘোষণা করা হয়েছে। এই রাজ্যের নির্বাচনী ফলও সার্টিফাই করা হয়ে গেছে। আইন অনুযায়ী পেনসিলভেনিয়ায় যে প্রার্থী পপুলার ভোটে বিজয়ী হবেন, তিনি রাজ্যের ২০টি ইলেকটোরাল ভোটের সবগুলোই পাবেন।

মার্কিন গণমাধ্যমের পূর্বাভাস অনুযায়ী, জো বাইডেন পেনসিলভেনিয়ার ২০টিসহ সবমিলিয়ে ৩০৬টি ইলেকটোরাল ভোট পেতে যাচ্ছেন। অন্যদিকে, ট্রাম্প পাবেন ২৩২টি ভোট।

পেনসিলভেনিয়ার নির্বাচনী ফল পাল্টে গেলেও প্রেসিডেন্ট হিসেবে থাকতে হলে ট্রাম্পকে কমপক্ষে আরও দুটি রাজ্যের ফল পাল্টাতে হবে।

শুরু থেকেই নির্বাচনে ব্যাপক জালিয়াতির দাবি করলেও এখন পর্যন্ত ট্রাম্পের কোনো অভিযোগের সত্যতা মেলেনি।

এ সপ্তাহে ইলেকটোরাল কলেজের ভোটে আনুষ্ঠানিকভাবে যুক্তরাষ্ট্রের পরবর্তী প্রেসিডেন্ট হিসেবে জো বাইডেন নিশ্চিত হলে হোয়াইট হাউস ছেড়ে দেবেন বলে জানিয়েছেন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

তিনি আরও বলেন, ‘হার মেনে নেওয়া সত্যিই খুব কঠিন হবে, কারণ আমরা জানি সেখানে (নির্বাচন) বড় ধরনের জালিয়াতি হয়েছে।’

Comments