দ্বিতীয় সেশনেও উইকেটবিহীন বাংলাদেশ, ম্যাচ উইন্ডিজের হাতে

ম্যাচ জিততে শেষ সেশনে তাদের করতে হবে ১২৯ রান। আর অলআউট না হলেও ম্যাচ বাঁচিয়েও ফেলবে। বাংলাদেশের জয়ের থেকে এখন এই দুই সম্ভাবনাই বেশি।
ছবি: ফিরোজ আহমেদ

প্রথম সেশনে কয়েকটি সুযোগ তৈরি হয়েছিল। কিন্তু তা নিতে পারেনি বাংলাদেশ। বিপরীতে, দারুণ ব্যাট করে দুই অভিষিক্ত কাইল মায়ার্স আর এনক্রুমা বোনার দেখিয়েছিলেন দৃঢ়তা। আভাস দিয়েছিলেন রোমাঞ্চের। দ্বিতীয় সেশনে সুযোগ তৈরি করা গেল আরও কম। এমনকি নতুন বল নিয়েও ভিন্ন কিছু করতে পারল না বাংলাদেশ। স্বাগতিকদের হতাশায় পুড়িয়ে অবিশ্বাস্যরকমের ব্যাটিং করে গেলেন মায়ার্স-বোনার। আরেকটি সেশনে পড়ল না কোনো উইকেট। ম্যাচের নিয়ন্ত্রণও তাই ওয়েস্ট ইন্ডিজের হাতে।

রবিবার চট্টগ্রাম টেস্টের পঞ্চম দিনের দ্বিতীয় সেশনে উইন্ডিজ ২৬ ওভার খেলে তুলেছে আরও ৬৯ রান। অভিষেকেই সেঞ্চুরি করে বাঁহাতি মায়ার্স অপরাজিত আছেন ১১৭ রানে। সেঞ্চুরির আভাস দিয়ে বোনার খেলছেন ৭৯ রানে। ৩ উইকেটে ২৬৬ রান তুলে ফেলেছে ক্যারিবিয়ানরা।

চতুর্থ উইকেট জুটিতে হয়ে গেছে ২০৭ রান। দুই অভিষিক্ত হিসেবে জুটির রেকর্ডও করে ফেলেছেন তারা। অভিষেক টেস্ট খেলতে নামা দুই ব্যাটসম্যানের ক্রিকেট ইতিহাসের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রানের জুটি এটি। এর আগে ১৯৬৪ সালে পাকিস্তানের খালিদ ইবাদউল্লাহ ও আব্দুল কাদির গড়েছিলেন ২৪৯ রানের জুটি। 

ম্যাচ জিততে শেষ সেশনে এখনো উইন্ডিজকে করতে হবে ১২৯ রান। আর অলআউট না হলেও ম্যাচ বাঁচিয়ে ফেলবে তারা। বাংলাদেশের জয়ের থেকে এখন উপর্যুক্ত দুই সম্ভাবনাই বেশি। কারণ, কাঙ্ক্ষিত জয় পেতে এক সেশনেই বাংলাদেশকে ফেলতে হবে ৭ উইকেট। 

৩ উইকেটে ১৯৭ রান নিয়ে সেশন শুরু করেছিলেন মায়ার্স-বোনার। শুরুতে সতর্ক থেকেছেন। নির্বিঘ্নে ফিফটি তুলেছেন বোনার। চার মেরে সেঞ্চুরিতে পৌঁছান মায়ার্স। এরপর মায়ার্স কিছুটা আগ্রাসী হতে চেয়েছিলেন। ড্রেসিংরুম থেকে আসা বার্তার পর ফের সতর্ক পথে হাঁটেন তিনি।

আগের দিন দারুণ বল করা মেহেদী হাসান মিরাজ টানা বল করেছেন সকালে। দ্বিতীয় সেশনে তাকে দিয়ে মাত্র দুই ওভার বল করিয়েছেন অধিনায়ক মুমিনুল হক। নাঈম হাসান, তাইজুল ইসলামরাও তৈরি করতে পারেননি সুযোগ। মোস্তাফিজুর রহমান বাউন্সার দিয়ে চেষ্টা চালিয়েছিলেন। ক্যারিবিয়ানরা অবশ্য ফাঁদে পা দেয়নি। সবচেয়ে কৌতূহলী আচরণ উইকেটের। পঞ্চম দিনেও টিকে থাকতে খুব বেশি লড়াই করতে হচ্ছে না ব্যাটসম্যানদের।  

বাহবা পাওয়ার মতো খেলছেন বোনার। এ পর্যন্ত ২৪২ বল খেলে ফেলেছেন। ১০ চারে করেছেন ৭৯। কোনো রকমের বাড়তি ঝুঁকি নিতে দেখা যায়নি তাকে। রক্ষণে ছিলেন আস্থাশীল। বাংলাদেশের স্পিনারদের সামর্থ্য পড়েছেন দারুণভাবে। টার্নের বিপক্ষে পেছনে গিয়ে খেলেছেন বেশি। মায়ার্স উপহার দিচ্ছেন রোমাঞ্চ। ক্যারিবীয় ধাঁচের দৃষ্টিনন্দন ব্যাটিং দেখা গেছে তার কাছে। দুজন যেভাবে ব্যাট করছেন, তাতে শরীরী ভাষায় হতাশা ছিটকে বেরোচ্ছে বাংলাদেশের ক্রিকেটারদের।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

(পঞ্চম দিনের দ্বিতীয় সেশন শেষে)

বাংলাদেশ প্রথম ইনিংস: ৪৩০

ওয়েস্ট ইন্ডিজ প্রথম ইনিংস: ২৫৯

বাংলাদেশ দ্বিতীয় ইনিংস: ২২৩/৮ (ইনিংস ঘোষণা)

ওয়েস্ট ইন্ডিজ দ্বিতীয় ইনিংস: ৯৭ ওভারে ২৬৬/৩ (আগের দিন ১১০/৩) (বোনার ৭৯*, মায়ার্স ১১৭*; মোস্তাফিজ ০/৬১, তাইজুল ০/৩৬, মিরাজ ৩/৯২, নাঈম ০/৬২)।

Comments

The Daily Star  | English

Lifts at public hospitals: Where Horror Abounds

Shipon Mia (not his real name) fears for his life throughout the hours he works as a liftman at a building of Sir Salimullah Medical College, commonly known as Mitford hospital, in the capital.

5h ago