বগুড়ায় তাসকিন, খুলনায় সাজেদুলের তোপ

বহুদিন পর চেনা ছন্দে দেখা মিলল তাসকিন আহমেদের। বগুড়ায় চট্টগ্রামকে কাঁপিয়ে দিয়েছিলেন তিনি। খুলনায় ৬ উইকেট নিয়ে স্বাগতিকদের ইনিংস মুড়েছেন সাজেদুল ইসলাম। এই দুই ম্যাচেই হচ্ছে সমান তালে লড়াই। বৃষ্টির বাগড়ায় এদিনও বাকি দুই ম্যাচ মাঠে গড়ায়নি।

বহুদিন পর চেনা ছন্দে দেখা মিলল তাসকিন আহমেদের। বগুড়ায় চট্টগ্রামকে কাঁপিয়ে দিয়েছিলেন তিনি। খুলনায় ৬ উইকেট নিয়ে স্বাগতিকদের ইনিংস মুড়েছেন সাজেদুল ইসলাম। এই দুই ম্যাচেই হচ্ছে সমান তালে লড়াই। বৃষ্টির বাগড়ায় এদিনও বাকি দুই ম্যাচ মাঠে গড়ায়নি।

বগুড়ার শহীদ চান্দু স্টেডিয়ামে আগের দিনের ৬ উইকেটে ২৬৬ রান নিয়ে নেমে বেশিদূর আগাতে পারেনি ঢাকা মেট্রো। অলআউট হয়েছে ২৮৭ রানে। জবাবে ব্যাট করতে নেমে তাসকিনের তোপে পড়ে চট্টগ্রামের ইনিংস। ইনিংসের তৃতীয় ওভারেই সাদিকুর রহমানকে ফিরিয়ে দেন তাসকিন। ৩৪ রান করা অধিনায়ক মুমিনুল হক মোহাম্মদ আশরাফুলকে উইকেট বিলিয়ে ফেরেন। এরপর পাঁচ বলের মধ্যে ইয়াসির আলি চৌধুরী ও মাহিদুল ইসলাম অঙ্কনকে ফেরান তাসকিন।

১০২ রানে পাঁচ উইকেট হারানো চট্টগ্রামের ইনিংস টেনেছেন তাসামুল হক। বিপর্যয় কাটিয়ে দলকে তিনিই রেখেছেন লড়াইয়ে। দিনশেষে মেহেদী হাসান রানা (১৫) কে নিয়ে ৮১ রানে অপরাজিত আছেন তাসামুল।

খুলনায় অনেকদিন পর বল হাতে কিছু একটা করে দেখালেন পেসার সাজেদুল ইসলাম। রংপুর অধিনায়কের ৮১ রানে ৬ উইকেটে খুলনা গুটিয়ে যায় ৩০৪ রানে। জবাবে জাহিদ জাভেদ ও সোহরাওয়ার্দি শুভর ব্যাটে দিনশেষে ৪ উইকেটে ২০০ রান করেছে রংপুর। 

বৃষ্টি নেই তবু খেলা হলো না

দুদিন থেকে বরিশালে কোন বৃষ্টি নেই। আকাশ পরিষ্কার, উঠেছে রোদও। তবু জাতীয় লিগের ম্যাচ শুরু হতে পারেনি বরিশাল শহীদ আব্দুর রব সেরেনিয়াবাত স্টেডিয়ামে। দুদিন আগের বৃষ্টিতে জমাট হওয়া পানিতেই যে আউটফিল্ড এখনো সয়লাব।

গত চার বছরে বরিশালের মাঠে কোন প্রথম শ্রেনীর ম্যাচ হয়নি। চার বছর পর এমন ম্যাচের খবর পেয়ে গ্যালারিতেও জড়ো হয়েছিলেন উল্লেখযোগ্য সংখ্যক মানুষ। হতাশ হয়েই বাড়ি ফিরতে হয়েছে। দুদিন পেরিয়ে গেলেও প্রথম স্তরে স্বাগতিকদের সঙ্গে রাজশাহীর ম্যাচের টসই যে এখনো হতে পারেনি।

বাকি দুদিন খেলা হবে কিনা তার নিশ্চয়তা মেলেনি। খেলা হলেও মোটামুটি নিশ্চিত ফল আসবে না এই ম্যাচের। একই অবস্থা কক্সবাজারেও। মাঠ খেলার অনুপযুক্ত থাকায় দ্বিতীয় স্তরে ঢাকা ও সিলেট বিভাগের ম্যাচেও এখনো টসই হয়নি।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

ঢাকা মেট্রো ১ম ইনিংস: (প্রথম দিন শেষে ২৬৬/৬) ১০৪.৫ ওভারে ২৮৭ (সাদমান ৩৬, নাঈম ৯, শামসুর ৫১*, আশরাফুল ০, মেহরাব জুনিয়র ০, সৈকত ১০, জাবিদ ৯০, শরিফউল্লাহ ৪৫, তাসকিন ২৯, সানি ০, শহিদুল ০; ইয়াসিন ০/৫৫, রানা ২/৩১, মাহমুদ ২/৭৩, নাঈম ৩/৭৪, শাখাওয়াত ২/৩৬, মুমিনুল ০/৭)

চট্টগ্রাম ১ম ইনিংস: ৭৪ ওভারে ১৮৭/৬ (সাদিকুর ২, পিনাক ১২, মুমিনুল ৩৪, ইয়াসির ২৯, তাসামুল ৮১*, মাহিদুল ০, নাঈম ৮, রানা ১৫*; তাসকিন ৩/৪৬, শহিদুল ১/৩২, আশরাফুল ১/৩০, সানি ১/৫৩, শরিফউল্লাহ ০/২০)

===

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

খুলনা ১ম ইনিংস: ৯৪.১ ওভারে ৩০৪ (আগের দিন ২৭২/৭)(জিয়াউর ৫৩, রাজ্জাক ১, বিশ্বনাথ ৩*, আল আমিন ৮; সাজেদুল ৬/৮১, রবিউল ১/৪০, সাদ্দাম ১/৪৯, সোহরাওয়ার্দী ০/২৭, সঞ্জিত ২/৮০, মাহমুদুল ০/৭)।

রংপুর ১ম ইনিংস: ৭৭ ওভারে ২০০/৪ (জাভেদ ৬৪, মারুফ ৩০, মাহমুদুল ১৫, সোহরাওয়ার্দী ৪৭*, নাঈম ৩০, তানবীর ৫*; আল আমিন ৩/৩৭, জিয়াউর ০/১১, সৌম্য ০/৩৩, রাজ্জাক ০/৪৫, মেহেদি ০/২৬, বিশ্বনাথ ১/৩৪, আফিফ ০/৬)।

 

 

Comments

The Daily Star  | English

14 killed as truck ploughs thru multiple vehicles in Jhalakathi

It is suspected that the truck driver lost control over his vehicle due to a brake failure

1h ago