এবার নায়ক হতে চান মিঠুন

খুব বেশি ম্যাচ না খেলতে পারলেও জাতীয় দলে ঢুকেছেন চার বছরের বেশি সময় ধরে। আশানুরূপ পারফরম্যান্স করতে না পারায় দলে আসা যাওয়ার মধ্যেই ছিলেন। তবে এশিয়া কাপে দুটি কার্যকরী ইনিংস খেলে নিজের জাত চিনিয়েছেন মোহাম্মদ মিঠুন। যদিও সে দুই দিনই দুর্দান্ত ইনিংস খেলে মূল নায়ক ছিলেন মুশফিকুর রহীম। সুযোগ পেয়েও ইনিংস লম্বা করতে না পারায় থেকে গেছেন পার্শ্বনায়ক হয়েই। তবে এবার সুযোগ পেলে নিজেই বাংলাদেশের জয়ের মূলনায়ক হয়ে উঠবেন বলে আশা করছেন এ উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান।

খুব বেশি ম্যাচ না খেলতে পারলেও জাতীয় দলে ঢুকেছেন চার বছরের বেশি সময় ধরে। আশানুরূপ পারফরম্যান্স করতে না পারায় দলে আসা যাওয়ার মধ্যেই ছিলেন। তবে এশিয়া কাপে দুটি কার্যকরী ইনিংস খেলে নিজের জাত চিনিয়েছেন মোহাম্মদ মিঠুন। যদিও সে দুই দিনই দুর্দান্ত ইনিংস খেলে মূল নায়ক ছিলেন মুশফিকুর রহীম। সুযোগ পেয়েও ইনিংস লম্বা করতে না পারায় থেকে গেছেন পার্শ্বনায়ক হয়েই। তবে এবার সুযোগ পেলে নিজেই বাংলাদেশের জয়ের মূলনায়ক হয়ে উঠবেন বলে আশা করছেন এ উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান।

ফাইনালে ছাড়া এশিয়া কাপে ওপেনিং জুটি নিয়ে বেশ ভুগতে হয়েছে বাংলাদেশকে। মিঠুন যখন ব্যাটিংয়ে গিয়েছেন তার আগেই দেখা গেছে দুই তিন উইকেট নেই। বাজে পরিস্থিতিতে দলের হাল ধরেছিলেন মিঠুন। ইনিংস মেরামত করেছেন। কিন্তু শেষ করে না আসার আক্ষেপটা থেকে গেছে তার, ‘মুশফিক ভাই যেভাবে শেষ করেছে, আমি সেভাবে শেষ করতে পারি নি। আমি মাঝপথে এসে আউট হয়ে গেছি। পরের বার এমন অবস্থা হলে চেষ্টা করব অবশ্যই শেষ করে আসার। আমি ওই জায়গা থেকে যদি শেষ করতে পারতাম, তাহলে আমি মূল চরিত্রে চলে আসতাম। এটা গুরুত্বপূর্ণ।’

এক প্রান্তে মুশফিক ধরে খেলেছেন। অপর প্রান্তে কিছুটা আক্রমণাত্মক ছিলেন মিঠুন। তাতেই লড়াইয়ের পুঁজি পেয়েছিল বাংলাদেশ। কিন্তু নিজেকে এর চেয়েও বেশি আগ্রাসী ব্যাটসম্যান বলেই দাবী করলেন মিঠুন, ‘আমি সাধারণত স্ট্রোক খেলোয়াড়। আমি স্ট্রোক খেলতেই পছন্দ করি। আর যখন একটা বড় ইনিংস খেলবেন তখন কিছু বড় শট দেখবেন, এটাই স্বাভাবিক। আমি সাধারণত পেস বলে সাইড স্ট্রোক খেলতে পছন্দ করি এবং স্পিনারদের বিপক্ষে পা ব্যবহার করে থাকি।’

কিন্তু এশিয়া কাপে পেসারদের বিপক্ষে সোজা বলে লেগ সাইডে খেলার চেষ্টায় ব্যর্থ হয়েছেন মিঠুন। মূলত চাপে থাকার কারণেই এমনটা হয়েছে বলে জানান তিনি, ‘আসলে চাপের মুখে ব্যাট করতে গেলে অনেক সময় লুজ বলও মিস হয়ে যায়। এটাই ক্রিকেট। তারপরও এসব নিয়ে কাজ করছি। সামনে অনেক সময় আছে, সামনেও এসব নিয়ে কাজ করব।’

২০১৪ সালে অভিষেক হলেও কখনোই টানা দুই সিরিজ কিংবা টুর্নামেন্টে খেলা হয়নি তার। এবার ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজে শেষে ছিলেন এশিয়া কাপে। আছেন জিম্বাবুয়ে সিরিজেও। হতে চান দলের নিয়মিত সদস্য। আর তার জন্য প্রয়োজনীয় আত্মবিশ্বাসটা পেয়েছেন তো এশিয়া কাপেই, ‘আত্মবিশ্বাসটা বেড়েছে। আগে একটা জড়তা কাজ করত। না পারলে আবার বাইরে, এই চিন্তা কাজ করত। এখন সেটা আপাতত নেই। এখন আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে সাফল্য এসেছে। এখন আত্মবিশ্বাস আছে এই পর্যায়ে ভাল করতে পারব।’

Comments

The Daily Star  | English

‘Will implement Teesta project with help from India’

Prime Minister Sheikh Hasina has said her government will implement the Teesta project with assistance from India and it has got assurances from the neighbouring country in this regard.

4h ago