করোনাভাইরাস

মৃত্যু ৩০ লাখ ৭২ হাজার, আক্রান্ত প্রায় সাড়ে ১৪ কোটি

বিশ্বব্যাপী করোনার সংক্রমণ ও মৃত্যু বেড়েই চলছে। ইতোমধ্যে অনেক দেশ লকডাউনসহ কঠোর বিধিনিষেধ আরোপ করেছে। হঠাৎ করেই আবারও সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ার অন্যতম কারণ বিশ্বব্যাপী করোনার কয়েকটি ভ্যারিয়েন্ট ছড়িয়ে পড়া।
অস্ট্রিয়াতে টিকাদান কর্মসূচি চলছে। ২২ এপ্রিল ২০২১। ছবি: রয়টার্স

বিশ্বব্যাপী করোনার সংক্রমণ ও মৃত্যু বেড়েই চলছে। ইতোমধ্যে অনেক দেশ লকডাউনসহ কঠোর বিধিনিষেধ আরোপ করেছে। হঠাৎ করেই আবারও সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ার অন্যতম কারণ বিশ্বব্যাপী করোনার কয়েকটি ভ্যারিয়েন্ট ছড়িয়ে পড়া।

বিশ্বে ইতোমধ্যে মারা গেছেন ৩০ লাখ ৭২ হাজারের বেশি মানুষ। আক্রান্ত হয়েছেন প্রায় সাড়ে ১৪ কোটি। এ ছাড়া, সুস্থ হয়েছেন আট কোটি ৩১ লাখের বেশি মানুষ।

আজ শুক্রবার সকালে জনস হপকিনস ইউনিভার্সিটির করোনাভাইরাস রিসোর্স সেন্টার এ তথ্য জানিয়েছে।

জনস হপকিনস ইউনিভার্সিটির করোনাভাইরাস রিসোর্স সেন্টারের আজ বেলা ১২টার তথ্য অনুযায়ী, বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ১৪ কোটি ৪৭ লাখ ৫৭ হাজার ১৪৫ জন এবং মারা গেছেন ৩০ লাখ ৭২ হাজার ৩০৯ জন। এ ছাড়া, সুস্থ হয়েছেন আট কোটি ৩১ লাখ ২৮ হাজার ১৬৭ জন।

করোনাভাইরাসে এখন পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত ও মৃত্যু যুক্তরাষ্ট্রে। দেশটিতে আক্রান্ত হয়েছেন তিন কোটি ১৯ লাখ ২৮ হাজার ৫০৭ জন এবং মারা গেছেন পাঁচ লাখ ৭০ হাজার ৩৪৫ জন।

ভারতীয় গণমাধ্যম এনডিটিভি জানিয়েছে, আক্রান্তের দিক থেকে বিশ্বে দ্বিতীয় অবস্থানে থাকা ভারতে শনাক্ত হয়েছেন এক কোটি ৬২ লাখ ৬৩ হাজার ৬৯৫ জন। মৃত্যুর দিক থেকে চতুর্থ অবস্থানে থাকা ভারতে এ পর্যন্ত মারা গেছেন এক লাখ ৮৬ হাজার ৯২০ জন। আর সুস্থ হয়েছেন এক কোটি ৩৬ লাখ ৪৮ হাজার ১৫৯ জন।

জনস হপকিনসের হিসাবে, সংক্রমণের দিক থেকে তৃতীয় ও মৃত্যুর দিক থেকে দ্বিতীয় অবস্থানে থাকা দক্ষিণ আমেরিকার দেশ ব্রাজিলে আক্রান্ত হয়েছেন এক কোটি ৪১ লাখ ৬৭ হাজার ৯৭৩ জন, মারা গেছেন তিন লাখ ৮৩ হাজার ৫০২ জন। সুস্থ হয়েছেন এক কোটি ৩১ লাখ ২৮ হাজার ১৬৭ জন।

মৃত্যুর সংখ্যার দিক থেকে তৃতীয়তে রয়েছে মেক্সিকো। দেশটিতে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে এখন পর্যন্ত দুই লাখ ১৪ হাজার ৭৯ জন মারা গেছেন। আক্রান্ত হয়েছেন ২৩ লাখ ১৯ হাজার ৫৯৬ জন।

উল্লেখ্য, গত বছরের ৮ মার্চ বাংলাদেশে প্রথম করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত করে সরকারের রোগতত্ত্ব, রোগনিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান (আইইডিসিআর)। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সর্বশেষ প্রকাশিত তথ্য অনুযায়ী, দেশে এখন পর্যন্ত করোনাভাইরাসে আক্রান্ত সাত লাখ ৩৬ হাজার ৭৪ জনকে শনাক্ত করা হয়েছে। মারা গেছেন ১০ হাজার ৭৮১ জন। আর সুস্থ হয়েছেন ছয় লাখ ৪২ হাজার ৪৪৯ জন।

Comments

The Daily Star  | English
expediency

Expediency triumphs over principle in electoral politics

It appears that all of the ruling party’s efforts revolve around the next election, not considering longer-term ramifications for the itself.

5h ago