বাংলাদেশে ৩০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ সরবরাহের দায়িত্ব পেলো ভারতীয় প্রতিষ্ঠান

বাংলাদেশে ৩০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ সরবরাহের দায়িত্ব পেলো ভারতের রাষ্ট্রায়ত্ত প্রতিষ্ঠান ন্যাশনাল থার্মাল পাওয়ার করপোরেশন লিমিটেড (এনটিপিসি)।
ntpc power plant india
ভারতের রাষ্ট্রায়ত্ত প্রতিষ্ঠান ন্যাশনাল থার্মাল পাওয়ার করপোরেশন লিমিটেড (এনটিপিসি) আগামী জুন থেকে রাংলাদেশে ৩০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ সরবরাহ শুরু করবে। ছবি: এনটিপিসির ফেসবুক থেকে নেওয়া

বাংলাদেশে ৩০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ সরবরাহের দায়িত্ব পেলো ভারতের রাষ্ট্রায়ত্ত প্রতিষ্ঠান ন্যাশনাল থার্মাল পাওয়ার করপোরেশন লিমিটেড (এনটিপিসি)।

এনটিপিসির এক বার্তায় গতকাল (১৩ ফেব্রুয়ারি) বলা হয়, আশা করা হচ্ছে, আগামী জুনে এই বিদ্যুৎ সরবরাহ শুরু হবে।

বার্তাটির বরাত দিয়ে আমাদের নতুন দিল্লি সংবাদদাতা জানান, প্রাথমিক হিসাবে দেখা যায়, প্রতি ইউনিট বিদ্যুৎ বাংলাদেশে সরবরাহ করা হবে ৩.৪২ রুপি মূল্যে। আর এই চুক্তির ফলে ভারতীয় সংস্থাটি প্রতি বছর ৯০০ কোটি রুপি রাজস্ব আয় করবে।

বার্তায় বলা হয়, চুক্তি মোতাবেক এনটিপিসি-র বিদ্যুৎ ব্যাপার নিগম লিমিটেড (এনভিভিএন) বাংলাদেশের বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডকে স্বল্প ও দীর্ঘ মেয়াদে বিদ্যুৎ সরবরাহ করবে।

বর্তমানে, দুই দেশের সরকারের মধ্যে স্বাক্ষরিত চুক্তি অনুযায়ী ভারতের পশ্চিমবঙ্গ এবং ত্রিপুরা রাজ্যের আন্তঃসীমান্ত গ্রিড লাইনের মাধ্যমে ভারত বাংলাদেশকে ৬৬০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ সরবরাহ করে থাকে। এদিকে, এনটিপিসি বাংলাদেশের রামপালে অবস্থিত বিতর্কিত ১৩২০ মেগাওয়াট তাপবিদ্যুৎ উৎপাদন কেন্দ্রের অংশীদারও হয়েছে।

বার্তায় আরো বলা হয়, “ভারত থেকে স্বল্প মেয়াদে (১ জুন ২০১৮ থেকে ৩১ ডিসেম্বর ২০১৯ পর্যন্ত) ও দীর্ঘ মেয়াদে (১ জানুয়ারি ২০২০ থেকে ৩১ মে ২০৩৩ পর্যন্ত) ৫০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ সরবরাহের জন্যে টেন্ডারের আহ্বান করে বাংলাদেশের বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড। গত ১১ জানুয়ারি টেন্ডার জমা দেয় চারটি প্রতিষ্ঠান- এনভিভিএন, আদানি, পিটিসি এবং সেমবকরপ। এরপর গত ১১ ফেব্রুয়ারি ফিন্যান্সিয়াল বিড খোলা হয়। প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে এনভিভিএন ৩০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ সরবরাহের দায়িত্ব পায়।”

উল্লেখ্য, গত এপ্রিলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভারত সফরের সময় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি প্রতিবেশী দেশ দুটির মধ্যে সম্পর্ক উন্নয়নে জ্বালানি নিরাপত্তার ওপর গুরুত্বারোপ করেন। সেসময় তিনি বাংলাদেশে আরো ৫০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ সরবরাহের প্রতিশ্রুতি দেন।

Comments

The Daily Star  | English

Lifts at public hospitals: Horror abounds

Shipon Mia (not his real name) fears for his life throughout the hours he works as a liftman at a building of Sir Salimullah Medical College, commonly known as Mitford hospital, in the capital

2h ago