অভিশংসন: ট্রাম্পের আইনজীবীদের ৫ যুক্তি

যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের অভিশংসন শুনানির চতুর্থ দিনে তার পক্ষের আইনজীবীরা তাদের যুক্তি-প্রমাণ তুলে ধরেন। ট্রাম্পের আইনি দল শুরু থেকেই দৃঢ়ভাবে জানিয়েছিল যে, পুরো অভিশংসন ও বিচার প্রক্রিয়াটি অসাংবিধানিক এবং অফিস ছাড়ার পর সিনেটে ট্রাম্পের বিচার হলে এতে তার নিজস্ব অধিকারও লঙ্ঘন হবে।
Donald Trump-11.jpg
ডোনাল্ড ট্রাম্প। ছবি: রয়টার্স

যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের অভিশংসন শুনানির চতুর্থ দিনে তার পক্ষের আইনজীবীরা তাদের যুক্তি-প্রমাণ তুলে ধরেন। ট্রাম্পের আইনি দল শুরু থেকেই দৃঢ়ভাবে জানিয়েছিল যে, পুরো অভিশংসন ও বিচার প্রক্রিয়াটি অসাংবিধানিক এবং অফিস ছাড়ার পর সিনেটে ট্রাম্পের বিচার হলে এতে তার নিজস্ব অধিকারও লঙ্ঘন হবে।

তবে, ট্রাম্পের আইনজীবীরা এ যুক্তিতে হেরেছিলেন। ডেমোক্র্যাট সংখ্যাগরিষ্ঠ কংগ্রেসের নিম্নকক্ষ হাউস অব পার্লামেন্টের অধিকাংশ আইনপ্রণেতারা বিচারের পক্ষেই ভোট দিয়েছেন।

সব মিলিয়ে ট্রাম্পের আইনজীবীরা তাদের যুক্তি উপস্থাপন করতে মাত্র তিন ঘণ্টার মতো সময় নিয়েছেন। অন্যদিকে, ইমপিচমেন্ট প্রসিকিউটররা ট্রাম্পকে দোষী সাব্যস্ত করতে যুক্তি-প্রমাণ উপস্থাপনের জন্য ১৩ ঘণ্টা সময় নিয়েছিলেন।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি জানিয়েছে, রিপাবলিকানদের একটি বড় অংশ এখনো ট্রাম্পকে দোষী সাব্যস্ত করতে রাজি নন, এটি ইতোমধ্যেই অনেকখানি স্পষ্ট। তাই হয়তো ট্রাম্পের আইনজীবীদের চেষ্টা কিছুটা কম ছিল।

আজ বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ট্রাম্পের পক্ষের আইনজীবীরা সিনেটে মূলত পাঁচটি পয়েন্ট তুলে ধরেছেন।

ডেমোক্র্যাটরাও এমনটা করেছে

ট্রাম্পের আইনজীবীরা ডেমোক্র্যাটদের যে অভিযোগ সেটি ঘুরিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করেন। তারা আগের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের ফলাফলের বিরোধিতা করে বক্তব্য দিয়েছেন এমন কয়েকজন ডেমোক্র্যাট নেতাদের কথা উল্লেখ করেন। সেসব বক্তব্যের ভিডিও ফুটেজও তারা উপস্থাপন করেছেন। এমনকি শীর্ষ ইমপিচমেন্ট প্রসিকিউটর জেমি রাসকিনেরও একটি ভিডিও ক্লিপ দেখানো হয়েছে।

ট্রাম্পের আইনজীবীরা প্রশ্ন করেন, ‘ডেমোক্র্যাটরা যদি নির্বাচনের ফলাফলকে চ্যালেঞ্জ জানাতে পারেন, তবে, ট্রাম্প কেন পারবেন না?’

ডেমোক্র্যাটরা প্রেসিডেন্টকে ভুলভাবে উপস্থাপন করেছে

ট্রাম্পের আইনজীবী ডেভিড শোয়েন শুনানিতে ডেমোক্র্যাটিক ইমপিচমেন্ট প্রসিকিউটরদের আক্রমণ করেন। তিনি বলেন, ট্রাম্পের বক্তৃতাগুলোকে উদ্দেশ্যমূলকভাবে সম্পাদনা করে ভিন্নভাবে উপস্থাপন করা হয়েছে। আসলে ট্রাম্প যা বলেছেন সেটিকে এডিট করে উসকানিমূলক বক্তব্য হিসেবে হাজির করা হয়েছে বলে অভিযোগ করেন তিনি।

‘রাজনৈতিক নাটক’

পুরো অভিশংসন প্রক্রিয়াটিকেই একটি ‘রাজনৈতিক নাটক’ বলে উল্লেখ করেছেন ট্রাম্পের আইনজীবীরা। কখনো কখনো ট্রাম্পের আইনজীবীদের বক্তব্য থেকে মনে হয়েছিল এটি যেন রক্ষণশীল মিডিয়া ইকোসিস্টেমের প্রতিফলন, যা সাবেক প্রেসিডেন্টের রাজনৈতিক উত্থানের সঙ্গে জড়িত।

ফক্স নিউজ ৬ জানুয়ারি ক্যাপিটল ভবনে হামলার ঘটনা নিয়ে প্রায়ই ঘুরেফিরে একই ধরনের ভিডিও ক্লিপ দেখিয়েছে। তারা আগুন ও সহিংসতার দৃশ্যগুলোকে ভিন্নভাবে উপস্থাপন করেছে, ভীতিকর ব্যাকগ্রাউন্ড সাউন্ড দিয়ে সেগুলো সম্পাদনা করেছে।

ক্লিপগুলোতে ডেমোক্র্যাট রাজনীতিবিদদের অনেকেই দেখা গেছে যারা কট্টর ডানপন্থিদের কাছে অপ্রিয়। যেমন: এলিজাবেথ ওয়ারেন, বার্নি স্যান্ডার্স, চাক শুমার, ন্যান্সি পেলোসি ও আয়ান্না প্রেসলি— পাশাপাশি সিএনএনের ক্রিস কুমো এবং ম্যাডোনা ও জনি ডেপের মতো হলিউড তারকাদের মতো মিডিয়া ব্যক্তিত্বও আছেন।

ট্রাম্পের আইনি দল অনেকটা রক্ষণশীল মিডিয়ার মতো করেই ট্রাম্পের বক্তৃতার কয়েকটি অংশ তুলে ধরেছেন। কেবল ডেমোক্র্যাট না, রিপাবলিকানদের ওপরও ট্রাম্প ক্ষোভ ঝাড়ছেন, এমন ভিডিও ক্লিপও আইনজীবীরা দেখিয়েছেন।

তাদের দাবি, এখানে (সিনেটে) ন্যায়বিচারের জন্য ট্রায়াল হচ্ছে না, এটা রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত।

ডোনাল্ড ট্রাম্পের বাকস্বাধীনতা

আইনজীবীরা বলছেন, নির্বাচনের ফলাফল নিয়ে প্রশ্ন তোলা ট্রাম্পের মত প্রকাশের অধিকারের মধ্যে পড়ে। সিনেট যদি প্রেসিডেন্টকে তার বক্তব্যের জন্য দোষী সাব্যস্ত করতে চায়, তবে রাজনৈতিক নেতাদের জন্য বক্তব্য দেওয়ার ক্ষেত্রে এটি খারাপ প্রভাব ফেলবে এবং এর ফলে বক্তব্য দেওয়ার কারণে শাস্তি দেওয়ার পথ উন্মুক্ত হবে।

ট্রাম্প কি জানতেন পেন্স মারাত্মক বিপদে পড়েছিলেন?

প্রায় চার ঘণ্টার প্রশ্নোত্তর পর্বে রিপাবলিকান সিনেটর মিট রোমনি ও সুসান কলিন্স একটি গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্ন করেছিলেন।

তাদের প্রশ্ন ছিল, ডোনাল্ড ট্রাম্প যখন মাইক পেন্স সম্পর্কে বিতর্কিত টুইট করছিলেন, তিনি কি জানতেন যে ভাইস প্রেসিডেন্টকে তার নিরাপত্তার জন্য সিনেটের চেম্বার থেকে সরিয়ে নেওয়া হয়েছিল?

রিপাবলিকান দলের সাবেক ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্স অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ একজন নেতা।

ইমপিচমেন্ট প্রসিকিউটরদের পক্ষে এ প্রশ্নের জবাবে কংগ্রেস সদস্য জোয়াকিন কাস্ত্রো জানান, প্রেসিডেন্ট অবশ্যই জানতেন যে এক দল সমর্থক পেন্সকে হুমকি দিচ্ছে। সহিংসতার ঘটনাগুলো জাতীয় টেলিভিশনে প্রচার করা হচ্ছিল। হোয়াইট হাউসের সঙ্গে ক্যাপিটল ভবনের যোগাযোগ ব্যবস্থা ভালো।

আলাবামা সিনেটর টমি টিউবারভিল নিজেই প্রেসিডেন্টকে জানিয়েছিলেন যে পেন্সকে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে।

অন্যদিকে, ট্রাম্পের পক্ষের আইনজীবী মাইকেল ভ্যান ডার ব্লেন বলেন, ট্রাম্প জানতেন না।

তিনি আরও বলেন, হাউস ডেমোক্র্যাটরা তাদের ‘দ্রুত’ অভিশংসন প্রক্রিয়া চালাতে গিয়ে এই বিষয়ে সঠিক তদন্ত করেনি।

আরও পড়ুন:

‘ট্রাম্পকে দোষী সাব্যস্ত না করা হলে, ক্যাপিটলে হামলার পুনরাবৃত্তি হবে’

ট্রাম্পের অভিশংসন এগিয়ে নেওয়ার পক্ষে সিনেটের ভোট

চলতি সপ্তাহেই ট্রাম্পের অভিশংসনের শুনানি

অভিশংসন বিচারের আগে ট্রাম্পের ৫ আইনজীবীর পদত্যাগ

ট্রাম্পের অভিশংসনের বিচার হতেই হবে: বাইডেন

অভিশংসন থেকেও সুবিধা পেতে পারেন ট্রাম্প!

অভিশংসনের প্রস্তাব ‘হাস্যকর’, আরও সহিংসতা হতে পারে: ট্রাম্প

আবারও অভিশংসিত ট্রাম্প

Comments

The Daily Star  | English

UN rights chief urges probe on Bangladesh protest 'crackdown'

The UN rights chief called Thursday on Bangladesh to urgently disclose the details of last week's crackdown on protests amid accounts of "horrific violence", calling for "an impartial, independent and transparent investigation"

1h ago