দেশ থেকে পালাতে পারেন ডেসটিনি পরিচালক: হাইকোর্টের পূর্ণাঙ্গ রায়

মানি লন্ডারিং মামলায় জামিন পেলে ডেসটিনি গ্রুপের পরিচালক লেফটেন্যান্ট কর্নেল (অব.) দিদারুল আলম দেশ থেকে পালাতে পারেন বলে মনে করছেন হাইকোর্ট। গতকাল বৃহস্পতিবার হাইকোর্টের বিচারকদের সই করা পূর্ণাঙ্গ রায় লিখিত আকারে প্রকাশ করা হয়।
স্টার ফাইল ফটো

মানি লন্ডারিং মামলায় জামিন পেলে ডেসটিনি গ্রুপের পরিচালক লেফটেন্যান্ট কর্নেল (অব.) দিদারুল আলম দেশ থেকে পালাতে পারেন বলে মনে করছেন হাইকোর্ট। গতকাল বৃহস্পতিবার হাইকোর্টের বিচারকদের সই করা পূর্ণাঙ্গ রায় লিখিত আকারে প্রকাশ করা হয়।

বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি কে এম হাফিজুল আলমের হাইকোর্ট বেঞ্চ ডেসটিনি গ্রুপের পরিচালকের বিরুদ্ধে পূর্ণাঙ্গ রায়ে বলেছেন, ‘অভিযুক্ত আপিলকারী (দিদারুল) ফৌজদারি কার্যবিধি (সিআরপিসি) ১৬৪ ধারায় ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেটের কাছে জবানবন্দি দিয়ে অপরাধের সঙ্গে তার জড়িত থাকার বিষয় স্বীকার করেছেন। এছাড়া, বিশাল অঙ্কের (এক হাজার ৯৩৫ কোটি ৫৩ লাখ) টাকা এই মামলার সঙ্গে জড়িত। এ পরিস্থিতিতে তাকে জামিন দেওয়া হলে তিনি এই মামলা থেকে অথবা দেশ ছেড়ে পালাতে পারেন। এছাড়া তিনি এই মামলার সাক্ষীদেরও প্রভাবিত করতে পারেন।’

এর আগে ২০১২ সালের ২০ অক্টোবর দিদারুল আলমকে গ্রেপ্তার করা হয়। 

ঢাকার বিশেষ আদালত-৫ এর দেওয়া রায় চ্যালেঞ্জ করে জামিনের আবেদন করলে এই মামলার সঙ্গে জড়িত থাকার অপরাধে ২০১৬ সালের ৬ নভেম্বর তার জামিন আবেদন নাকচ করা হয়।  

 

এছাড়া দিদারুল আলমের বিরুদ্ধে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) করা মানি লন্ডারিং মামলায় তার আপিল আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ২০১৮ সালের ১৪ আগস্ট এক সংক্ষিপ্ত রায়ে তার জামিন আবেদন খারিজ করে দেওয়া হয়।

 

পূর্ণাঙ্গ রায়ে হাইকোর্ট বিচারিক আদালতকে নির্দেশ দিয়েছেন, আগের দেওয়া সময় অনুযায়ী ও যথাযথ আইন অনুসারে নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে মামলাটির নিষ্পত্তি করতে।

দুদকের আইনজীবী খুরশিদ আলম খান দ্য ডেইলি স্টারকে জানান, ২০১৬ সালের ২ ফেব্রুয়ারি, হাইকোর্ট বিচারিক আদালতকে এক বছরের মধ্যে মামলাটির নিষ্পত্তি করতে নির্দেশ দিয়েছিলেন। 

ডেসটিনি গ্রুপের পরিচালক লেফটেন্যান্ট কর্নেল (অব.) দিদারুল আলম হাইকোর্টে জামিনের জন্য আবেদন করলে তার জামিন আবেদন নাকচ করে হাইকোর্ট এই আদেশ দেন। 

২০১৪ সালের ৪ মে দুদক ডেসটিনির ৫১ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে মামলা করে।

Comments

The Daily Star  | English
Public universities protests quota reformation

PM's comment ignites protests across campuses

Hundreds of students from several public universities, including Dhaka University, took to the streets around midnight to protest what they said was a "disparaging comment" by Prime Minister Sheikh Hasina earlier in the evening

8h ago