বঙ্গবন্ধু শিল্প নগরে প্রথম কারখানা চালু হবে আগামী মাসে

চট্টগ্রামের মিরসরাইয়ে বাংলাদেশের বৃহত্তম অর্থনৈতিক অঞ্চল বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব শিল্প নগরের (বিএসএমএসএন) প্রথম কারখানাটির উদ্বোধন হবে আগামী ১০ জুন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভার্চুয়ালি কারখানাটি উদ্বোধন করার কথা রয়েছে।
চট্টগ্রামে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব শিল্প নগরের নিপ্পন-ম্যাকডোনাল্ড কারখানা। ছবি: সংগৃহীত

চট্টগ্রামের মিরসরাইয়ে বাংলাদেশের বৃহত্তম অর্থনৈতিক অঞ্চল বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব শিল্প নগরের (বিএসএমএসএন) প্রথম কারখানাটির উদ্বোধন হবে আগামী ১০ জুন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভার্চুয়ালি কারখানাটি উদ্বোধন করার কথা রয়েছে।

বাংলাদেশ অর্থনৈতিক অঞ্চল কর্তৃপক্ষের (বেজা) নির্বাহী চেয়ারম্যান পবন চৌধুরী দ্য ডেইলি স্টারকে জানিয়েছেন আগামী ডিসেম্বর মাসের মাঝে এশিয়ান পেইন্টস ও এসকিউ ইলেকট্রিকসহ আরও পাঁচ থেকে ছয়টি কারখানা উদ্বোধন হবে।

মহামারির কারণে কোনো উন্নয়ন কার্যক্রম স্থগিত হয়নি এবং বিনিয়োগকারীদের জন্য কারখানাগুলো চালু করা এখন শুধুই সময়ের ব্যাপার, জানান তিনি।

বেজার তথ্য অনুযায়ী, বিএসএমএসএন এ পর্যন্ত সর্বমোট ২০ দশমিক ৮ বিলিয়ন মার্কিন ডলার বিনিয়োগের প্রস্তাব পেয়েছে, যার মাঝে ২০ বিলিয়ন ডলার স্থানীয়দের কাছ থেকে এবং ৮২৩ মিলিয়ন ডলার বিদেশি বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকে এসেছে।

জিনুয়ান কেমিক্যাল ইন্ডাস্ট্রির কারখানাটি সর্বপ্রথম উদ্বোধন হওয়ার কথা থাকলেও কোভিড-১৯ জনিত কারণে তারা সময়মতো কারখানা নির্মাণের কাজ শেষ করতে পারেনি।

জিনুয়ানের স্থানটি নিয়েছে জাপানের নিপ্পন স্টিল করপোরেশন ও বাংলাদেশের ম্যাকডোনাল্ড স্টিল ইন্ডাস্ট্রিজ এর একটি যৌথ উদ্যোগ প্রতিষ্ঠান, যার নাম নিপ্পন-ম্যাকডোনাল্ড।

তবে এই কারখানায় বাণিজ্যিকভাবে গ্যালভানাইজ ও প্রিফেব্রিকেট করা স্টিলের পাতের উৎপাদন শুরু হতে সেপ্টেম্বর মাস পর্যন্ত সময় লেগে যেতে পারে। ম্যাকডোনাল্ডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. সারোয়ার কামাল জানান, এ কারখানায় ব্যবহৃত যন্ত্র ও যন্ত্রাংশগুলো জাপান ও চীন থেকে আনা হয়েছে।

তিনি বলেন, ‘নিপ্পন-ম্যাকডোনাল্ড স্টিল প্লেটের ক্রমবর্ধমান বাজার ধরার জন্য এবং একই সঙ্গে দেশের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি ও শিল্পায়নে সহায়তা করার জন্য তাদের যৌথ উদ্যোগ কারখানায় প্রায় ১০০ কোটি টাকা বিনিয়োগ করেছে।’

তার মতে নিপ্পন স্টিল সকল নীতিমালার প্রতি শ্রদ্ধাশীল ও সুনামসম্পন্ন একটি বিদেশি প্রতিষ্ঠান এবং তারা বাংলাদেশের ইস্পাত খাতের উজ্জ্বল ভবিষ্যৎ দেখছেন।

এ কারণেই ম্যাকডোনাল্ড তাদের সঙ্গে যৌথ উদ্যোগ নিয়ে এগিয়ে যায় এবং উৎপাদন খাতে প্রথম বারের মতো বিনিয়োগে উৎসাহী হয়, জানান তিনি।

কামাল বিশ্বাস করেন যে তাদের উদ্যোগের কারণে দেশের ইস্পাত খাত উপকৃত হবে এবং এতে আমদানি নির্ভরতা কমবে।

প্রাথমিকভাবে প্রতিষ্ঠান দুটি কারখানা স্থাপনের জন্য ধাপে ধাপে ৫৯ দশমিক ১৯ মিলিয়ন মার্কিন ডলার (প্রায় ৫০০ কোটি টাকা) বিনিয়োগ করার ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

কাঁচামালগুলো আসবে চীন, জাপান ও অন্যান্য ইয়োরোপীয় দেশ থেকে এবং উৎপাদিত পণ্যগুলো মূলত স্থানীয় প্রি-ফেব্রিকেশন শিল্পে ব্যবহার হবে, যার মাঝে ম্যাকডোনাল্ডও অন্তর্ভুক্ত। তারা স্থানীয় বাজার থেকে বছরে ২০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার আয় করার আশা করছে আর এর পাশাপাশি সম্পূর্ণরূপে চালু হওয়ার পর দক্ষিণ এশিয়ার অন্যান্য দেশেও তাদের রপ্তানির পরিকল্পনা রয়েছে।

কামাল জানিয়েছেন ভারতের উত্তর-পূর্বের রাজ্যগুলোতে তাদের স্টিল পণ্য রপ্তানি করার ভালো সুযোগ রয়েছে।

এ শিল্পের সঙ্গে জড়িত বিশেষজ্ঞরা বলেছেন, দেশে ইস্পাত পণ্যের বর্তমান বার্ষিক চাহিদা প্রায় সাত লাখ টন এবং এই চাহিদা প্রতি বছর প্রায় ১২ থেকে ১৫ শতাংশ করে বাড়ছে।

বিএসএমএসএন এই যৌথ উদ্যোগের পাশাপাশি নিজস্ব কারখানাও নির্মাণ করছে ম্যাকডোনাল্ড স্টিল। সেখানে জাপান, লুক্সেমবার্গ, চীন ও ভারত থেকে কাঁচামাল আমদানি করে প্রিফেব্রিকেটেড স্ট্রাকচারাল স্টিল উৎপাদন করা হবে।

এই দুটি কারখানা প্রায় ২৫ একর জমির ওপর প্রতিষ্ঠিত হবে এবং সেখানে প্রায় দুই হাজার ৫০০ লোকের কর্মসংস্থান হবে।

 

ইংরেজি থেকে অনুবাদ করেছেন মোহাম্মদ ইশতিয়াক খান

Comments

The Daily Star  | English
Fire incident in Dhaka Bailey Road

Death is built into our cityscapes

Why do authorities gamble with our lives?

8h ago