ভ্যাকসিন: ট্রাম্পের ‘আমেরিকা ফার্স্ট’ নীতি

যুক্তরাষ্ট্রে করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন নিশ্চিত করতে একটি নির্বাহী আদেশে সই করতে যাচ্ছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।
ছবি: সংগৃহীত

যুক্তরাষ্ট্রে করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন নিশ্চিত করতে একটি নির্বাহী আদেশে সই করতে যাচ্ছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

ট্রাম্প প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের বরাত দিয়ে ফক্স নিউজ জানায়, আজ মঙ্গলবার হোয়াইট হাউসে করোনা ভ্যাকসিন নিয়ে একটি সম্মেলনে ‘আমেরিকা ফার্স্ট’ নীতি নতুনভাবে উপস্থাপন করবেন ট্রাম্প।

কর্মকর্তারা জানান, বিশ্বব্যাপী ভ্যাকসিন বিতরণ শুরুর আগে যেন আমেরিকানদের কাছে এই ভ্যাকসিন পৌঁছায়, সেটি নিশ্চিত করতেই আজ ট্রাম্প একটি আদেশে সই করবেন।

আগামী বৃহস্পতিবার ফাইজার-বায়োএনটেকের তৈরি করোনাভাইরাস ভ্যাকসিনের জরুরি অনুমোদনের বিষয়ে নিয়ে বৈঠকে বসবে যুক্তরাষ্ট্রের খাদ্য ও ওষুধ প্রশাসন (এফডিএ)। এর আগেই প্রেসিডেন্টের পক্ষ থেকে ওই নির্বাহী আদেশের খবর পাওয়া গেল।

এ ছাড়াও, আগামী ১৭ ডিসেম্বর মডার্নার ভ্যাকসিন নিয়ে আলোচনার জন্যও এফডিএ বৈঠকে বসতে পারে বলে জানা গেছে।

হোয়াইট হাউস করোনাভাইরাস টাস্ক ফোর্সের একটি সূত্র গত সপ্তাহে ফক্স নিউজকে জানায়, শুক্রবার ফাইজার-বায়োএনটেকের ভ্যাকসিনটি যুক্তরাষ্ট্রে অনুমোদন পেতে পারে।

গত সপ্তাহে এফডিএ কমিশনার স্টিফেন হ্যান জানান, তারা অনুমোদনের বিষয়ে ‘খুব আশাবাদী’।

গতকাল হোয়াইট হাউসের এক কর্মকর্তা ফক্স নিউজকে বলেন, ‘অগ্রাধিকার হবে বিশ্বব্যাপী বিতরণ শুরুর আগে যেন আমেরিকার জনগণের কাছে এই ভ্যাকসিন পৌঁছায়, সেটি নিশ্চিত করা।’

বসন্তের শেষের দিকে বা গ্রীষ্মের প্রথম দিকে আন্তর্জাতিক সহায়তার জন্য অন্য দেশগুলোতে ভ্যাকসিন সরবরাহ শুরু হতে পারে বলে জানান তিনি।

‘আমেরিকা ফার্স্ট’ নীতির বিষয়ে তিনি বলেন, ‘যারা ভ্যাকসিন দিতে চান তারা ভ্যাকসিন পাওয়ার পর আন্তর্জাতিক সহায়তা শুরু হবে। প্রেসিডেন্টের নির্বাহী আদেশটি স্পষ্ট। এটি নির্দেশ দিচ্ছে যে, আমরা আমাদের অংশীদার ও সহযোগীদের সঙ্গে কাজ করার আগে আমেরিকানদেরকে অগ্রাধিকার দেবো।’

ভ্যাকসিন প্রসঙ্গে অন্য এক কর্মকর্তা ফক্স নিউজকে বলেন, ‘আমরা খুব শিগগিরই আমেরিকার জনগণের কাছে অত্যন্ত কার্যকর করোনা ভ্যাকসিন নিয়ে আসব। এই ভ্যাকসিন আমাদের নাগরিকদের স্বাস্থ্য ও সুরক্ষা, অর্থনৈতিক সমৃদ্ধি ও গোটা জাতির সুরক্ষার জন্য গুরুত্বপূর্ণ।’

বিশ্বে করোনায় সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত দেশ যুক্তরাষ্ট্র। জনস হপকিনস বিশ্ববিদ্যালয়ের তথ্য অনুযায়ী, এ পর্যন্ত যুক্তরাষ্ট্রে করোনায় আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা প্রায় দেড় কোটি। দেশটিতে করোনায় মারা গেছেন দুই লাখ ৮৩ হাজার ৬৫০ জন।

Comments

The Daily Star  | English

Hefty power bill to weigh on consumers

The government has decided to increase electricity prices by Tk 0.34 and Tk 0.70 a unit from March, which according to experts will have a domino effect on the prices of essentials ahead of Ramadan.

4h ago