ওয়েলসকে বিধ্বস্ত করে শেষ আটে ডেনমার্ক

ওয়েলসকে ৪-০ গোলে বিধ্বস্ত করেছে ডেনিশরা।
dolberg
ছবি: টুইটার

নাটকীয়ভাবে শেষ ষোলোতে জায়গা করে নেওয়া ডেনমার্ক ফের উপহার দিল নজরকাড়া নৈপুণ্য। ওয়েলস স্রেফ উড়ে গেল ক্যাসপার হিউমান্ডের শিষ্যদের কাছে। দুর্দান্ত জয়ে প্রথম দল হিসেবে তারা জায়গা করে নিল ২০২০ ইউরোর কোয়ার্টার ফাইনালে।

শনিবার রাতে আমস্টারডামের ইয়োহান ক্রুইফ অ্যারেনায় ওয়েলসকে ৪-০ গোলে বিধ্বস্ত করেছে ১৯৯২ আসরের চ্যাম্পিয়নরা। জোড়া গোল করেন ইউসুফ পলসেনের চোটের কারণে একাদশে ঢোকা ফরোয়ার্ড ক্যাসপার ডলবার্গ। শেষদিকে একটি করে গোল আসে ফুলব্যাক ইওয়াখিম মেইলে ও স্ট্রাইকার মার্টিন ব্র্যাথওয়েটের পা থেকে।

১-০ গোলে এগিয়ে থেকে বিরতিতে যাওয়া ডেনমার্ক দ্বিতীয়ার্ধে হয়ে ওঠে বিধ্বংসী। তাদের একের পর এক আক্রমণের ঝাপটায় এলোমেলো হয়ে পড়েন নিষ্প্রভ গ্যারেথ বেল-অ্যারন রামসেরা। তারা ১৬টি শট নিয়ে লক্ষ্যে রাখে আটটি। বিপরীতে, ওয়েলস ১১টি শট নিলেও ডেনিশ গোলরক্ষক ক্যাসপার স্মেইকেলকে তেমন কোনো পরীক্ষায় ফেলতে পারেনি।

ম্যাচে তুলনামূলক ভালো শুরু পায় ওয়েলস। দশম মিনিটে ড্যানিয়েল জেমসের পাসে ডি-বক্সের বাইরে থেকে বেলের নেওয়া শট অল্পের জন্য লক্ষ্যে থাকেনি। প্রাথমিক এই চাপ সামলে ধীরে ধীরে নিজেদের মেলে ধরে ডেনমার্ক। ২৭তম মিনিটে মেইলার কাছ থেকে বল পেয়ে মিকেল ডামসগার্ড খুঁজে নেন ডলবার্গকে। কিছুটা ডানে সরে ডি-বক্সের বাইরে থেকে নিখুঁত বাঁকানো শটে লক্ষ্যভেদ করেন তিনি।

এগিয়ে গিয়ে চালকের আসনে বসে পড়ে গ্রুপ পর্বের প্রথম দুই ম্যাচে হারা ডেনমার্ক। পাঁচ মিনিটের মধ্যে তারা ব্যবধান দ্বিগুণ করতেও পারত। বাইলাইনের কাছ থেকে ডামসগার্ডের গোলমুখে ফেলা ক্রসে ডলবার্গের ফ্লিক আটকে দেন ওয়েলস গোলরক্ষক ড্যানি ওয়ার্ড। প্রথমার্ধের যোগ করা সময়ে কাছের পোস্টে মেইলার জোরালো শট কর্নারের বিনিময়ে রক্ষা করেন তিনি।

বিরতির পর খেলা শুরুর তিন মিনিটের ব্যবধান বাড়িয়ে ওয়েলসের ফিরে আসার পথ কঠিন করে ফেলে ডেনিশরা। ব্র্যাথওয়েটের নিচু ক্রস ফেরাতে গিয়ে নিকো উইলিয়ামস তুলে দেন ফরাসি ক্লাব নিসের ২৩ বছর বয়সী ফুটবলার ডলবার্গের পায়ে। প্রতিপক্ষের ভুলে পাওয়া সুবর্ণ সুযোগ হাতছাড়া করেননি তিনি। ডান পায়ের শটে খুঁজে নেন জাল।

গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচে রাশিয়াকে উড়িয়ে চমক দেখিয়ে নকআউটে ওঠা ডেনমার্ক এরপর চেপে ধরে ওয়েলসকে। ৬৫তম মিনিটে বাম দিক থেকে বদলি মাথিয়াস ইয়ানসেনের বাঁকানো শট ওয়ার্ডের হাত ছুঁয়ে পোস্টে লেগে বাইরে চলে যায়। ৮১তম মিনিটে বার্সেলোনার ব্র্যাথওয়েটের ২৫ গজ দূর থেকে নেওয়া ফ্রি-কিক বারের ওপর দিয়ে লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়।

৮৮তম মিনিটে ইয়ানসেনের উঁচু করে বাড়ানো বল নিয়ন্ত্রণে নিয়ে বাঁ পায়ের শটে নিশানা ভেদ করেন মেইলে। ওয়ার্ডের পাশাপাশি ওয়েলসের আরও দুই খেলোয়াড় গোলপোস্ট আগলে দাঁড়ালেও লাভ হয়নি। দুই মিনিট পর তারা পরিণত হয় ১০ জনের দলে। মেইলেকে ফাউল করে সরাসরি লাল কার্ড দেখেন বদলি হ্যারি উইলসন।

দ্বিতীয়ার্ধের যোগ করা সময়ের চতুর্থ মিনিটে গোল পেয়ে যান ব্র্যাথওয়েট। আন্দ্রেয়াস কর্নেলিয়াসের পাসে ডি-বক্সের ভেতর থেকে বাঁ পায়ের গড়ানো শটে ওয়ার্ডকে পরাস্ত করেন তিনি। শুরুতে অফসাইডের বাঁশি বাজলেও ভিএআরের সহায়তা নেওয়া হলে পাল্টে যায় সিদ্ধান্ত। বিশাল জয়ের উল্লাসে মাতোয়ারা হয় অবিশ্বাস্য কায়দায় শেষ ষোলোর টিকিট পাওয়া হিউমান্ডের দল।

আগামী ৩ জুলাই শেষ আটের তৃতীয় ম্যাচে ডেনমার্ক মোকাবিলা করবে নেদারল্যান্ডস অথবা চেক প্রজাতন্ত্রকে। এই দল দুটি বুদাপেস্টের ফেরেঙ্ক পুসকাস অ্যারেনায় রবিবার পরস্পরের মুখোমুখি হবে। ম্যাচটি মাঠে গড়াবে বাংলাদেশ সময় রাত ১০টায়।

Comments

The Daily Star  | English

13 killed in bus-pickup collision in Faridpur

At least 13 people were killed and several others were injured in a head-on collision between a bus and a pick-up at Kanaipur area in Faridpur's Sadar upazila this morning

2h ago