দ্বিতীয় রাউন্ডের চমকপ্রদ কিছু তথ্য

গ্রুপ পর্বের পালা শেষ, এবার শুরু নকআউট পর্বের রোমাঞ্চের। আজ রাতেই শুরু হয়ে যাচ্ছে নকআউট পর্ব, তবে তার আগে আপনাদের জন্য থাকছে নকআউট পর্ব সংক্রান্ত চমকপ্রদ কিছু তথ্য।

গ্রুপ পর্বের পালা শেষ, এবার শুরু নকআউট পর্বের রোমাঞ্চের। আজ রাতেই শুরু হয়ে যাচ্ছে নকআউট পর্ব, তবে তার আগে আপনাদের জন্য থাকছে নকআউট পর্ব সংক্রান্ত চমকপ্রদ কিছু তথ্য। 

১) বিশ্বকাপে সবচেয়ে বেশি সময় গোল না খেয়ে থাকার রেকর্ডটা ২০১০ বিশ্বকাপে একবার করেছিলেন ফার্নান্দো মুসলেরা (৩৯০ মিনিট)। আজ পর্তুগালের বিপক্ষে ৮১ মিনিট জাল অক্ষত রাখতে পারলেই নিজের রেকর্ড নিজে ভাঙবেন উরুগুয়ের এই গোলকিপার।

২) বিশ্বকাপে দুইবার মুখোমুখি হয়েছে ফ্রান্স ও আর্জেন্টিনা, দুইবারই জয়ী দলের নাম আর্জেন্টিনা। ১৯৩০ বিশ্বকাপে ১-০ ও ১৯৭৮ বিশ্বকাপে ২-১ গোলে জিতেছিল আর্জেন্টিনা। তবে ১৯৭৮ এর ওই হারের পর বিশ্বকাপে কোন লাতিন দলের কাছে হারের মুখ দেখেনি ফরাসিরা।

৩) শেষ ষোলোতে স্বাগতিক রাশিয়াকে পেয়ে যদি কোন স্পেন সমর্থক স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলে থাকেন, তাহলে তার জন্য অস্বস্তিকর তথ্যটি হলো, বিশ্বকাপে কখনোই কোন স্বাগতিক দেশকে হারাতে পারেনি স্পেন। ১৯৫০ আসরে স্বাগতিক ব্রাজিলের কাছে বিধ্বস্ত হয়েছিল ৬-১ গোলে, আর বাকি দুইবার করেছে ড্র। ১৯৩৪ বিশ্বকাপে ইতালির সাথে ১-১ গোলে ও ২০০২ বিশ্বকাপে দক্ষিণ কোরিয়ার সাথে গোলশূন্য ড্র (পেনাল্টিতে অবশ্য হারতে হয়েছিল স্পেনকেই)।

৪) বিশ্বকাপে এই নিয়ে টানা তিন ম্যাচে জিতেছে ক্রোয়েশিয়া, গোল করেছে টানা সাত ম্যাচে। দুটিই ক্রোয়েশিয়ার জন্য রেকর্ড।

৫) বিশ্বকাপে এখনও পর্যন্ত চারবার ব্রাজিলের মুখোমুখি হয়ে একবারও জিততে পারেনি মেক্সিকো। পঞ্চমবারের মোকাবেলায় এই রেকর্ড বদলাতে হলে আবারও ২০১৪ এর মতো ‘চীনের প্রাচীর’ হয়ে দাঁড়াতে হবে মেক্সিকান কিপার গিলের্মো ওচোয়াকে। তবে স্ট্রাইকারদের দায়িত্বও নেহায়েত কম নয়। বিশ্বকাপে যে ব্রাজিলের বিপক্ষে কখনোই গোল করতে পারেনি মেক্সিকো!

৬) ২০১৭ সালের নভেম্বরে এক প্রীতি ম্যাচে শেষবারের মতো মুখোমুখি হয়েছিল বেলজিয়াম ও জাপান। ওই ম্যাচে জয়সূচক গোলটি করেছিলেন রোমেলু লুকাকু। এবারও কি লুকাকুর কাঁধে চড়েই পার পাবে বেলজিয়াম?

৭) ১৯৩৮ সালের পর বিশ্বকাপে কোন নকআউট ম্যাচ জিততে পারেনি সুইজারল্যান্ড। অথচ এই সময়ে তিনবার সেমিফাইনাল পর্যন্ত গেছে শেষ ষোলোতে সুইসদের প্রতিপক্ষ সুইডেন।

৮) পাঁচবারের মোকাবেলায় কখনোই ইংল্যান্ডকে হারাতে পারেনি কলম্বিয়া। বিশ্বকাপে দুই দল মুখোমুখি হয়েছে একবার, সেটিও জিতেছে থ্রি লায়ন্সরা। ১৯৯৮ বিশ্বকাপে ইংল্যান্ডের কাছে ২-০ গোলে হেরে টুর্নামেন্ট থেকেই বিদায় নিতে হয় কলম্বিয়াকে। ওই বিশ্বকাপের স্কোয়াডে ছিলেন বর্তমান কোচ গ্যারেথ সাউথগেটও।

Comments

The Daily Star  | English

How the Sundarbans repeatedly saves Bangladesh from cyclones

In today's Star Explains, we take a look into how this mangrove forest has repeatedly helped reduce the severity of cyclones in Bangladesh

8m ago