গুজব ছড়ানোর অভিযোগে গৃহকর্ত্রী গ্রেপ্তার

নিরাপদ সড়কের দাবিতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলন চলাকালে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে উস্কানিমূলক পোস্ট ও গুজব ছড়ানোর অভিযোগে রাজধানীর পশ্চিম ধানমন্ডি এলাকা থেকে একজন গৃহকর্ত্রীকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব। একই সঙ্গে তিনি একজন নারী উদ্যোক্তাও।
Faria Mahjabin
১৬ আগস্ট ২০১৮, ফারিয়া মাহজাবিন (২৮) নামের এক গৃহকর্ত্রীকে রাজধানীর পশ্চিম ধানমন্ডি এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়। ছবিটি ১৭ আগস্ট র্যা ব কার্যালয়ে তোলা। ছবি: সংগৃহীত

নিরাপদ সড়কের দাবিতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলন চলাকালে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে উস্কানিমূলক পোস্ট ও গুজব ছড়ানোর অভিযোগে রাজধানীর পশ্চিম ধানমন্ডি এলাকা থেকে একজন গৃহকর্ত্রীকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব। একই সঙ্গে তিনি একজন নারী উদ্যোক্তাও।

র‌্যাবের সহকারী পরিচালক (মিডিয়া ও লিগ্যাল উইং) সিনিয়র এএসপি মিজানুর রহমান দ্য ডেইলি স্টারকে আজ (১৭ আগস্ট) সকালে জানান, গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে র‌্যাব-২ এর একটি দল গতকাল (১৬ আগস্ট) রাত পৌনে ১১টার দিকে অভিযান চালিয়ে ফারিয়া মাহজাবিন (২৮) নামের এক গৃহকর্ত্রীকে তার হাজী আফসার উদ্দিন রোডের বাসা থেকে গ্রেপ্তার করে।

ফারিয়াকে র‌্যাব-২ এর কার্যালয়ে রাখা হয়েছে এবং তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার প্রস্তুতি চলছে বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

এদিকে, র‌্যাবের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আটক গৃহকর্ত্রী র‌্যাবকে জানান, তিনি তার “ব্যবহৃত ব্যক্তিগত মোবাইলে ইন্টারনেট ব্যবহার করে ফেসবুক আইডি মেসেঞ্জার হতে ছাত্র আন্দোলনকে ভিন্ন খাতে প্রবাহিত ও দীর্ঘায়ত করে আইন-শৃঙ্খলার অবনতি ঘটানোর উদ্দেশ্যে বিভিন্ন রকম স্ট্যাটাস ও উস্কানিমূলক মিথ্যা তথ্য সম্বলিত অডিও ক্লিপ রেকর্ড করে পোস্ট করে আসছে।”

বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, ফারিয়া “বাস চাপায় দুই শিক্ষার্থী নিহত হওয়ার পর উদ্দেশ্যমূলকভাবে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের সহিত সংহতি প্রকাশ করে ফেসবুকে বিভিন্ন ধরনের মিথ্যা, বানোয়াট ছবি, গুজব সংবাদ, বানোয়াট ভিডিও ভাইরাল, দেশের আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি ভিন্ন খাতে নেওয়ার জন্য বিভ্রান্তমূলক স্ট্যাটাস প্রকাশ করে আসছে।”

‘নিরাপদ সড়ক চাই’ এর পরিপ্রেক্ষিতে শিক্ষার্থীদের দাবিগুলো মেনে নেওয়া হলেও সেই আসামি, তাদের সহযোগী অন্যান্য সদস্যরা মিলে অন্যায়ভাবে বিক্ষোভ কর্মসূচী পরিচালনা এবং রাস্তায় সাধারণ মানুষের উপর হামলা করার উদ্দেশ্যে অপতৎপরতা করে আসছে বলেও র‌্যাবের পক্ষ থেকে বলা হয়।

Comments

The Daily Star  | English

Lifts at public hospitals: Where Horror Abounds

Shipon Mia (not his real name) fears for his life throughout the hours he works as a liftman at a building of Sir Salimullah Medical College, commonly known as Mitford hospital, in the capital.

7h ago