ভুল থেকে শিক্ষা নেননি মুশফিক, ভীষণ চাপে বাংলাদেশ

ক্যারিবিয়ানদের জবাব দেওয়া তো দূরে থাকা, ভীষণ চাপে থেকে খাবি খাচ্ছে স্বাগতিকরা।
mushi out
ছবি: ফিরোজ আহমেদ

দ্বিতীয় দিনের খেলা শেষে তামিম ইকবাল বলেছিলেন, ‘চারটিই ব্যাটসম্যানদের ভুল ছিল বলে উইকেটই পড়েছে।’ কিন্তু সেই ভুল থেকে শিক্ষা বাংলাদেশ দল নিল কোথায়? মোহাম্মদ মিঠুন ওয়েস্ট ইন্ডিজের পাতা ফাঁদে পা দেওয়ার পর উইকেট ছুঁড়ে আসলেন মুশফিকুর রহিম। ক্যারিবিয়ানদের জবাব দেওয়া তো দূরে থাকা, ভীষণ চাপে থেকে খাবি খাচ্ছে স্বাগতিকরা।

শনিবার মিরপুর টেস্টের তৃতীয় দিনের প্রথম সেশনটা গেছে সফরকারী উইন্ডিজের ঝুলিতে। শেরে বাংলা স্টেডিয়ামে মধ্যাহ্ন বিরতি পর্যন্ত প্রথম ইনিংসে বাংলাদেশের সংগ্রহ ৬ উইকেটে ১৮১ রান। উইন্ডিজ প্রথম ইনিংসে অলআউট হয়েছিল ৪০৯ রানে।

আগের দিনের ৪ উইকেটে ১০৫ রান নিয়ে খেলতে নেমেছিল বাংলাদেশ। প্রথম ঘণ্টায় ১১.১ ওভারে ১ উইকেট হারিয়ে তারা তোলে ৪২ রান। দ্বিতীয় ঘণ্টায় ১৩.৫ ওভারে আরও ১ উইকেট খুইয়ে তারা যোগ করে ৩৪ রান।

দুটি উইকেটই পান রাহকিম কর্নওয়াল। উইকেট থেকে তীক্ষ্ণ টার্ন পাওয়া এই স্পিনার সবমিলিয়ে ৩ উইকেট নেন ৪০ রানে। ক্রিজে বাংলাদেশের আশার আলো হয়ে আছেন লিটন দাস ২৩ ও চট্টগ্রামে গত টেস্টের সেঞ্চুরিয়ান মেহেদী হাসান মিরাজ ১১ রানে।

জোমেল ওয়ারিকান ও শ্যানন গ্যাব্রিয়েলের ওভার থেকে নিয়মিত বাউন্ডারি আদায় করে দিন শুরু হয় বাংলাদেশের। দ্বিতীয় দিনের দুই অপরাজিত ব্যাটসম্যান মুশফিক ও মিঠুনকে চ্যালেঞ্জের মুখে পড়তে হয়নি। স্বাচ্ছন্দ্যে ব্যাট চালাতে থাকেন দুজনে। চমৎকার টাইমিংয়ে কভার দিয়ে পেসার গ্যাব্রিয়েলকে চার মেরে জুটির রান পঞ্চাশ পার করেন মুশফিক।

সাবলীল ব্যাটিংয়ে ফিফটিও পূর্ণ করেন টেস্টে বাংলাদেশের সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক। ৮৯ বলে আসে এই সংস্করণে তার ২২তম হাফসেঞ্চুরি।

এরপরই ঘটে ছন্দপতন। কর্নওয়ালের শিকার হয়ে বিদায় নেন মিঠুন। এতে প্রশংসা প্রাপ্য উইন্ডিজের ফিল্ডিং সাজানোর কৌশলের। শর্ট মিড-উইকেটে ডাইভ দিয়ে অসাধারণ ক্যাচ নেন দলটির অধিনায়ক ক্রেইগ ব্র্যাথওয়েট।

লম্বা সময় উইকেটে থাকা মিঠুন সাজঘরে ফেরেন ৮৬ বলে ১৫ রান করে। তার বিদায়ে ভাঙে বাংলাদেশের ১৮১ বলে ৭১ রানের পঞ্চম উইকেট জুটি।

তবে অভিজ্ঞ মুশফিক যে কায়দায় বিদায় নেন, তা রীতিমতো অমার্জনীয়! আগের ডেলিভারিতেই চার মারার পর কর্নওয়ালকে রিভার্স সুইপ করার মতো বিলাসী সিদ্ধান্তে শেষ হয় তার ইনিংস। অথচ মিঠুনকে হারিয়ে বাংলাদেশ তখন ফের চাপে। প্রয়োজন ছিল আরেকটি বড় জুটির।

কর্নওয়ালের আগের ওভারেই রিভিউ নিয়ে বেঁচে গিয়েছিলেন মুশফিক। জোরালো আবেদনে আম্পায়ার সাড়া না তৎক্ষণাৎ রিভিউ নিয়েছিল ক্যারিবিয়ানরা। তবে আম্পায়ার্স কলে বেঁচে যান মুশি। দ্বিতীয় জীবন আর কাজে লাগাতে পারলেন কই তিনি! তার ১০৫ বলে ৫৪ রানের ইনিংসে ছিল ৭ চার।

বাকি সময়টা দেখে-শুনে পার করেন লিটন ও মেহেদী। তবে বেশ কয়েকবার তাদের পরাস্ত হতে দেখা গেছে। দুজনের অবিচ্ছিন্ন জুটির সংগ্রহ ৭১ বলে ২৬ রান।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

(তৃতীয় দিনের প্রথম সেশন শেষে)

ওয়েস্ট ইন্ডিজ প্রথম ইনিংস: ১৪২.২ ওভারে ৪০৯

বাংলাদেশ প্রথম ইনিংস: (আগের দিন ১০৫/৪) ৬১ ওভারে ১৮১/৬ (মুশফিক ৫৪, মিঠুন ১৫, লিটন ২৩*, মিরাজ ১১*; গ্যাব্রিয়েল ২/৪৯, কর্নওয়াল ৩/৪০, আলজারি ১/৪৮, মেয়ার্স ০/১২, ওয়ারিকান ০/৩১)।

Comments

The Daily Star  | English
MP Azim’s body recovery

Recovering MP Azim’s body almost impossible: DB chief

Killers disfigured the body so much that it would be tough to identify those as human flesh

1h ago