ভারতের সঙ্গে খেলতে পেরেই আনন্দিত তারা

ম্যাচের ফলাফলে এসবের প্রভাব নেই জেনেও মালয়েশিয়ান মেয়েদের আনন্দ নজর কাড়ে আলাদাভাবে।
India Vs Malaysia
একপেশে ম্যাচে মালয়েশিয়াকে হারায় ভারত। ছবি: বিসিবি

১১৬ রানে পড়ে ভারতের প্রথম উইকেট। উইনফ্রেড দুরাইসিঙ্গামের বলে ঝড় তুলা সাবহিনেনি মেঘনা ক্যাচ দিয়ে ফেরার পর তুমুল উল্লাসে মাতে মালয়েশিয়া। ভারতের রান স্পর্শের বাইরে যাওয়ার পর স্লগ ওভারেও আরও তিন উইকেট নিতে পারে। ম্যাচের ফলাফলে এসবের প্রভাব নেই জেনেও মালয়েশিয়ান মেয়েদের আনন্দ নজর কাড়ে আলাদাভাবে। ম্যাচ শেষে তারা জানান, ভারতের মতো বড় প্রতিপক্ষের সঙ্গে খেলতে পারাই ছিল বড় কথা। খেলার মাঝে বড় ক্রিকেটারদের কাছ থেকে টিপসও নিয়েছেন তারা।

সোমবার সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে দ্বিতীয় ম্যাচটি ছিল বৃষ্টি বিঘ্নিত ও একদমই একপেশে। র‍্যাঙ্কিংয়ের উপরের সারির দলগুলোর একটির সঙ্গে অনেক তফাতে থাকা মালয়েশিয়ার ফলাফলও স্বাভাবিক। আগে ব্যাট করে মেঘনার ৫৩ বলে ৬৯, শেফালি বর্মার ৩৯ বলে ৪৬ ও রিচা ঘোষের ১৯ বলে ৩৩ রানে ১৮১ রানের পাহাড় গড়ে ভারত। সিলেটের মন্থর ও টার্নিং উইকেটের বিচারে রানটি যেকোনো দলের জন্যই বিশাল।

জবাব ৫.২ ওভারে ২ উইকেটে মালয়েশিয়া ১৬ রান তুলার পর বৃষ্টিতে আর খেলা হয়নি। পরে ডিএলএস মেথডে ভারত জিতে ৩০ রানে।

ম্যাচ শেষে মালয়েশিয়ান ব্যাটার মাস ইলিয়াস জানান তাদের গোটা দলই ভারতের সঙ্গে খেলার রোমাঞ্চে ছিল মাতোয়ারা,  'আমরা খুবই রোমাঞ্চিত ছিলাম, কারণ ভারতের মতো বড় দলের বিপক্ষে খেলেছি। তারা বিশ্বের সেরা দলগুলোর একটি। আমরা চেয়েছিলাম পুরো ২০ ওভার যেন খেলা হয়। দেখতে চেয়েছিলাম কতটা কী করতে পারি। '

ডানহাতি ব্যাটার মাস খেলার ফাঁকে টিপস নিয়েছেন ভারতীয় বড় তারকাদের কাছ থেকে। এই ম্যাচে যেন এসবই তাদের অর্জন,  'আমি জেমামাইমার (রদ্রিগুয়েজ) কাছ থেকে ব্যাটিং টিপস নিয়েছি। সে আমাকে খুব ভালো পরামর্শ দিয়েছে। আমি এসব থেকে শেখার চেষ্টা করব। '

এদিকে মালয়েশিয়ান মেয়েদের রোমাঞ্চ, উত্তেজনা স্পর্শ করেছে ভারতীয়দেরও। হারমানপ্রিত কাউর, জেমাইমা রদ্রিগুয়েজরা নিজে থেকে এগিয়ে উৎসাহ দিয়েছেন তাদের। পরে ম্যাচ সেরা মেঘনা জানিয়েছেন দলটির প্রতি শুভকামনা,  'আমার মনে হয় তারা প্রতিশ্রুতিশীল দল, ভবিষ্যৎ আছে তাদের। বেশিরভাগ মেয়ে খুব কম বয়েসী। আগামীতে ভাল করবে।'

Comments

The Daily Star  | English

Create right conditions for Rohingya repatriation: G7

Foreign ministers from the Group of Seven (G7) countries have stressed the need to create conditions for the voluntary, safe, dignified, and sustainable return of all Rohingya refugees and displaced persons to Myanmar

1h ago