পৌর মেয়রের বিরুদ্ধে ইকোপার্কে বর্জ্য ফেলার অভিযোগ

মৌলভীবাজারের পৌর মেয়রের বিরুদ্ধে বর্ষিজোড়া ইকোপার্কে শহরের ময়লা-আবর্জনা ফেলার অভিযোগ উঠেছে। সেইসঙ্গে বর্জ্য ফেলার জন্য বনের টিলা কেটে অবৈধভাবে রাস্তা নির্মাণের কাজও চলছে। বনবিভাগ এ বিষয়ে চিঠি দিয়ে পৌর মেয়রের কাছে কার্যক্রম বন্ধ রাখার জন্য বললেও তা বন্ধ হয়নি।
মৌলভীবাজারের বর্ষিজোড়া ইকোপার্কে বর্জ্য ফেলা হচ্ছে। ছবি: সংগৃহীত

মৌলভীবাজারের পৌর মেয়রের বিরুদ্ধে বর্ষিজোড়া ইকোপার্কে শহরের ময়লা-আবর্জনা ফেলার অভিযোগ উঠেছে। সেইসঙ্গে বর্জ্য ফেলার জন্য বনের টিলা কেটে অবৈধভাবে রাস্তা নির্মাণের কাজও চলছে। বনবিভাগ এ বিষয়ে চিঠি দিয়ে পৌর মেয়রের কাছে কার্যক্রম বন্ধ রাখার জন্য বললেও তা বন্ধ হয়নি।

সরেজমিনে দেখা যায়, মৌলভীবাজার শহরের স্টেডিয়াম সংলগ্ন বর্ষিজোড়া পার্কের বনাঞ্চলে ফেলা হচ্ছে ময়লা-আবর্জনা ও বোতলজাত প্লাস্টিক বর্জ্য। এসব ময়লা-আবর্জনা ও ব্যবহৃত প্লাস্টিক ফেলার কারণে বনের পরিবেশ দূষিত হচ্ছে বলে জানিয়েছেন পরিবেশবিদ ও স্থানীয়রা। ময়লা ফেলার জন্য এসকেবেটরের মাধ্যমে টিলার পার্শ্ববর্তী লাল মাটি কেটে রাস্তা প্রশস্ত করা হচ্ছে। এতে বনাঞ্চল ও পার্কের পরিবেশ দূষিত হয়ে দুর্গন্ধ ছড়াচ্ছে।

বাংলাদেশ পরিবেশ সাংবাদিক ফোরাম মৌলভীবাজার শাখার সাদারণ সম্পাদক নূরুল মোহাইমীন মিল্টন দ্য ডেইলি স্টারকে জানান, বর্ষিজোড়া ইকো পার্কের বনাঞ্চলে নানা রকম বন্যপ্রাণি ও পাখির বিচরণ। তাছাড়া ওই এলাকার পাশেই মহিলা ও সরকারি কলেজ। শহরের বর্জ্য-আবর্জনার স্তুপ ও দুর্গন্ধ প্রকৃতি ও পরিবেশকে মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করছে। এসব বর্জ্যে পাখি ও প্রাণির মৃত্যুও হতে পারে। তাছাড়া বনের টিলা কেটে রাস্তা নির্মাণ তৈরি করা হচ্ছে যা অবৈধ।

স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, বর্ষিজোড়া ইকো পার্কে প্রতিদিন বিভিন্ন স্থান থেকে পর্যটকরা আসেন। তবে বনে ময়লা ফেলে পরিবেশকে বিনষ্ট করে ফেলা হচ্ছে।

বন্যপ্রাণী ব্যবস্থাপনা ও প্রকৃতি সংরক্ষণ বিভাগের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা রেজাউল করিম চৌধুরী বিষয়টি খুবই দুঃখজনক জানিয়ে বলেন, এই জমিটুকু আমাদের বর্ষিজোড়া ইকো-পার্ক তথা বনবিভাগের। এখানে শহরের ময়লা ও ব্যবহৃত বোতলজাত আবর্জনা ফেলা মোটেও ঠিক হয়নি। তাছাড়া বনের টিলা কেটে অবৈধভাবে রাস্তা নির্মাণ করা হচ্ছে। এ বিষয়ে মৌলভীবাজার পৌরসভার মেয়র মো. ফজলুর রহমানকে ময়লা ফেলা বন্ধ ও রাস্তা নির্মাণ কার্যক্রম বন্ধ রাখার জন্য বলা হয়েছে। কিন্তু তাদের কার্যক্রম চলছে।

মৌলভীবাজার পৌর মেয়র মো. ফজলুর রহমান বলেন, আসলে পরিত্যক্ত জমি থাকায় সেখানে ময়লা ফেলা হচ্ছে। স্থানীয় বাসিন্দাদের জমি জেনে তাদের সাথে কথা বলে এখানে ময়লা ফেলা হচ্ছে। বনবিভাগের কাছ থেকে এ বিষয়ে আপত্তি পাওয়া গেছে। তবে এখানে সাময়িকভাবে ফেলা হচ্ছে। আমাদের ডাম্পিং স্টেশন হয়ে গেলে ময়লা ফেলার কোন অসুবিধা হবে না।

অন্যদিকে বনের টিলা কেটে অবৈধ কোন রাস্তা নির্মাণ করা হচ্ছে না বলে তিনি দাবি করেন। 

এ প্রসঙ্গে মৌলভীবাজারের জেলা প্রশাসক মীর নাহিদ আহসান দ্য ডেইলি স্টারকে বলেন, ‘বন্যপ্রাণী ব্যবস্থাপনা ও প্রকৃতি সংরক্ষণ বিভাগের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা রেজাউল করিম চৌধুরী মৌলভীবাজার পৌর মেয়র মো. ফজলুর রহমানকে এ বিষয়ে চিঠি দিয়েছেন। আমাকে অনুলিপি দিয়েছেন। আমি দুই পক্ষকে বলেছি কথা বলার জন্য। যদি সমাধান না হয় তাহলে আমি দেখব।’

Comments

The Daily Star  | English

'Will not spare anyone if attacked'

Quader vows response if any Bangladeshi harmed by Myanmar firing tensions

35m ago