‘মেসিকে আটকাতে পারলে কেইনকেও আটকানো সম্ভব’

ছয় গোল নিয়ে এখনও পর্যন্ত টুর্নামেন্টের সর্বোচ্চ গোলদাতা হ্যারি কেইন। সেমিফাইনালে এই কেইনের মুখোমুখিই হতে হবে ক্রোয়েশিয়াকে। কেইনকে নিয়ে তাই বাড়তি চিন্তা থাকতেই পারে ক্রোয়েশিয়ার। কিন্তু ক্রোয়াট কোচ জলাতকো দালিচ বলছেন, মেসিকে আটকাতে পারলে তাঁর দল কেইনকেও আটকাতে পারবে।
ফিফা বিশ্বকাপ ফুটবল ২০১৮
অনুশীলনে ক্রোয়েশিয়া

ছয় গোল নিয়ে এখনও পর্যন্ত টুর্নামেন্টের সর্বোচ্চ গোলদাতা হ্যারি কেইন। সেমিফাইনালে এই কেইনের মুখোমুখিই হতে হবে ক্রোয়েশিয়াকে। কেইনকে নিয়ে তাই বাড়তি চিন্তা থাকতেই পারে ক্রোয়েশিয়ার। কিন্তু ক্রোয়াট কোচ জলাতকো দালিচ বলছেন, মেসিকে আটকাতে পারলে তাঁর দল কেইনকেও আটকাতে পারবে।

বাইরে থেকে এই ইংল্যান্ড দলের তেমন কোন দুর্বলতা দেখতে পাচ্ছেন না ডালিচ। কেইন ও রহিম স্টার্লিংকেই এই ইংল্যান্ড দলের সবচেয়ে বড় হুমকি বলে মনে করছেন তিনি। কিন্তু নিজের দলের উপরেও অগাধ আস্থা তাঁর, ‘আমরা নিজেদের শক্তিমত্তায় বিশ্বাসী। ইংল্যান্ডকে তাই ভয় পাচ্ছি না আমরা। কেইন সর্বোচ্চ গোলদাতা, ওকে আটকানো মোটেও সহজ নয়। কিন্তু আমাদেরও সেরা সেন্টার ব্যাক আছে। আমরা মেসিকে থামাতে পেরেছি, এরিকসেনকেও আটকেছি। আশা করছি, কেইনকেও আটকাতে পারব আমরা।’

সেমিফাইনালের প্রতিপক্ষ ইংল্যান্ডের শক্তিমত্তা ও দুর্বলতা সম্পর্কে জানতে চাওয়া হয়েছিল দালিচের কাছে। ম্যাচের আগে প্রতিপক্ষের সম্পর্কে শ্রদ্ধাই ঝরে পড়লো ৫১ বছর বয়সী ক্রোয়েশিয়া কোচের মুখে, ‘ওদের তেমন কোন দুর্বলতা দেখতে পাচ্ছি না আমি। ওরা বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে খেলছে, এটাই তো সবকিছু বলে দেয়। ওদের খেলা দেখে যতটুকু বুঝেছি, ওরা ডিরেক্ট ফুটবল খেলতে পছন্দ করে, খুব গতিশীল ও ওরা। সেট পিসে ওরা ভয়ংকর, বিশেষ করে কর্ণারের সময় ওদের লম্বা খেলোয়াড়রা বিপজ্জনক হয়ে ওঠে। আমার দৃষ্টিতে রহিম স্টার্লিং খুবই বিপজ্জনক একজন খেলোয়াড়, কারণ সে দ্রুতগতির। কেইনের সাথে ওর সমন্বয়টা আসলেই খুব বিপজ্জনক।’

আগামী পরশু দ্বিতীয় সেমিফাইনালে ’৬৬ এর বিশ্বকাপজয়ীদের মুখোমুখি হবে ’৯৮ এর পর দ্বিতীয়বারের মতো সেমিফাইনালে ওঠা ক্রোয়েশিয়া।

আরও পড়ুন ঃ বাংলাদেশে বিশ্বকাপ উন্মাদনা নিয়ে ফিফার পোস্ট

Comments

The Daily Star  | English

PM's comment ignites protests across campuses

Hundreds of students from several public universities, including Dhaka University, took to the streets around midnight to protest what they said was a "disparaging comment" by Prime Minister Sheikh Hasina earlier in the evening

3h ago