ভ্যাকসিনের নিবন্ধন শুরু হতে পারে ২১ জানুয়ারি

দেশে শিগগির শুরু হবে করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন প্রয়োগের কার্যক্রম। সে লক্ষ্যে অনলাইন নিবন্ধনের জন্য আগামী ২১ জানুয়ারি থেকে একটি অ্যাপ্লিকেশন চালু করা হবে।

দেশে শিগগির শুরু হবে করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন প্রয়োগের কার্যক্রম। সে লক্ষ্যে অনলাইন নিবন্ধনের জন্য আগামী ২১ জানুয়ারি থেকে একটি অ্যাপ্লিকেশন চালু করা হবে।

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ, ঢাকা জেলা প্রশাসন কার্যালয় এবং স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তৈরি ‘সুরক্ষা’ নামের একটি মোবাইল ও ওয়েবভিত্তিক অ্যাপের মাধ্যমে ভ্যাকসিন নিতে আগ্রহীরা নিবন্ধন করতে পারবেন।

স্বাস্থ্য কর্মকর্তারা জানান, প্রথম পর্যায়ে তারা ২৫ লাখ মানুষকে ভ্যাকসিন দেওয়ার পরিকল্পনা করছেন। এর জন্য সুরক্ষা অ্যাপের মাধ্যমে নিবন্ধন করতে হবে।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক এবিএম খুরশিদ আলম দ্য ডেইলি স্টারকে বলেন, ‘আমরা ২১ জানুয়ারির মধ্যে অ্যাপ্লিকেশনটি চালু করার জন্য সর্বাত্মক চেষ্টা করছি। সোমবার একটি সংবাদ সম্মেলন করে এই অ্যাপের বিস্তারিত জানানো হবে।’

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের আজ বিকাল ৪টায় একটি সংবাদ সম্মেলন করে ভ্যাকসিন বিতরণ পরিকল্পনা এবং সুরক্ষা অ্যাপের বিস্তারিত প্রকাশ করার কথা রয়েছে।

যোগাযোগ করা হলে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক অধ্যাপক মিরাজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা জানান, অ্যাপটির কাজ শেষ পর্যায়ে রয়েছে।

তিনি বলেন, ‘আমরা পর্যায়ক্রমে নিবন্ধনের সুযোগ দিতে পারি। একসঙ্গে অনেক বেশি মানুষ নিবন্ধন করতে গেলে অ্যাপে অনেক বেশি চাপ পড়তে পারে।’

তিনি আরও বলেন, ‘তবে পর্যায়ক্রমে নিবন্ধনের জন্য এটি উন্মুক্ত রাখা হবে কি না, সে সিদ্ধান্ত পরে নেওয়া হবে।’

অ্যাপটি কীভাবে কাজ করবে?

আইসিটি বিভাগ সূত্রে জানা যায়, নিবন্ধনের জন্য অ্যাপটি ডাউনলোড করতে হবে অথবা ওয়েবসাইটে ভিজিট করতে হবে। সেখানে থাকা প্রায় ১৯টি পেশার মধ্যে নিজের বিভাগ বেছে নিতে হবে।

এরপর, ব্যবহারকারীকে এনআইডি নম্বর এবং জন্ম তারিখ দিতে হবে।

অ্যাপটি স্বয়ংক্রিয়ভাবে এনআইডি ডেটাবেজ থেকে তথ্য সংগ্রহ করে বাকি তথ্য পূরণ করে নেবে।

নিবন্ধনকারীকে এই অ্যাপে ডায়াবেটিস, ক্যানসার, উচ্চ রক্তচাপ বা অন্যান্য রোগ আছে কি না, সে তথ্য দিতে হবে।

সেই সঙ্গে বর্তমান ঠিকানা এবং মোবাইল নম্বর দিলে নিবন্ধনকারী মোবাইলে একটি ওটিপি (ওয়ান টাইম পাসওয়ার্ড) পাবেন। ওটিপি দেওয়ার পর একটি ভ্যাকসিন কার্ড তৈরি হবে। ভ্যাকসিনের প্রথম ও দ্বিতীয় ডোজ কোথায় এবং কখন দেওয়া হবে তা কার্ডে উল্লেখ থাকবে।

ভ্যাকসিনের দুটি ডোজ নেওয়া হয়ে গেলে কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন দেওয়া হয়েছে মর্মে একটি প্রত্যয়নপত্র দেওয়া হবে।

কেউ ভ্যাকসিন পেয়েছেন কি না, তা যাচাই করতে ইমিগ্রেশন এবং বিভিন্ন দূতাবাস এই ওয়েব পোর্টালের সাহায্য নিতে পারবে।

Comments

The Daily Star  | English

Budget For Fy25: 53pc rise in allocation for debt servicing

The government’s allocation to repay foreign debts may reach Tk 57,000 crore in the next budget, a 53 percent rise from the current year, putting further pressure on the country’s dwindling foreign currency reserves.

7h ago