খেলা

রাওয়ালপিণ্ডি টেস্টে এগিয়ে পাকিস্তান

দিনের শুরুটা ভালো ছিল না পাকিস্তানের। দ্রুত উইকেট হারিয়ে প্রথম ইনিংসে নিজেদের সংগ্রহটা বড় করতে পারেনি তারা। তবে বোলারদের সৌজন্যে দক্ষিণ আফ্রিকাকেও স্বস্তিতে থাকতে দেয়নি দলটি। ১০৬ রানেই প্রোটিয়াদের টপ অর্ডারের চার উইকেট তুলে নিয়েছে স্বাগতিকরা। দিন শেষে প্রথম ইনিংসে ১৬৬ রানে এগিয়ে আছে পাকিস্তান।
ছবি: টুইটার

দিনের শুরুটা ভালো ছিল না পাকিস্তানের। দ্রুত উইকেট হারিয়ে প্রথম ইনিংসে নিজেদের সংগ্রহটা বড় করতে পারেনি তারা। তবে বোলারদের সৌজন্যে দক্ষিণ আফ্রিকাকেও স্বস্তিতে থাকতে দেয়নি দলটি। ১০৬ রানেই প্রোটিয়াদের টপ অর্ডারের চার উইকেট তুলে নিয়েছে স্বাগতিকরা। দিন শেষে প্রথম ইনিংসে ১৬৬ রানে এগিয়ে আছে পাকিস্তান।

রাওয়ালপিণ্ডি ক্রিকেট স্টেডিয়ামে নিজেদের প্রথম ইনিংসে ২৭২ রান তুলে অলআউট হয়েছে স্বাগতিকরা। আর নিজেদের প্রথম ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে দ্বিতীয় দিন শেষে ২৮ ওভার ব্যাট করে ৪ উইকেটে ১০৬ রান তুলেছে দক্ষিণ আফ্রিকা।

দলীয় ২৬ রানে টানা দুই বলে ওপেনার ডিন এলগার (১৫) ও রসি ভ্যান ডার ডুসেনকে (০) তুলে সফরকারীদের বড় ধাক্কা দিয়েছিলেন হাসান আলী। এলগারকে উইকেটরক্ষক মোহাম্মদ রিজয়ানের ক্যাচে পরিণত করার পরের বলে ডুসেনকে বোল্ড করে হ্যাটট্রিকের সম্ভাবনা তৈরি করেছিলেন এ পেসার।

এরপর স্কোরবোর্ডে আর ২১ রান যোগ করতে দলের সেরা তারকা ফাফ দু প্লেসিকে (১৭) হারায় প্রোটিয়ারা। সাবেক অধিনায়ককে উইকেটরক্ষকের তালুবন্দি করেন ফাহিম আশরাফ। তবে এক প্রান্ত ধরে এগিয়ে যাচ্ছিলেন এইডেন মার্করাম (৩২)। তাকে ফেরান নুমান আলী। তার বলে খেলতে গিয়ে টপ এজ হয়ে মিডউইকেটে ধরা পড়েন শাহিন শাহ আফ্রিদির হাতে। এরপর টেম্বা বাভুমাকে নিয়ে দলের হাল ধরেছেন অধিনায়ক কুইন্টন ডি কক। অবিচ্ছিন্ন ২৫ রানের জুটি গড়ে দিন শেষ করেছেন তারা।    

এর আগে নিজেদের প্রথম ইনিংসে আগের দিনের ৩ উইকেটে ১৪৫ রান নিয়ে ব্যাট করতে নেমে অ্যানরিচ নর্টজের তোপে পড়ে দলটি। কোনো রান যোগ না করে দিনের দ্বিতীয় বলেই সাজঘরে ফেরেন সেট ব্যাটসম্যান অধিনায়ক বাবর আজম। দ্বিতীয় স্লিপে ধরা পড়েন দু প্লেসির হাতে। এরপর খুব বেশিক্ষণ টিকতে পারেন আরেক সেট ব্যাটসম্যান ফাওয়াদ আলম। দারুণ এক থ্রোতে দ্রুত রান নিতে যাওয়া এ ব্যাটসম্যানকে রানআউট করেন বাভুমা।

এরপর অবশ্য রিজয়ানের সঙ্গে ৪১ রানের জুটিতে সে চাপ সামলে নেওয়ার চেষ্টা করেন ফাহিম। এ জুটি ভাঙেন নর্টজে। তার শর্ট বলে ফাইন লেগে ক্যাচ তুলে বিদায় নেন রিজয়ান। এরপর নিয়মিত বিরতিতেই উইকেট হারাতে থাকে দলটি।

তবে এক প্রান্ত ধরে রেখে দারুণ ব্যাট করেন ফাহিম। খেলেন হার না মানা ৭৮ রানের দারুণ এক ইনিংস। ১৬০ বলে ১২টি চারের সাহায্যে নিজের ইনিংসটি সাজিয়ে শেষ পর্যন্ত অপরাজিত থাকেন তিনি। কিন্তু অপর প্রান্ত থেকে সে অর্থে সাহায্য না পাওয়ায় ২৭২ রানের শেষ হয় স্বাগতিকদের প্রথম ইনিংস।

১২৭ বলে ১২টি চারের সাহায্যে অধিনায়ক বাবর খেলেন ৭৭ রানের ইনিংস। ফাওয়াদের ব্যাট থেকে আসে ৪৫ রান। ১৫৫ বলে ৫টি চারের সাহায্যে এ রান করেন এ অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান।

দক্ষিণ আফ্রিকার পক্ষে একাই ৫টি উইকেট তুলে নেন নর্টজে। এরজন্য ৫৬ রান খরচ করতে হয় তাকে। এছাড়া ৯০ রানের বিনিময়ে ৩টি উইকেট পান কেশভ মহারাজ।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

পাকিস্তান প্রথম ইনিংস: ২৭২ (ইমরান ১৫, আবিদ ৬, আজহার ০, বাবর ৭৭, ফাওয়াদ ৪৫, রিজয়ান ১৮, ফাহিম ৭৮*, হাসান ৮, ইয়াসির ৮, নুমান ৮, আফ্রিদি ০; রাবাদা ০/৭২, নর্টজে ৫/৫৬, মহারাজ ৩/৯০, লিন্ডে ০/৪, এলগার ০/৬, মুলডার ১/৪০)

দক্ষিণ আফ্রিকা প্রথম ইনিংস: ২৮ ওভারে ১০৬/৪ (এলগার ১৫, মার্করাম ৩২, ডুসান ০, দু প্লেসি ১৭, বাভুমা ১৫*, ডি কক ২৪*; আফ্রিদি ০/১৯, হাসান ২/২৯, ফাহিম ১/১৬, নুমান ১/১৯, ইয়াসির ০/২৩)

Comments

The Daily Star  | English

Economy with deep scars limps along

Business and industrial activities resumed yesterday amid a semblance of normalcy after a spasm of violence, internet outage and a curfew left deep wounds on almost all corners of the economy.

1h ago