শীর্ষ খবর
প্রবাস

সিডনিতে ‘ঈদ বাজার’

আগামী ৮ মে ও ১৭ জুলাই অস্ট্রেলিয়ার বাণিজ্য নগরী সিডনিতে আয়োজন করা হয়েছে ‘গ্র্যান্ড ল্যাকেম্বা ঈদ বাজার’। এটি আয়োজন করছে বাংলাদেশ অস্ট্রেলিয়া ফ্যাশন অ্যাসোসিয়েশন (বাফা)। এই বাজারে বাংলাদেশীয় পোশাক ও গয়নার ৫৩টি দোকান থাকবে।
ঈদ বাজার আয়োজকদের সংবাদ সম্মেলন।

আগামী ৮ মে ও ১৭ জুলাই অস্ট্রেলিয়ার বাণিজ্য নগরী সিডনিতে আয়োজন করা হয়েছে ‘গ্র্যান্ড ল্যাকেম্বা ঈদ বাজার’। এটি আয়োজন করছে বাংলাদেশ অস্ট্রেলিয়া ফ্যাশন অ্যাসোসিয়েশন (বাফা)। এই বাজারে বাংলাদেশীয় পোশাক ও গয়নার ৫৩টি দোকান থাকবে।

গতকাল রোববার এক সংবাদ সম্মেলনে আয়োজকরা এ বিষয়ে বিস্তারিত জানান।

বাফা একটি বাংলাদেশি বুটিক অ্যাসোসিয়েশন। প্ল্যাটফর্মটি অস্ট্রেলিয়ায় বসবাসকারী বাংলাদেশি ফ্যাশন ডিজাইনার, বুটিকের মালিক বা উদ্যোক্তা (ফ্যাশন, গয়না, মেক-আপ বিউটি, মেহেদি আর্টিস্ট) সবাইকে একসঙ্গে সংযুক্ত রাখার জন্য এবং বাংলাদেশের সংস্কৃতি ও গর্ব ধরে রাখার জন্য বৃহত্তর মিশন ও ভিশনের একটি সংগঠন হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে।

২০১৯ সালে লেইস ফিতা সিডনি প্রথম ‘গ্র্যান্ড ল্যাকেম্বা ঈদ বাজার’র আয়োজন করেছিল। ২০২০ সালে কোভিড-১৯ সংকটের কারণে ইভেন্টগুলো বাতিল করা হয়েছিল এবং এর প্রভাব বেশিরভাগ বুটিক ব্যবসার ওপর পড়েছিল। যে কারণে সংশ্লিষ্টরা একটি সংকটময় অবস্থার মধ্যে ছিল। সেই কারণেই ওই সংগঠনের নির্বাহী কমিটির সদস্যরা সম্প্রতি বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত সব বুটিক ও অন্যান্য ফ্যাশন ব্যবসার মালিকদের সমন্বয়ে ও তাদের বৃহত্তর স্বার্থ রক্ষার জন্যে বাফা প্রতিষ্ঠার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

২০২১ সালে ‘গ্র্যান্ড ল্যাকেম্বা ঈদ বাজার’ দুই ঈদের আগের শনিবার, অর্থাৎ ৮ মে ও ১৭ জুলাই ক্যাম্পেসির অরিয়ন ফাংশন সেন্টারে অনুষ্ঠিত হবে।

ব্যবসার প্রচার, সামাজিক সম্প্রীতি ও উৎসবের গুরুত্বপূর্ণ উপকরণ হিসেবে ঈদের আয়োজনগুলো বিভিন্ন কমিউনিটির কাছে জনপ্রিয়তা পেয়েছে। প্রতি বছর বিভিন্ন ঈদ আয়োজনগুলো আরও বড় ও ভালো ইভেন্টে পরিণত হচ্ছে। সিডনি ও অন্যান্য শহর থেকে দৃষ্টিনন্দন পোশাক ও আনুষঙ্গিক সামগ্রী গ্রাহকদের কাছে পৌঁছে দিতে ঈদ বাজারে যোগ দিচ্ছে বিভিন্ন ফ্যাশন স্টোর। এই ঈদ বাজারটিতে বেশিসংখ্যক তরুণ উদ্যোক্তার পাশাপাশি গ্রাহকদেরও অংশগ্রহণের মাধ্যমে বিভিন্ন কমিউনিটির সাম্প্রতিক ফ্যাশন অনুভব ও সংস্কৃতিতে একটি সরাসরি সংযোগ স্থাপন করবে।

Comments