‘আমরা ভালো উইকেট চেয়েছিলাম’

তবে জানিয়েছে তাদের প্রত্যাশার সঙ্গে মেলেনি উইকেটের আচরণ।
হতাশ মাশরাফি বিন মর্তুজা
শিরোপা জিততে না পেরে হতাশ বাংলাদেশ অধিনায়ক। ছবি: ফিরোজ আহমেদ
বাংলাদেশ দল শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে চেয়েছিল বড় রানের উইকেট। ঘরের মাঠের সুবিধা নিতে তৈরি ছিল ফর্মুলা। তবে লঙ্কানদের বিপক্ষে সেই দুই ম্যাচে উইকেট ছিল অসমান-বাউন্সের। ২২২ রান তাড়া করে জিততে না পারার কোন অজুহাত দিচ্ছেন না অধিনায়ক মাশরাফি মর্তুজা। তবে জানিয়েছে তাদের প্রত্যাশার সঙ্গে মেলেনি উইকেটের আচরণ।

ত্রিদেশীয় সিরিজে দুই প্রতিপক্ষের বিপক্ষে দুই ফরমুলা তৈরি ছিল বাংলাদেশের। স্পিনে দুর্বল জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে দুই স্পিনার আর উপমহাদেশের দল শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে চার পেসার। অধিনায়ক বললেন এরচেয়ে ভালো উইকেট চেয়েছিলেন তারা,

‘উইকেট অবশ্যই আমরা ভাল উইকেট চেয়েছিলাম। শুরু থেকেই বলেছি, প্রথম ম্যাচ থেকেই চেয়েছি হাইস্কোরিং উইকেট আমরা ব্যাটিং করতে চাই। বোলিংয়ে আমাদের চারজন পেসার আছে, সাকিব ছিল। নাসির খেলেছে, মিরাজ খেলেছে। সো আমাদের বোলিং ইউনিট শক্ত ছিল। আমরা সব সময় চেয়েছি ভাল উইকেটে খেলতে। যেটা হয়ত শ্রীলঙ্কার সঙ্গে আমরা তিনশ করেছিলাম। অন্তত ২৭০-৮০, তিনশর উইকেটে খেলতে চেয়েছি।’

ঘরের দল হয়েও তাহলে কি চাওয়া পূরণ হয়নি? সরাসরি উত্তর না দিয়েও বুঝিয়ে দিলেন মাশরাফি, ‘এখন এটা নিয়া এখানে আসলে বলার নাই। যেটা আমরা বলেছি প্রথম ম্যাচ থেকেই চেয়েছি ভাল উইকেট।’

উইকেট নিয়ে একমত শিরোপা জয়ী অধিনায়ক দিনেশ চান্দিমালও। কঠিন উইকেট টসটাকেই ভাইটাল মনে করেছিলেন তারা। আগের সব ম্যাচে টসে জিতলেও ফাইনালের ‘ভাইটাল’ টসটা জিতে নিয়েছিল শ্রীলঙ্কাই, 

‘আসলে উইকেট খুব কঠিন ছিল। আমি চেয়েছিলাম টস জিততে। উপুল আর ডিকভেলা দারুণ ব্যাট করেছে। ৭০ (আসলে ৭১) রানের জুটি গড়েছে। আমরা জানতাম ২২০-২৩০ করলে ম্যাচ জেতা যাবে।’
 
মিরপুর শেরে বাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়ামের কিউরেটর শ্রীলঙ্কান গামিনি ডি সিলভা। বিপিএলের সময়েও তার তৈরি উইকেট নিয়ে সমালোচনা হয়েছিল। 

Comments

The Daily Star  | English

Dhaka stares down the barrel of water

Once widely abundant, the freshwater for Dhaka dwellers continues to deplete at a dramatic rate and may disappear far below the ground.

5h ago