পদ্মাসেতুতে রেলওয়ে স্ল্যাব বসানোর কাজ সম্পন্ন

৬ দশমিক ১৫ কিলোমিটার পদ্মাসেতুতে রেলওয়ে স্ল্যাব বসানোর কাজ সম্পন্ন হয়েছে। সেতুতে বসানো হয়েছে ২ হাজার ৯৫৯টি স্ল্যাব। সর্বশেষ মুন্সিগঞ্জের মাওয়া প্রান্তের মূল সেতুর ১২ ও ১৩ নম্বর পিলারের ওপর দুইটি রেল স্ল্যাব বসানোর মাধ্যম কাজ শেষ হয়। মূল সেতুর ৪২টি পিলারের ৪১টি স্প্যানে রেল স্ল্যাব বসাতে সময় লেগেছে ৩২ মাস ২৬ দিন।

৬ দশমিক ১৫ কিলোমিটার পদ্মাসেতুতে রেলওয়ে স্ল্যাব বসানোর কাজ সম্পন্ন হয়েছে। সেতুতে বসানো হয়েছে ২ হাজার ৯৫৯টি স্ল্যাব। সর্বশেষ মুন্সিগঞ্জের মাওয়া প্রান্তের মূল সেতুর ১২ ও ১৩ নম্বর পিলারের ওপর দুইটি রেল স্ল্যাব বসানোর মাধ্যম কাজ শেষ হয়। মূল সেতুর ৪২টি পিলারের ৪১টি স্প্যানে রেল স্ল্যাব বসাতে সময় লেগেছে ৩২ মাস ২৬ দিন।

রোববার বিকাল ৫টায় পদ্মা বহুমুখী সেতু প্রকল্পের নির্বাহী প্রকৌশলী সৈয়দ রজব আলী এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, সকালে সেতুর পিলারে দুইটি স্ল্যাব বসানোর মাধ্যমে সম্পন্ন হলো রেলওয়ে স্ল্যাব বসানোর কাজ। পদ্মাপাড়ে কংক্রিট দিয়ে নির্মিত এসব স্ল্যাবের পাশ দিয়ে গ্যাস সংযোগ লাইন যাবে। এছাড়া স্ল্যাবের বিভিন্ন স্থানে আনুষঙ্গিক কিছু কাজও বাকি আছে। এসব শেষ হলে রেল লাইন বসানোর জন্য উপযুক্ত হবে। সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে আগামী বছর ফেব্রুয়ারি মাসে রেল লাইন বসানোর কাজ শুরু হতে পারে।

প্রকৌশল সূত্র জানিয়েছে, ২০১৮ সালের ২৫ সেপ্টেম্বর জাজিরায় ৪১ ও ৪২ নম্বর পিলারে বসানো হয়েছিল প্রথম রেল স্ল্যাব। ৮ টন ওজনের একেকটি স্ল্যাবের দৈর্ঘ্য ২ মিটার এবং প্রস্থ ৫ দশমিক ১৫ মিটার। প্রথমে স্ল্যাব বহনকারী ভাসমান ক্রেনটিকে পিলার বরাবর নির্ধারিত স্থানে রাখা হয়। এরপর সুবিধাজনক উচ্চতায় উঠিয়ে স্ট্রিংগার বিমসহ স্প্যানের ওপর রাখা হয়। স্ল্যাব বসানো শেষে স্ল্যাবের মধ্যবর্তী স্থানে কংক্রিট ঢালাইয়ের কাজ করা হবে। স্প্যানের ওপর রাখার আগে লোডটেস্টসহ বিভিন্ন পরিক্ষা নিরীক্ষা করা হয়।

Comments