রুটময় দিনে ভারতের বিপক্ষে রানের পাহাড়ে ইংল্যান্ড

৮ উইকেটে ৫৫৫ রান তুলে দ্বিতীয় দিনের খেলা শেষ করেছে সফরকারীরা।
root
ছবি: বিসিসিআই

ইতিহাসের প্রথম ক্রিকেটার হিসেবে শততম টেস্টে ডাবল সেঞ্চুরির রেকর্ড গড়লেন জো রুট। সাম্প্রতিক সময়ে অসাধারণ ছন্দে থাকা এই ব্যাটসম্যান উঠে গেলেন অনন্য উচ্চতায়। অধিনায়কের নৈপুণ্যে ইংল্যান্ডও নিজেদের প্রথম ইনিংসে চড়ল রানের পাহাড়ে।

শনিবার চেন্নাই টেস্টে ভারতের বিপক্ষে ৮ উইকেটে ৫৫৫ রান তুলে দ্বিতীয় দিনের খেলা শেষ করেছে সফরকারীরা।

টানা তিন টেস্টে সেঞ্চুরির স্বাদ পাওয়া রুটের ব্যাট থেকে আসে ২১৮ রান। প্রায় নয় ঘণ্টা ক্রিজে থেকে তিনি মোকাবিলা করেন ৩৭৭ বল। তার অনবদ্য ইনিংসে ছিল ১৯ চার ও ২ ছক্কা। বিশ্রাম কাটিয়ে সাদা পোশাকে ফেরা বেন স্টোকস তাকে যোগ্য সঙ্গ দিয়ে করেন ১১৮ বলে ৮২ রান।

আগের দিনের ৩ উইকেটে ২৬৩ রান নিয়ে দিন শুরু করে ইংল্যান্ড। প্রথম সেশনে কোনো উইকেট না হারিয়ে তারা তোলে ৯২ রান। দ্বিতীয় সেশনে স্টোকস আউট হলেও আরও ৯৯ রান যোগ করে দলটি। শেষ সেশনে ভারত ৪ উইকেট তুলে নিলেও ইংলিশদের বিশাল সংগ্রহের পথ রুদ্ধ করতে পারেনি।

এদিন মধ্যাহ্ন বিরতির আগের সময়টা নির্বিঘ্নে কাটিয়ে দেন রুট ও স্টোকস। রুট দেখেশুনে খেলে পূরণ করেন দেড়শো। স্টোকস চালিয়ে খেলে রানের গতিতে দম দিয়ে পৌঁছে যান ফিফটিতে। ভারত অবশ্য দুজনের বিপক্ষে একবার করে রিভিউ নিয়েছিল। কিন্তু তাতে কোনো বিপদ ঘটেনি ইংল্যান্ডের।

ফের খেলা শুরুর আট ওভারের মধ্যে ভাঙে ১২৪ রানের এই জুটি। বাঁহাতি স্পিনার শাহবাজ নাদিমকে স্লগ-সুইপ করতে গিয়ে স্টোকস ক্যাচ দেন লং লেগে। সেঞ্চুরির সুবাস ছড়িয়ে তিনি বিদায় নেন ১০ চার ও ৩ ছক্কা হাঁকিয়ে।

রুট এরপর সঙ্গী হিসেবে পান অলি পোপকে। আরেকটি দারুণ জুটি গড়ার পথে চা বিরতির কিছুক্ষণ আগে ডাবল সেঞ্চুরি স্পর্শ করেন তিনি। রবীচন্দ্রন অশ্বিনকে ছক্কায় সীমানাছাড়া করে রাজসিক কায়দায় পূর্বসূরি সবাইকে ছাড়িয়ে যান তিনি।

আরও পড়ুন: শততম টেস্টে ডাবল সেঞ্চুরিতে অনন্য উচ্চতায় রুট

ক্যারিয়ারের শততম টেস্টে রুটের আগে সেঞ্চুরি করেছিলেন আরও আট জন। এর মধ্যে ইংল্যান্ডেরও আছেন দুজন। কিন্তু তাদের কেউই ডাবল সেঞ্চুরির দ্বার পেরোতে পারেননি। রুটের এটি সবশেষ তিন টেস্টে দ্বিতীয় ও সবমিলিয়ে পঞ্চম দ্বিশতক।

মুখোমুখি হওয়া ৩৪১তম বলে রুট ওলটপালট করেন ক্রিকেটীয় রেকর্ডের বই। পোপের সঙ্গে তার ১৬০ বলে ৮৬ রানের পঞ্চম উইকেট জুটির ইতি টানেন অশ্বিন। ৩৪ করা পোপকে এলবিডব্লিউয়ের ফাঁদে ফেলেন এই অফ স্পিনার।

এর পরপরই সাজঘরে ফেরেন রুট। নাদিমের ডেলিভারিতে পরাস্ত হওয়ায় আম্পায়ার আঙুল উঁচিয়ে দেন এলবিডব্লিউয়ের সিদ্ধান্ত। সঙ্গে সঙ্গে রিভিউ নেন তিনি। কিন্তু তাতে পাল্টায়নি ফল। শেষ হয় তার ম্যারাথন ইনিংস।

লম্বা চোট কাটিয়ে ফেরা ভারতীয় পেসার ইশান্ত শর্মা পরপর দুই বলে জস বাটলার ও জোফরা আর্চারকে বোল্ড করেন। তাতে হয়তো ইংল্যান্ডকে অলআউট করার স্বপ্নও বুনতে শুরু করেছিলেন বিরাট কোহলিরা। কিন্তু ডম বেস ও জ্যাক লিচ দিনের শেষ ১১ ওভার কাটিয়ে দিয়ে হতাশায় পোড়ান স্বাগতিকদের।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

(দ্বিতীয় দিন শেষে)

ইংল্যান্ড প্রথম ইনিংস: ১৮০ ওভারে ৫৫৫/৮ (আগের দিন ২৬৩/৩) (রুট ২১৮, স্টোকস ৮২, পোপ ৩৪, বাটলার ৩০, বেস ২৮*, আর্চার ০, লিচ ৬*; ইশান্ত ২/৫২, বুমরাহ ২/৮১, অশ্বিন ২/১৩২, নাদিম ২/১৬৭,  সুন্দর ০/৯৮, রোহিত ০/৭)।

Comments