ভেড়ামারা পৌর নির্বাচন

ম্যাজিস্ট্রেটের সঙ্গে দুর্ব্যবহারের অভিযোগ: কুষ্টিয়ার এসপিকে হাইকোর্টে তলব

পৌর নির্বাচন চলাকালে জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো. মহসিন হাসানের সঙ্গে দুর্ব্যবহারের অভিযোগে কুষ্টিয়ার পুলিশ সুপার এসএম তানভীর আরাফাতকে তলব করেছেন হাইকোর্ট বিভাগ। আজ বুধবার বিচারপতি মামুন রহমান ও বিচারপতি খিজির হায়াতের হাইকোর্ট বেঞ্চ আগামী ২৫ জানুয়ারির মধ্যে আদালতে হাজির হয়ে অভিযোগের বিষয়ে তার ব্যাখ্যা দিতে সমন দেন।
দেশটাকে তো জাহান্নাম বানিয়ে ফেলেছেন
স্টার ফাইল ফটো

পৌর নির্বাচন চলাকালে জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো. মহসিন হাসানের সঙ্গে দুর্ব্যবহারের অভিযোগে কুষ্টিয়ার পুলিশ সুপার এসএম তানভীর আরাফাতকে তলব করেছেন হাইকোর্ট বিভাগ। আজ বুধবার বিচারপতি মামুন রহমান ও বিচারপতি খিজির হায়াতের হাইকোর্ট বেঞ্চ আগামী ২৫ জানুয়ারির মধ্যে আদালতে হাজির হয়ে অভিযোগের বিষয়ে তার ব্যাখ্যা দিতে সমন দেন।

একটি জাতীয় দৈনিক পত্রিকায় প্রকাশিত সংবাদ দেখে স্বপ্রণোদিত আদালত সমন দেন। ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল তাহেরুল ইসলাম দ্য ডেইলি স্টারকে এ তথ্য জানিয়েছেন।

এ ঘটনায় মো. মহসিন হাসান পুলিশ সুপারের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নিতে নির্বাচন কমিশনে অভিযোগপত্র জমা দিয়েছেন। এর অনুলিপি সুপ্রিমকোর্ট, আইন মন্ত্রণালয়, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ও পুলিশের মহাপরিদর্শকের দপ্তরে পাঠানো হয়েছে।

গতকাল রাতে সুপ্রিম কোর্টের রেজিস্ট্রার জেনারেল মো. আলী আকবর আবেদনের অনুলিপি পেয়েছেন বলে দ্য ডেইলি স্টারকে নিশ্চিত করেছেন।

অভিযোগপত্রে লেখা হয়, গত ১৬ জানুয়ারি কুষ্টিয়ার ভেড়ামারা পৌরসভা নির্বাচনে দায়িত্ব পালনকালে মো. মহসিন হাসানের সঙ্গে দুর্ব্যবহার করেন কুষ্টিয়ার পুলিশ সুপার এসএম তানভীর আরাফাত।

এতে বলা হয়, ভোটারের অভিযোগের ভিত্তিতে সকাল ১০টায় তিনি ভেড়ামারা পাইলট মডেল উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে প্রবেশ করেন। সেখানে কিছু ব্যক্তি ভোটকেন্দ্রের বুথের ভেতরে লম্বা বেঞ্চে পোলিং এজেন্টদের সঙ্গে বসে ছিলেন। পরিচয়পত্র দেখতে চাইলে তারা প্রিসাইডিং অফিসারের স্বাক্ষরিত এ-ফোর সাইজের কাগজ দেখান। এ বিষয়ে কথা বলতে মহসিন হাসান সংশ্লিষ্ট প্রিসাইডিং অফিসারকে বুথের বাইরে ডাকেন। সে সময় ফোর্সসহ তানভীর আরাফাত কেন্দ্রে প্রবেশ করে প্রিসাইডিং অফিসারকে উচ্চস্বরে তলব করেন। অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোস্তাফিজুর রহমানসহ কয়েকজন প্রিসাইডিং অফিসারকে কথা বলা থেকে বিরত রাখতে সঙ্গে নিয়ে যাওয়ার জন্য তাড়া দেন। মহসিন হাসান নিজের পরিচয় দিয়ে জানান, প্রিসাইডিং অফিসারের সঙ্গে তার কথা আছে। পরিচয় পেয়ে তানভীর আরাফাত ক্ষুব্ধ হন এবং মহসিন হাসানকে বেরিয়ে যেতে বলেন।

অভিযোগপত্রে মহসিন হাসান আরও উল্লেখ করেন, ‘পুলিশ সুপার ও তার ফোর্সদের আক্রমণাত্মক চরম অসৌজন্যমূলক ও মারমুখী আচরণে হতচকিত ও কিংকর্তব্যবিমূঢ় হয়ে আমি সেখানে দাঁড়িয়ে থাকি। তারা কেন্দ্র থেকে চলে যাওয়ার পর আমি বিষয়টি ভেড়ামারা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে অবহিত করি।’

আবেদনে বলা হয়েছে, পুলিশ সুপার ও তার সঙ্গী ফোর্সদের আচরণ স্থানীয় সরকার নির্বাচন বিধিমালা, ২০১০ এর ৬৯, ৭০, ৭৪, ৮০ ও ৮১ বিধির সরাসরি লঙ্ঘন। তাই প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য প্রার্থনা করছি।

মো. মহসিন হাসানের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি দ্য ডেইলি স্টারকে বলেন, ‘ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে নির্বাচন কমিশনের অভিযোগপত্র দিয়েছি।’

পুলিশ সুপার এসএম তানভীর আরাফাত জানান তিনি এ বিষয়ে গণমাধ্যমে কথা বলবেন না। তিনি আরও বলেন, বিষয়টি তার (জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো. মহসিন হাসান) ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথা বলে নিষ্পত্তি করা হয়েছে।

Comments

The Daily Star  | English

Bangladeshi students terrified over attack on foreigners in Kyrgyzstan

Mobs attacked medical students, including Bangladeshis and Indians, in Kyrgyzstani capital Bishkek on Friday and now they are staying indoors fearing further attacks

17m ago