হবিগঞ্জে অতিথি পাখি বিক্রির দায়ে একজনের কারাদণ্ড

হবিগঞ্জের বাহুবল উপজেলায় অতিথি পাখি বিক্রির দায়ে একজনকে এক মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দিয়ে কারাগারে পাঠিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।
Hobiganj.jpg
ইউএনও স্নিগ্ধা তালুকদার পাখিগুলো অবমুক্ত করেন। ছবি: সংগৃহীত

হবিগঞ্জের বাহুবল উপজেলায় অতিথি পাখি বিক্রির দায়ে একজনকে এক মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দিয়ে কারাগারে পাঠিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।

গতকাল বিকালে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) স্নিগ্ধা তালুকদার পরিচালিত ভ্রাম্যমাণ আদালত এই আদেশ দেন।

দণ্ডপ্রাপ্ত রনি আহমেদ (২৮) উপজেলার বালিদ্বারা গ্রামের মাসুক মিয়ার ছেলে।

হবিগঞ্জ বন্যপ্রাণী ব্যবস্থাপনা ও প্রকৃতি সংরক্ষণ অধিদপ্তরের কর্মকর্তা তোফায়েল আহমেদ চৌধুরী আজ সোমবার জানান, শিকারির কাছ থেকে নামমাত্র মূল্যে পাঁচটি ‘গাঙ ঠেঠা’ (গ্রে-হেডেড ল্যাপউইং) পাখি কিনে বেশি দামে বিক্রির জন্য সৈয়দপুর বাজারে এসেছিলেন রনি। খোঁজ পেয়ে তাকে আটক করা হয়। পরে ইউএনও পাখিগুলো অবমুক্ত করেন।

তিনি জানান, শীত মৌসুমে সুদূর সাইবেরিয়া থেকে প্রায় সাত হাজার কিলোমিটার পথ পারি দিয়ে এই পাখিগুলো বাংলাদেশে এসেছে।

বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন হবিগঞ্জের সাধারণ সম্পাদক তোফাজ্জল সোহেল বলেন, ‘বন্যপ্রাণী সংরক্ষণ আইন-২০১২ অনুযায়ী রনি আহমেদকে এক মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হয়। তবে ফাঁদ পেতে বিভিন্ন স্থানে এখনও অবাধে পাখি নিধন চলছে।’

Comments

The Daily Star  | English