নিদহাস ট্রফিতে আয়ের ইতিহাস লঙ্কান বোর্ডের

নিদহাস ট্রফিতে মাঠের খেলায় ফেল করেছিলেন শ্রীলঙ্কান ক্রিকেটার, ঘরের মাঠে তারা যেতে পারেনি ফাইনালেও। তবে টুর্নামেন্ট আয়োজন করে শতভাগ সফল তাদের বোর্ড। এক টুর্নামেন্ট থেকে নিজেদের ইতিহাসে সবচেয়ে বেশি ৯৪ কোটি আয় করেছে তারা।
Bangladesh Cricket team
নিদহাস ট্রফিতে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ম্যাচ জেতানো শট শেষে মুশফিক ও মিরাজের উল্লাস। ফাইল ছবি: এএফপি

নিদহাস ট্রফিতে মাঠের খেলায় ফেল করেছিলেন শ্রীলঙ্কান ক্রিকেটার, ঘরের মাঠে তারা যেতে পারেনি ফাইনালেও। তবে টুর্নামেন্ট আয়োজন করে শতভাগ সফল তাদের বোর্ড। এক টুর্নামেন্ট থেকে নিজেদের ইতিহাসে সবচেয়ে বেশি ৯৪ কোটি আয় করেছে তারা।

দেশের স্বাধীনতার ৭০ বছর পূর্তি উদযাপন করতে বাংলাদেশ ও ভারতকে আমন্ত্রণ জানায় শ্রীলঙ্কা। মাত্র ৭ ম্যাচের ঘটনাবহুল টুর্নামেন্ট লাভের অঙ্কটা বেশ বড়। শ্রীলঙ্কান ক্রিকেট বোর্ড (এসএলসি) জানিয়েছে, টুর্নামেন্ট থেকে উঠে এসেছে মোট ১৩৮ কোটি টাকা। খরচ বাদ দিয়ে ৯৪ কোট টাকাই আয়। এরমধ্যে ১২৬ কোটি রুপিই এসেছে আন্তর্জাতিক সম্প্রচার স্বত্ব বিক্রি থেকে। বাকি অর্থ পাওয়া গেছে টিকিট বিক্রি করে। ১৯ কোটি ৫০ লাখ টাকা আয়ের লক্ষ্য নিয়ে নেমে তার কয়েকগুণ আয় করেছে লঙ্কান বোর্ড।

মাঠের খেলায় তিন দলই ছিল পাক্কা, লড়াই হয়েছে সেয়ানে সেয়ানে। ফাইনালে উঠার ম্যাচে বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা ম্যাচের উত্তেজনাও জুগিয়েছে রসদ। ফাইনালে স্বাগতিকরা না থাকলেও ভারতের হলে গলা ফাটাতে উপস্থিত ছিল স্থানীয় দর্শকরা। টুর্নামেন্ট জম্পেশ হওয়ায় আগ্রহ বেড়েছে আন্তর্জাতিক দর্শকদের। সব মিলিয়ে পোয়াবারো অবস্থা লঙ্কানদের।

উপমহাদেশের বড় তিন দল ভারত, বাংলাদেশ, পাকিস্তানের চেয়ে লাভের অঙ্কে কিছুটা পিছিয়ে ছিল লঙ্কান বোর্ড। বাকি তিন দেশ ঘরোয়া ফ্রেঞ্চাইজিভিত্তিক টি-টোয়েন্টি আসর করে অনেক টাকা কামালেও লঙ্কানরা সেরকম টুর্নামেন্ট চালিয়ে যেতে পারেনি। নিদহাস ট্রফির আয় তাই তাদের কাছে খরতাপের মধ্যে যেন এক পশলা স্বস্তির বৃষ্টি। 

তিন দলের টুর্নামেন্টে শ্রীলঙ্কাকে পেছনে ফেলে ফাইনাল খেলে ভারত-বাংলাদেশ। নাটকীয়তায় ভরা ফাইনালে বাংলাদেশকে শেষ বলে হারায় ভারত।

Comments