শীর্ষ খবর

লালমনিরহাটে এখনো উদ্ধার হয়নি অপহৃত দুই স্কুলছাত্রী

লালমনিরহাটের তিস্তা ও ধরলাপাড়ে অপহৃত দুই স্কুল শিক্ষার্থী উদ্ধার হয়নি এখনো। গ্রেপ্তারও করা হয়নি অপহরণকারীদের। আর অপহৃত স্কুল শিক্ষার্থীদের উদ্ধার ও অপহরণকারীদের গ্রেপ্তারে পুলিশ যথাযথ ভূমিকা রাখছে না বলেই অভিযোগ করছে অপহৃত স্কুলছাত্রীদের পরিবার। পুলিশ শুধু প্রতিশ্রুতি ছাড়া এই দুটি ঘটনায় কোনো ফলপ্রসূ ব্যবস্থা গ্রহণ করছে না বলে তারা জানিয়েছেন।
স্টার অনলাইন গ্রাফিক্স

লালমনিরহাটের তিস্তা ও ধরলাপাড়ে অপহৃত দুই স্কুল শিক্ষার্থী উদ্ধার হয়নি এখনো। গ্রেপ্তারও করা হয়নি অপহরণকারীদের। আর অপহৃত স্কুল শিক্ষার্থীদের উদ্ধার ও অপহরণকারীদের গ্রেপ্তারে পুলিশ যথাযথ ভূমিকা রাখছে না বলেই অভিযোগ করছে অপহৃত স্কুলছাত্রীদের পরিবার। পুলিশ শুধু প্রতিশ্রুতি ছাড়া এই দুটি ঘটনায় কোনো ফলপ্রসূ ব্যবস্থা গ্রহণ করছে না বলে তারা জানিয়েছেন।

গত ১৩ নভেম্বর লালমনিরহাট সদর উপজেলার খুনিয়াগাছ ইউনিয়নের তিস্তা নদীর তীরবর্তী কালমাটি করিম বাজার এলাকা থেকে অষ্টম শ্রেণির ছাত্রীকে অপহরণ করে নিয়ে যায় মনোয়ারুল ইসলাম (২৬) ও তার লোকজন। এ ঘটনায় স্কুলছাত্রীর বাবা বাদী হয়ে লালমনিরহাট সদর থানায় তিনজনের বিরুদ্ধে একটি অপহরণ মামলা করেন ১৮ নভেম্বর। অপহৃত স্কুলছাত্রী স্থানীয় কালমাটি উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী।

ওই স্কুলছাত্রীর বাবার অভিযোগ, তাদের মেয়েকে উদ্ধার করতে পুলিশ কোনো ভূমিকা রাখছে না। যোগাযোগ করলে শুধু উদ্ধারের প্রতিশ্রুতি দিয়ে আসছে। কিন্তু ফলাফল আজও আসেনি। অপহরণকারী মনোয়ারুল তার বাবা ও বোনের সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ রাখছে বলে তিনি জানান।

স্কুলছাত্রীর মা অভিযোগ করে বলেন, ‘পুলিশ চেষ্টা করলে আমাদের মেয়েকে উদ্ধার করতে পারে। কিন্তু, পুলিশ রহস্যজনক কারণে সেটি করছে না। উদ্ধার ও অপহরণকারীকে গ্রেপ্তারের ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে, এমনটি বলে শুধু সময় ক্ষেপণ করা হচ্ছে।’

অপরদিকে গত ১৬ ডিসেম্বর লালমনিরহাট সদর উপজেলার কুলাঘাট ইউনিয়নের ধরলা নদীর তীরবর্তী বনগ্রাম এলাকায় ষষ্ঠ শ্রেণির স্কুলছাত্রীকে অপহরণ করেছেন শাকিল আহমেদ (১৮) ও তার লোকজন। এ ঘটনায় স্কুলছাত্রীর বাবা বাদী হয়ে ২১ ডিসেম্বর লালমনিরহাট সদর থানায় পাঁচ জনের বিরুদ্ধে একটি অপহরণ মামলা করেন। অপহৃত স্কুলছাত্রী স্থানীয় ভাটিবাড়ি উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী।

অপহৃত স্কুলছাত্রীর বাবার অভিযোগ, তাদের মেয়েকে উদ্ধারে পুলিশ কোনো ব্যবস্থাই গ্রহণ করছে না। শুধু মামলাটি রেকর্ড করে উদ্ধার করা হবে এমন প্রতিশ্রুতি দিয়ে আসছে পুলিশ। তাদের মেয়েকে অক্ষত উদ্ধার ও অপহরণকারীসহ তার সহযোগীদের গ্রেপ্তার নিয়ে চরম দুশ্চিন্তায় রয়েছেন বলে তিনি জানান।

স্কুলছাত্রীর মা অভিযোগ করে বলেন, ‘ভগবান ছাড়া আমাদের উদ্ধারে আর কেউ নেই। কারণ পুলিশ রহস্যজনক কারণে কোনো ভূমিকাই রাখছে না। আমাদের মেয়েকে অপহরণ করে অপহরণকারীর লোকজন উল্টো আমাদেরকে হুমকি দিয়ে আসছে।’

লালমনিরহাট সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহা আলম দ্য ডেইলি স্টারকে বলেন, ‘অপহৃত স্কুলছাত্রীদের উদ্ধার ও অপহরণকারীদের গ্রেপ্তারে পুলিশ সর্বাত্মক চেষ্টা চালাচ্ছে। পুলিশ আইটির সহযোগিতা নিয়ে বিভিন্ন স্থানে অভিযানও চালাচ্ছে।’

লালমনিরহাটের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সার্কেল-এ) মারুফা জামাল দ্য ডেইলি স্টারকে বলেন, ‘পুলিশ এ দুটি ঘটনায় অনেক তথ্য পেয়েছে এবং শিগগিরই অপহৃত স্কুলছাত্রীদের উদ্ধারসহ অপহরণকারীদের গ্রেপ্তার করতে পারবে।’

Comments

The Daily Star  | English

Economy with deep scars limps along

Business and industrial activities resumed yesterday amid a semblance of normalcy after a spasm of violence, internet outage and a curfew that left deep wounds in almost all corners of the economy.

6h ago