কোল্ড চেইন বিভ্রাটে জার্মানিতে কয়েকটি অঞ্চলে ভ্যাকসিন দিতে অস্বীকৃতি

ভ্যাকসিন প্রয়োজনীয় তাপমাত্রায় সংরক্ষণ করা হচ্ছে না এমন সন্দেহে ফাইজার ও বায়োএনটেকের তৈরি করোনা ভ্যাকসিন ব্যবহারে অস্বীকৃতি জানিয়েছে জার্মানির কয়েকটি অঞ্চলের স্থানীয় কর্তৃপক্ষ।

ভ্যাকসিন প্রয়োজনীয় তাপমাত্রায় সংরক্ষণ করা হচ্ছে না এমন সন্দেহে ফাইজার ও বায়োএনটেকের তৈরি করোনা ভ্যাকসিন ব্যবহারে অস্বীকৃতি জানিয়েছে জার্মানির কয়েকটি অঞ্চলের স্থানীয় কর্তৃপক্ষ।

লিশেনফেলস ডিস্ট্রিক্টের অ্যাডমিনিস্ট্রেটর রয়টার্স টিভিকে বলেন, ‘ভ্যাকসিন সংরক্ষণের কোল্ড চেইন সবসময় বজায় রাখা যাচ্ছে কিনা, তা নিয়ে সন্দেহ আছে।’

‘বায়োএনটেক বলেছে ভ্যাকসিন সম্ভবত ঠিক আছে। কিন্তু “সম্ভবত ঠিক থাকা” ভ্যাকসিন প্রয়োগের জন্য যথেষ্ট নয়,’ যোগ করেন তিনি।

ভ্যাকসিন কার্যক্রমের ওপর জনগণের আস্থা যেন নষ্ট না হয়, সে জন্য ভ্যাকসিন ব্যবহার করা হচ্ছে না বলে জানান তিনি।

রোববার লিশেনফেলসের এক মুখপাত্র জানান, বাভারিয়া অঞ্চলের লিশেনফেলস, কোবর্গ, ক্রোনাচ, কুলম্বাখ, হফ, বায়রুথ ও ভুনসিদেলে ব্যবহারের জন্য বরাদ্দ করা ভ্যাকসিন সঠিক তাপমাত্রায় সংরক্ষণ না করার কারণে নষ্ট হচ্ছে।

লিশেনফেলসের মুখপাত্র জানান, ভ্যাকসিন পরিবহনের বাক্সের গ্রহণযোগ্য সর্বোচ্চ তাপমাত্রা আট ডিগ্রি সেলসিয়াস হলেও, বাক্সের তাপমাত্রা ১৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস পর্যন্ত দেখতে পেয়েছেন স্বাস্থ্যকর্মীরা। এ থেকে উত্তরণে উপায় সম্পর্কে এখনও বায়এনটেকের কাছ থেকে পরামর্শ পাওয়া যায়নি বলে জানান তিনি।

হফের ডিস্ট্রিক্ট অ্যাডমিনিস্ট্রেটর অলিভার বায়ার বলেন, ‘টিকা কে আগে দেবে কিংবা কে বেশি দিতে পারছে, তার আগে দেখতে হবে জনগণের সুরক্ষা।’

Comments