মিয়ানমারে সেনা অভ্যুত্থানের নিন্দায় বিশ্ব সম্প্রদায়

মিয়ানমারে সেনা অভ্যুত্থানের মাধ্যমে ক্ষমতা দখল ও আগামী এক বছরের জন্য জরুরি অবস্থা জারির সমালোচনা ও নিন্দা করছে বিশ্ব সম্প্রদায়।
Aung San Suu Kyi and in Aung Hlaing-1.jpg
মিয়ানমারের নেত্রী ও স্টেট কাউন্সেলর অং সান সু চি ও সেনাপ্রধান মিন অং হ্লাইয়াং। ছবি: সংগৃহীত

মিয়ানমারে সেনা অভ্যুত্থানের মাধ্যমে ক্ষমতা দখল ও আগামী এক বছরের জন্য জরুরি অবস্থা জারির সমালোচনা ও নিন্দা করছে বিশ্ব সম্প্রদায়।

দেশটির নেত্রী ও স্টেট কাউন্সেলর অং সান সু চি ও প্রেসিডেন্ট উইন মিন্তসহ অন্য রাজনৈতিক নেতাদের আটকের তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন জাতিসংঘ মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেস। 

আজ সোমবার সকালে এক বিবৃতিতে তিনি বলেছেন, ‘মিয়ানমারের গণতান্ত্রিক সংস্কারের জন্য এটি মারাত্মক আঘাত।’

মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিংকেন এক টুইটবার্তায় বলেন, ‘বার্মিজ সেনাবাহিনী কর্তৃক সামরিক সরকার ও নাগরিক সমাজের একাধিক নেতাকে আটকের সংবাদে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করছে যুক্তরাষ্ট্র। সেনাবাহিনীকে অবিলম্বে তাদের এই অবস্থান থেকে সরে আসতে হবে।’

বিবিসি জানিয়েছে, অস্ট্রেলিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেরিস পেইন বলেছেন, ‘আমরা মিয়ানমারের সেনাবাহিনীকে আইনের শাসনের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে, আইনি ব্যবস্থার মাধ্যমে বিরোধ নিষ্পত্তি করতে এবং অবৈধভাবে আটকৃকত সব বেসামরিক নেতা ও অন্যদের মুক্তি দেওয়ার আহ্বান জানাচ্ছি।’

তবে থাইল্যান্ডের উপ-প্রধানমন্ত্রী প্রবিত ওয়াংসুউওন বলেছেন, ‘এটা মিয়ানমারের অভ্যন্তরীণ বিষয়।’

এদিকে, থাইল্যান্ডের স্থানীয় এক সাংবাদিকের বরাত দিয়ে চ্যানেল নিউজ এশিয়ার জ্যেষ্ঠ সাংবাদিক মে ওং টুইটারে জানান, আটকের ভয়ে কিছু রাজনৈতিক নেতা সীমান্ত পেরিয়ে থাইল্যান্ডে প্রবেশ করতে পারেন, এ কারণে মিয়ানমার সীমান্তে নিরাপত্তা জোরদার করেছে থাইল্যান্ড।

Comments

The Daily Star  | English

This was BNP-Jamaat's bid to destroy economy: PM

Prime Minister Sheikh Hasina today said she had an apprehension that the BNP-Jamaat nexus might unleash destructive activities across the country to cripple the country's economy after they failed to foil the last national election

1h ago